সর্বশেষ আপডেট : ১৪ মিনিট ৫৬ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

আমরা বাসার রান্নাঘরে আটকা পড়েছি, আমাদের বাঁচান’

full_457227410_1469518379নিউজ ডেস্ক : রাজধানীর কল্যাণপুরে একটি জঙ্গি আস্তানায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানে গোলাগুলিতে নয় জঙ্গি নিহত হয়েছে। পুলিশের মহাপরিদর্শক একেএম শহীদুল হক বলেছেন, ঘটনাস্থল থেকে একজনকে আটক করা হয়েছে। হতাহতরা সবাই নিষিদ্ধ জঙ্গি দল জেএমবির সদস্য বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার সকাল ৫ টা ৫১ মিনিট থেকে ৬ টা ৫১ মিনিট পর্যন্ত এ অভিযান চলে। এতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কয়েকজন সদস্য আহত হয়েছেন।

বিল্ডংটিতে বাড়িওয়ালা থাকেন দ্বিতীয় তলায়। প্রতিটি তলায় রয়েছে চারটি করে ফ্ল্যাট। উপরের কয়েকটি ফ্লোর ভাড়া নিয়ে ব্যাচেলররা মেস করে থাকে, যার সুযোগে পঞ্চম তলায় গড়ে উঠেছিল জঙ্গি আস্তানা।

কল্যাণপুরের ৫ নম্বর সড়কের গার্লস হাই স্কুলের পাশে ৫৩ নম্বর বাড়ির গায়ে ‘তাজ মঞ্জিল’ নাম লেখা থাকলেও স্থানীয়রা ছয় তলা ওই ভবনকে চেনেন ‘জাহাজ বিল্ডিং’ নামে। কল্যাণপুরে যে জঙ্গি আস্তানায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযান চালিয়েছে, সেই ভবনের এক বাসিন্দার কথায় ফুটে উঠেছে গোলাগুলির মধ্যে সারা রাতের আতঙ্কের চিত্র।

ভবনটির ষষ্ঠ তলায় তিন কক্ষের এক ফ্ল্যাটে ১৫ হাজার টাকায় ভাড়া থাকেন নয় তরুণ, যাদের মধ্যে আল্লামা ইকবাল অনিক।
তিনি বলেন, সাড়ে ১২টার দিকে বাসার আশপাশে পুলিশের উপস্থিতি টের পান তারা। পরে বুঝতে পারেন, তাদের ভবনেই অভিযান শুরু হয়েছে।

ঘণ্টা দেড়েক পর পুলিশ ওপরে ওঠার চেষ্টা করলে শুরু হয় গোলাগুলি। অনিক ও তার সঙ্গে থাকা তরুণদের সবাই আতঙ্কে বাসার দরজা আটকে রান্না ঘরে গিয়ে অবস্থান নেন।

তিনি বলেন, “সারাটা রাত আমরা রান্নাঘরে লুকিয়ে ছিলাম। একটু পর পর গুলির শব্দ। খুব ভয় হচ্ছিল। গুলির শব্দে মনে হচ্ছিল আজ আর বাঁচব না।”

ভোরের দিকে সোয়াতের অভিযানের সময় গোলাগুলির তীব্রতা বেড়ে গেলে পরিচিত এক সাংবাদিককে এসএমএস করে অনিক বলেন, “আমরা অভিযানের মধ্যে বাসায় আটকা পড়েছি। আমাদের বাঁচান।”

এদিকে পুলিশ জানিয়েছে, পঞ্চম তলার সাতটি কক্ষ সন্দেহভাজন ওই জঙ্গিরা ভাড়া নিয়েছিল। নিহতদের মধ্যে সাতজনের লাশ পাওয়া গেছে কোরিডোরে, দুজনের লাশ ছিল দুটি কক্ষে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের অতিরিক্ত উপ কমিশনার মো. ছানোয়ার হোসেন বলেন, “যারা নিহত হয়েছেন, তাদের পরনে কালো পাঞ্জাবি ও মাথায় ছিল পাগড়ি। ওই বাসা থেকে আরও বেশ কিছু নতুন কালো পাঞ্জাবি ও কালো পতাকা উদ্ধার করা হয়েছে। ওই ফ্ল্যাটে একটি গ্রেনেড ও একটি পিস্তল পাওয়া গেছে।”

পুলিশের মহাপরিদর্শক একেএম শহীদুল হক সাংবাদিকদের বলেন, “অভিযানের সময় জঙ্গিরা ফ্ল্যাটের দরজা খুলে গুলি করতে করতে পালানোর চেষ্টা করে। তাদের পরনে কালো রঙের জঙ্গি পোশাক ছিল, মাথায় ছিল পাগড়ি; হাতে ছিল ব্যাগ।”

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: