সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

জামালগঞ্জে উপবৃত্তির টাকা শিক্ষকদের পকেটে, নারী অভিভাবক লাঞ্ছিত

JAMALGANJ-1ডেইলি সিলেট ডেস্ক:
জামালগঞ্জের একাধিক শিক্ষা কেন্দ্রে উপবৃত্তির টাকা আত্মসাতের করে শিক্ষকদের পকেটস্থ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। টাকা কম দেওয়ার বিষয়ে প্রতিবাদ করলে কোথাও কোথায় লাঞ্ছিত হয়েছেন অভিভাবকরা। আর উপবৃত্তির টাকা আত্মসাতের ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে ফেনারবাকের লক্ষ্মীপুরের গ্রামবাসী, কাশিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ উঠেছে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা, একাধিক শিক্ষক নেতা,ব্যাংকের কজন কর্মকর্তার যোগসাজেশে উপবৃত্তির টাকা লোপাট হয়েছে। তবে শিক্ষক নেতা নিজে জড়িত নয় দাবি করেছেন,শিক্ষক নেতার সাথে গলা মিলিয়ে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাও টাকা আত্মসাতের সাথে জড়িত নন বলে জানিয়ে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করবেন। কিন্তু জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আশার বাণী শুনিয়েছেন, তিনি অভিযুক্ত নেতা বা যেই হোক না কেন তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা ও কাশীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মহিলা অভিভাবকে লাঞ্চিত করায় সেই সেই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দিয়েছেন।

পুরো উপবৃত্তির টাকা বন্টন নিয়ে জামালগঞ্জে চলছে নয়ছয়। উপজেলার ৬টি ইউনিয়নের অধিকাংশ ইউনিনের মানুষ যখন বন্যায় আক্রান্ত, ঠিক সেই সময়ে শিক্ষা অধিদপ্তর উপবৃত্তির টাকা আত্মসাতের খেলায় মেতে উঠেছে। উপজেলার একটি দুটি শিক্ষা প্রতিষ্টানে নয় অধিকাংশ বন্টনকৃত বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষার্থীদেরকে কম দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। কোনো কোনো শিক্ষার্থীকে ১শত ,আবার কোনো কোনো শিক্ষার্থীকে ২শত টাকা করে কম দিচ্ছে, শুধু তাই নয় আবার কোনো কোনো শিক্ষার্থীর সই নিয়ে টাকা না দিয়েই বিদায় করার ঘটনা পাওয়া গেছে। কয়েকটি বিদ্যালয়ে কম দেওয়ার কারনে এলাকাবাসী প্রতিবাদের মুখে শিক্ষদের উপর বিচার শালিস করেছে এলাকাবাসী ও অভিভাবক গন।এদের মধ্যে কজন শিক্ষক ঘটনার জন্য মাফ চেয়ে টাকা ফেরত দিয়েছে। আবার কোনো কোনো শিক্ষক উপজেলা কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে এই কার্যক্রম জোরেশোরে চালানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

কাশীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কয়েকজন মহিলা অভিভাবক টাকা কম পেয়ে প্রতিবাদ করেন। এ সময় মহিলা অভিভাবকদেরকে প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয় থেকে বের করে দিলে ফুঁসে ওঠেন।

কাশীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা ২৬৪ জন হলেও ২৬৮ জনকে উপবৃত্তি প্রদান করার কথা প্রধান শিক্ষক নিজেই জানিয়েছেন। টাকা কম দেওয়ায় একাধিক অভিভাবক প্রধান শিক্ষকের উপর টাকা ছুড়ে ফেলেছেন বলে শিক্ষক নিজেই স্বীকার করেছেন।

ফেনারবাক ইউনিয়নের কাশীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক মৃনাল কান্তি তালুকদার প্রত্যেক ছাত্রছাত্রীদেরকে উপবৃত্তির টাকা কম দেওয়ায় ২জন মহিলা অভিভাবক এর প্রতিবাদ জানান। কেন টাকা কম দিয়েছেন জানতে চাইলে প্রথমে বের করে দেন পরে তাদেরকে লাঞ্ছিত করেন।
ভীমখালী ইউনিয়নের জাল্লাবাজ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে টাকা বন্টন নিয়ে গ্রামবাসী, কমিটি আর শিক্ষকরা দ্বন্ধে জড়িয়ে পড়েন। টাকা বন্টনের অনিয়মের ঘটনায় বিচার শালিসে প্রধান শিক্ষক ঘটনায় অনুতপ্ত হয়ে গ্রামবাসীর কাছে চেয়েছেন ।

ভীমখালীর নোয়াগাও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সাচনার শেরমস্তপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,বেহেলীর আছানপুর,মাহমুদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদেরকে জামালগঞ্জ ডেকে এনে উপবৃত্তির টাকা প্রদান করেছেন ব্যাংক ব্যবস্থাপক সহ অন্যান্য সংশ্লিষ্টরা।
লক্ষীপুরে গ্রামের অভিভাবক ফুলতারা জানান, আমার দুই মেয়ে কাশীপুর স্কুলে পড়ে,আমার কাছ থাইক্কা হেড স্যার বাবু (মৃনাল) একদিন আগে দস্তখত নেন। আর কাল সন্ধ্যার পর যেতে বলেন। পরদিন গেলে আমার ২ মেয়েকে ১২শ’ টাকা দেন। এভাবে প্রত্যেককে ৩শ’ থেকে ৫শ’ টাকা করে কম দিয়েছেন। আমরা জানতে চাইলে আমাদেরকে বের করে দেন প্রধান শিক্ষক।

অভিযুক্ত কাশীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মৃনাল কান্তি তালুকদার জানান, আমি টাকা টুকা আত্মসাৎ করিনি, কোনো মহিলাকে রাতে স্কুলে আসতে বলিনি, কারো সাথে খারাপ আচরণ করিনি। আমি আগের দিন মহিলাদের কাছ থেকে দস্তখত নিলেও টাকা কম দিইনী।
জামালগঞ্জ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. নূরুল আলম ভুইয়া বলেন,উপবৃত্তির টাকা আত্মসাতের বিষয় সহ যে শিক্ষক মহিলা অভিভাবকদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেছে তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

এই বিষয়ে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. হজরত আলী বলেন, উপবৃত্তির টাকা কম দেওয়ার কথা নয়,তার উপর যদি মহিলা অভিভাবকদের সাথে যদি অসৌজন্যমূলক আচরণ করে থাকেন, সে শিক্ষক নেতা আর যেই হোক, তাকে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। তার বিরুদ্ধে অবশ্যই বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: