সর্বশেষ আপডেট : ৫৮ মিনিট ১৭ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সীমান্ত খুলে তিন হাজার ভারতীয় বানভাসিকে বাংলাদেশে আশ্রয়

kkkনিউজ ডেস্ক : এ যেন এক মায়ের আশ্রয়। বিপদে পড়া সন্তানকে যেভাবে মা তাঁর কোলে আশ্রয় দেন, ঠিক সেভাবেই রাষ্ট্রীয় বাধ্যবাধকতার উপরে ওঠে কাঁটাতারকে উপেক্ষা করে সীমান্ত খুলে দিয়ে ভারতীয় গ্রাম জারিধরলা ও দরিবসের প্রায় তিনি হাজার বানভাসি মানুষ-সহ গবাদি পশুদের আশ্রয় দিয়ে দুই দেশের সম্পর্ককে অন্য মাত্রা দিল শেখ হাসিনা সরকার।
গত কয়েক দিনের টানা বর্ষণের জেরে বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী রাজ্যের কোচবিহার জেলার ধরলা নদীর পানি বেড়ে যাওয়ার প্লাবিত হয়েছে গিতালদহ ২ নং গ্রাম পঞ্চয়েতের জারিধরলা ও দরিবস গ্রাম। শুধু তাই নয় এই প্লাবনের ফলে দরিবস ও সংলগ্ন অঞ্চলের দুই বিএসএফ ক্যাম্পকেও সরিয়ে নিয়ে যেতে হয়েছে।
ধরলা নদী এই দুই গ্রামকে বিচ্ছিন্ন করেছে ভারতের মূল ভূখ- থেকে। ভৌগোলিক কারণে বছরের বেশিরভাগ সময়ই দুই গ্রামকে নির্ভর করতে হয় বাংলাদেশের উপরই । হঠ্যাৎ করে হাট বাজার করা, এমনকি রাতে কেউ অসুস্থ হলে তাকে নিয়ে যেতে হয় বাংলাদেশের মোগলহাটে। যাতায়াতে তেমন কোনও বাধা দেয় না বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবি। কিন্তু সবটাই এতদিন ছিল বেআইনি। রবিবার রাতে যখন ধরলা নদীর পানি বাড়ল, বাধ্য হয়েই গ্রাম দুটির মানুষ প্রাণ বাঁচাতে গেলেন মোগলহাটে। না তাদের কেউই আটকায়নি অনুপ্রবেশকারী বলে। উল্টো সীমান্ত খুলে দিয়ে তাদের আশ্রয় দেয় বাংলাদেশ প্রশাসন। স্থানীয় মোগলহাট উচ্চ বিদ্যালয়ে শিবির তৈরি করে হয়েছে থাকার ব্যবস্থা। প্রশাসনের পক্ষ থেকে দেওয়া হয়েছে খাবার।
মঙ্গলবার মোগলহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান জানিয়েছেন, বেশ কিছু পরিবারকে আশ্রয় দেওয়া হয়েছে, আমরা তাদের খাবারের ব্যবস্থাও করেছি। ঘটনার কথা স্বীকার করে নিয়ে এই দুর্দিনে বানভাসি মানুষদের আশ্রয় দেওয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। সোমবার বিএসএফ এর স্পিডবোটে চেপে তিনি ওই দুটি গ্রাম পরিদর্শনে যান। যদিও জল এতটাই বেশি ছিল গ্রামের ভিতরে পৌঁছতে পারেননি রবীন্দ্রনাথ বাবু।
তিনি বলেন, পানি এমনভাবে বেড়ে গিয়েছে যাতে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া ছাড়া মানুষের আর কিছু করার ছিল না। বাংলাদেশ সরকারকে আমরা এজন্য ধন্যবাদ জানাই। বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীও মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে।
দরিবসের বাসিন্দা নূর মুহম্মদ আলি এদিন টেলিফোনে বলেন, বাংলাদেশ সরকার যেভাবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেম আশ্রয় দিয়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়েছে তার জন্য আমরা কৃতজ্ঞ। এখন পানি নামছে, অনেকে ওপার থেকে ফিরে আসা শুরু করেছে। সূত্র : যুগশঙ্খ।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: