সর্বশেষ আপডেট : ২৪ মিনিট ১০ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কমতে শুরু করেছে সুনামগঞ্জের নদ-নদী ও হাওরের পানি

Sunamganj news daily sylhetসুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:
গতরাত থেকে বৃষ্টিপাত কিছুটা কম হওয়ায় সুনামগঞ্জ জেলার বিভিন্ন নদনদী ও হাওরে পানি আবারো সামান্য কিছুটা কমতে শুরু করায় কিছুটা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন পানিবন্দি লাখো মানুষ। তবে এখনো সুনামগঞ্জ জেলা সদর, দোয়ারাবাজার, বিশ্বম্ভরপুর, ছাতক, তাহিরপুর, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ ও ধর্মপাশা উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের লাখো মানুষ পানিবন্দি হয়ে অনাহারে অর্ধাহারে জীবনযাপন করছেন । জেলার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির আবারো কিছুটা উন্নতি হতে শুরু করেছে।
মঙ্গলবার সকাল ১০টা পর্যন্ত সুনামগঞ্জের ষোলঘর পয়েন্টে সুরমা নদীর পানি বিপৎসীমার ৯০ সে.মি উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। যা সোমবার থেকে বিপৎসীমার ১ সে. মিটার কম দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে বলে পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা যায়। গত ২৪ ঘন্টায় ২০ মি. মিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে । পানিবন্দি ঐ সমস্ত এলাকায় দেখা দিয়েছে নানান পানি বাহিত রোগ এবং শুকনো খাবারের রয়েছে চরম সংকট ও বিশুদ্ধ পানীয় জলের অভাব দেখা দিয়েছে। স্থানীয় প্রশাসন বা জনপ্রতিনিধিদের কাছ থেকে ত্রাণসমাগ্রী আসলেও তা প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল এবং কোনো কোনো এলাকায় এখনো ত্রাণ সহায়তা পাচ্ছেন না বলে বানভাসী মানুষজনের অভিযোগ।

এদিকে গত কয়েকদিনের অব্যাহত বৃষ্টিপাতের ফলে মঙ্গলবার পর্যন্ত সুনামগঞ্জ ও ধর্মপাশা উপজেলায় পানির স্রোতের কবলে পরে ৩ শিশু সহ ৪ জনের লাশ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।

এছাড়াও সুনামগঞ্জ শহরের নবীনগর এলাকায় সুরমা নদীর স্রোতে সড়কটি ভেঙে পড়ায় এখনো ধারার গাঁওয়ের সাথে সড়ক যোগাযোগ স্থাপিত না হওয়ায় চরম দুর্ভোগে এই অঞ্চলের প্রায় ৫০ হাজার মানুষ। একই ভাবে সুনামগঞ্জ তাহিরপুর ও দোয়ারা-ছাতক সড়কের বিভিন্ন অংশ ভেঙে পানি উঠে পড়ায় গত নয় দিন ধরে সব ধরণের সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে পড়েছে। নতুন করে প্লাবিত তাহিরপুর বিশ্বম্ভরপুর, দোয়ারাবাজার, ছাতক, জামালগঞ্জ ও দক্ষিন সুনামগঞ্জসহ কয়েক শতাধিক গ্রামে পানি কমতে শুরু করেছে।

গত ১০দিন ধরে হাওরের বেশিরভাগ এলাকা পানিতে ডুবে থাকায় জেলার প্রায় ৫শ হেক্টর আমন নষ্ট হয়ে গেছে এবং জেলার বিভিন্ন উপজেলায় অনেক পুকুর ডুবে যাওয়ায় পুকুরের মাছ চলে গেছে। সব থেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ধানের বীজতলা।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান নির্বাহি প্রকৌশলী আফসার উদ্দিন জানান, গত সোমবার রাতে বৃষ্টিপাত কম হওয়ায় নদনদীর পানি কমতে শুরু করেছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: