সর্বশেষ আপডেট : ১ মিনিট ৩০ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

আইএস ও বাংলাদেশের জঙ্গিবাদ নিয়ে বৈঠক ভারতে

url-38নিউজ ডেস্ক : বাংলাদেশের জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে ভারতে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে উচ্চ পর্যায়েরে বৈঠক। সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশে মাথাছাড়া দিয়ে উঠেছে জঙ্গিবাদ। এ বিষয়ে বাংলাদেশের সক্ষমতা এবং ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা জানতে চাইবে ভারত। এছাড়া ভারতীয় উপমহাদেশে ইসলামিক স্টেট (আইএস) বিষয়টি প্রতিরোধের বিষয়েও আলোচনা হবে বৈঠকে। আলোচনায় স্থান পাবে পারস্পরিক সহযোগিতার বিষয়টিও।
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে এসব বিষয় জানা গেছে।
বলা হচ্ছে, আজ বুধবার থেকে শুরু হতে যাওয়া এই বৈঠকে সর্বোচ্চ প্রাধান্য দেয়া হবে নিরাপত্তার ইস্যুকে। এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘বৈঠকে দুই দেশের নিরাপত্তা সহযোগিতা নিয়ে বিশেষ আলোচনা ও সিদ্ধান্ত হবে। কারণ গুলশানে জঙ্গী হামলার পর উভয় দেশই জঙ্গীবাদ প্রতিরোধের বিষয়ে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে।
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এ বিষয়ে বলেন, ‘দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতা আরো জোরদারের, বিশেষত নিরাপত্তা এবং জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের বিষয়টি প্রাধান্য পাবে, কেননা উভয় দেশই সন্ত্রাসের হুমকির মধ্যে রয়েছে। মন্ত্রিপর্যায়ের বৈঠকে পারস্পরিক স্বার্থ নিশ্চিত ও রক্ষায় দ্বিপাক্ষিক ইস্যুগুলো নিয়ে আলোচনা হবে।’
কিন্তু জানা গেছে, ভারতীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী (মন্ত্রক) রাজনাথ সিংয়ের পক্ষ থেকে আলোচনার মূল এজেন্ডা হবে বাংলাদেশের সন্ত্রাসবাদের উত্থান। সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশে মাথাছাড়া দিয়ে উঠেছে জঙ্গিবাদ। এ বিষয়ে বাংলাদেশের সক্ষমতা এবং ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা জানতে চাইবে ভারত।
এ ধরনের বিষয় মোকাবেলায় বাংলাদেশ কতটুকু সক্ষম এবং বাংলাদেশের জঙ্গিবাদ দমনে ভারত কি রকম সহযোগিতা দিতে পারে, বিষয়গুলো প্রাধান্য পাবে আলোচনায়। তবে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে দুই প্রতিবেশির মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতার বিষয়টিও আলোচনায় স্থান পাবে বলে জানা গেছে। আলোচনায় দুই দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীরা ছাড়াও থাকবেন গোয়েন্দা সংস্থার প্রধানরা।
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র জানিয়েছে, সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে ভারত বরাবরই বাংলাদেশকে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়ে আসছে। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ এতোটাই মাথাছাড়া দিয়ে উঠেছে যে, দ্বিপাক্ষিক বিষয়ে ভারত বাংলাদেশের নিরাপত্তা ব্যবস্থা এবং আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতিতে খুব বিবেচনায় রেখেছে। এই অবস্থায়, জঙ্গি ইস্যুতে বাংলাদেশের অবস্থান এবং সরকারের দৃষ্টিভঙ্গি জানাতে হবে ভারতকে।
বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে সন্দেহভাজন জঙ্গিদের একটি তালিকা ভারতের হাতে দেয়া হবে। সন্দেহভাজন এই জঙ্গিরা দেশ থেকে পালিয়ে ভারতে লুকিয়ে রয়েছে বলে সন্দেহ করছে বাংলাদেশ।
ভিন্ন প্রেক্ষাপটে এবারের বৈঠকে দুই দেশের মধ্যে গোয়েন্দা তথ্য আদান-প্রদান নিয়ে প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামো তৈরি ও বন্দী বিনিময় চুক্তি সংশোধনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।
এছাড়া বৈঠকে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে বন্দী বিনিময় চুক্তির সংশোধনের জন্য প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। দুই দেশের মধ্যে সহজে অপরাধী হস্তান্তরের লক্ষ্যে এই সংশোধন করা হতে পারে। এখন অপরাধী হস্তান্তরের ক্ষেত্রে আদালতের রায়ের জন্য অপেক্ষা করতে হয়। তবে বন্দী বিনিময় চুক্তি সংশোধন হলে আদালতের রায়ের জন্য আর অপেক্ষা করতে হবে না। খুব দ্রুত দুই দেশ বন্দী বিনিময় করতে পারবে।
২০১৩ সালে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে বন্দী বিনিময় চুক্তি হওয়ার পর তা বাস্তবায়নে কিছু সমস্যা দেখা দেয়। ভারতের পক্ষ থেকে চুক্তির এই অংশ সংশোধনের প্রস্তাব দেয়া হলে সম্প্রতি মন্ত্রিসভা বৈঠকে বন্দী বিনিময় চুক্তির সংশোধনী আনা হয়। এছাড়া এই দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে দুই দেশের মধ্যে ভিসা ব্যবস্থা সহজ করা নিয়েও আলোচনা হতে পারে।
ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশন সহজে ভিসা দেয়ার জন্য যে সাময়িক ব্যবস্থা চালু করেছিল, তা নিয়মিত করা নিয়েও আলোচনা হতে পারে। একই সঙ্গে সীমান্ত এলাকায় অপরাধের বিষয়টিও আলোচনায় উঠবে।
দুই দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকের আগেই ভারতের জাতীয় গোয়েন্দা তদন্ত সংস্থা (এনআইএ) স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালকে বিশেষ ব্রিফিং দিতে পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের ব্যবস্থা করেছে। এতে ভারতের আসাম, হায়দরাবাদ, নাসিক, বিজনোর, ভটকল, কোঝিকোর বা কাসাদগড়, মুজাফফরনগরের মতো বিভিন্ন শহরে আইএস কিভাবে জাল বিস্তার ও তরুণদের রিক্রুট করছে সেটা তুলে ধরা হয়েছে। পাশাপাশি বাংলাদেশের জামা’আতুল মুজাহিদীন বা জেএমবি জঙ্গীরা কিভাবে শিকড় বিস্তার করছে সেটাও তুলে ধরবেন ভারতীয় গোয়েন্দারা। ২৭ জুলাই দিল্লীতে পৌঁছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ভারতের প্রধান গোয়েন্দা সংস্থা এনআইএ’র সদর দফতরে যাবেন। এসময় এনআইএর প্রধান শারদ কুমারের সঙ্গে আলাদাভাবে বৈঠক করবেন বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এখানে ভারত ও বাংলাদেশজুড়ে জঙ্গীদের সাম্প্রতিক তৎপরতা নিয়ে দু’জনের মধ্যে আলোচনা হবে।
২৭ জুলাই শুরু বৈঠক শুরু হয়ে চলবে ২৯ জুলাই পর্যন্ত।-আমাদের সময়.কম

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: