সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ৫৯ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

পাথর রাজ্যে পাথরের সংকট

Jaflong daily sylhetএম আর সরকার, গোয়াইনঘাট::
বাংলাদেশের প্রায় অধিকাংশ জেলাতেই হচ্ছে ভারি বর্ষণ। এর ব্যতিক্রম দেখা যায়নি উত্তর সিলেটের সীমান্ত এলাকা গোয়াইনঘাট উপজেলাতেও। মূষলধারে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি, চারদিকে অথৈ পানি। রাস্তাঘাটের কোথাও যেনো পা ফেলারও ঠাঁই নেই। আষাঢ় শেষে শ্রাবণের শুরুতেই বর্ষার আগমন ঘটেছে সিলেট জুড়েই।

চারপাশেই অবেলা বর্ষার ছোয়া আর অবিরাম বৃষ্টির কারণে এক ধরনের ভোগান্তিতে রয়েছেন উপজেলার কয়েক হাজার মানুষ। মেঘালয় পাহাড়ি ঢল আর অবিরাম বৃষ্টিতে রাস্তাঘাট, নদ-নদী, হাওর ও বিলের চার পাশে দেখা দিয়েছে প্রচন্ড জলাবদ্ধতা। যেন দুর্ভিক্ষের করাল গ্রাসের মতোই অতিবাহীত করতে হচ্ছে জনজীবন। হাট বাজারের ক্রেতাদের শূণ্যতায় ব্যাবসায়ীরা রয়েছেন চরম বিপাকে। এদিকে ঈদুল ফিতরের পর থেকেই টানা বর্ষণ আর পাহাড়ী ঢলে প্লাবিত হয়েছে উপজেলার বিভিন্ন নিম্মাঞ্চল।

এতে করে ঘর থেকে বাহির না হতে পারায় মানবেতর জীবন যাপন করছেন কর্মরত প্রায় অর্ধলক্ষাধিক শ্রমিক ও ব্যবসায়ীরা। দেশের বৃহত্তম দু’টি পাথর কোয়ারী বিছনাকান্দি ও জাফলংয়ের পিয়াইন নদীতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় শ্রমিক ও ব্যবসায়ীদের কর্মজীবনে ঘটছে চরম উৎকন্ঠা। অন্য দিকে নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় দেশের বৃহত্তম দুটি পাথর কোয়ারির কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে, এতে করে জাফলং-বিছনাকান্দি পাথর রাজ্যে পাথরের সংকট দেখা দিয়েছে। এবং বন্ধ হয়ে পরেছে আরোও প্রায় অর্ধ শতাধিক ক্রাশার মেশিন। এসব আমদানী-রপ্তানী বন্ধ হওয়ায় রাজস্ব আয়ে ক্ষতির সম্মুখিন হবে বলে ধারণা করছেন এখানকার সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ।

পাথর কোয়ারীতে পাথরের উত্তোলন না করতে পারায় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে সাধারণ শ্রমিক ও ব্যাবসায়ীদের। পাথর শ্রমিক আব্দুল জলিল বলেন, গত কয়েক দিনের টানা বর্ষণ আর পাহাড়ী ঢলের কারনে জাফলংয়ে কোন কাজ না থাকায় আমাদের মতো শ্রমিকদের খুব কষ্টে দিন কাটাতে হচ্ছে। পরিবার পরিজন নিয়ে পড়েছি মহা বিপদে। মাইনউদ্দিন মিয়া, সুমন মিয়া, সবুজ মিয়া,আব্দুল সালামসহ বেশ ক’জন পাথর শ্রমিক বলেন, কি কমু ভাই? কাম কাজ যে নাই হেইডা তো আফনেরা দেকতাছইন, কাম কাজ না থাকায় আমাদের মতো সাধারণ দিন মজুররা উপোষ হয়ে দিন কাটাচ্ছি। জাফলং পাথর শ্রমিক বহুমুখি সমবায় সমিতির সভাপতি আব্দুস শহিদ বলেন, জাফলংয়ের পিয়াইন নদীতে পানি বাড়ায় এ সমিতির সাথে সংযুক্ত প্রায় বিশ হাজার শ্রমিক কর্মহীনতায় আছেন।

জাফলং ট্রাক চালক সমিতির সভাপতি মোঃ উস্তার মিয়া জানান, দীর্ঘ দিনের টানা বর্ষণে নদী থেকে পাথর উত্তোলন না হওয়ায় লোড-আনলোডের সাথে জড়িত থাকা প্রায় দুই হাজার শ্রমিক বেকার রয়েছে।

এ বিষয়ে জাফলং মিল মালিক সমিতির সভাপতি মোঃ বাবলু বখত বলেন, ঈদের পর থেকেই গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি আর পাহাড়ী ঢলে চারিদিকেই জলাবদ্ধতায় নদীর উত্তোলিত পাথর না পাওয়ায় আমাদের ৫’শ ক্রাশার মেশিন বন্ধ থাকার কারণে প্রায় ত্রিশ হাজার শ্রমিক বেকার রয়েছেন বলে তিনি জানান।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: