সর্বশেষ আপডেট : ২ ঘন্টা আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সুনামগঞ্জের নিন্মাঞ্চলের অর্ধশতাধিক কমিউনিটি ক্লিনিক পানি বন্দী

de4fd678-4c51-4fa2-b99e-934e8534c259সুনামগঞ্জ সংবাদদাতা:
প্রবল বৃষ্টিপাত ও পাহাড়ী ঢলে সুনামগঞ্জে বন্যা শুরু হওয়ায় গত দুই সপ্তাহ ধরে জেলা সদর সহ নিন্মাঞ্চলে অবস্থিত কমিউনিটি ক্লিনিক গুলো কার্যত অচল হয়ে পড়েছে। ক্লিনিকের সামনের রাস্তা-ঘাট বন্যার পানিতে ডুবে যাওয়ায় এ অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়। ফলে চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে হাজার হাজার অসহায় বন্যার্ত জনসাধারন। জেলার হাওরাঞ্চলে পানি বৃদ্ধি পাওয়ার কারনে পানিবাহিত রোগের লক্ষণও দেখা দিয়েছে বলে জানান সচেতন এলাকাবাসী।

জানা যায়,জেলার তাহিরপুর,জামালগঞ্জ,বিশ্বাম্ভরপুর,দিরাই,শাল্লা,ধর্মপাশা,মধ্যনগর,ছাতক,দোয়ারা বাজার সহ ১১টি উপজেলায় ২১৮টি কমিউনিটি ক্লিনিক রয়েছে। চালুর অপেক্ষায় আছে আরো ২০টি। এর মধ্যে বিভিন্ন উপজেলার অর্ধশতাধিক কমিউনিটি ক্লিনিক ও গ্রামীন সড়কের রাস্তা বর্তমানে পানিতে ডুবে গেছে। ক্লিনিকগুলো পানিবন্দী থাকায় রোগীরা যেমন ক্লিনিকে যেতে পারছে না,তেমনি সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারাও ক্লিনিকে যেতে না পারায় সাধারন মানুষকে কাঙ্কিত সেবা দিতে পারছেনা। ক্লিনিকগুলো মান্ধাতার আমলের মতই দায়সারাভাবে মুল সড়ক থেকে ৩০-৪০ ফুট দূরে ও নিচু স্থানে সংযোগ বিচ্ছিন্নভাবে তৈরী করার কারনে বর্ষার সময় বেশি ভোগান্তি পোহাতে হয় হাওরাঞ্চলের মানুষকে। তাছাড়া গ্রামীন সড়কগুলো পাহাড়ী ঢলের পানিতে ভেঙ্গে ও ডুবে যাওয়ায় স্থানীয়রা কমিউনিটি ক্লিনিক সহ উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যেতে পারছেন না। আরো জানা যায়,সদর উপজেলার রঙ্গারচর,মদনপুর,মনোহরপুর.তাহিরপুর উপজেলার দক্ষিনকুল,মোযাজ্জেমপুর,মিয়াচর সহ বিভিন্ন উপজেলার নিন্মাঞ্চলে অবস্থিত কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোর রাস্তা পানিতে ডুবে গেছে। দূর্যোগ মোকাবিলায় এসব ক্লিনিকের কর্মরত সিএইসসিপি (কমিউনিটি হেলথকেয়ার প্রোভাইডার) দের সব রকমের প্রস্তুত থাকার জন্য বলা হয়েছে। স্বাস্থ্য বিভাগ প্রতিটি ক্লিনিকে দূর্যোগ প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় ঔষধ সরবরাহ করেছে। স্থানীয় এলাকাবাসীরা জানান,কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোর রাস্তা মুল সড়ক থেকে নিচু,সেই সাথে সংযোগ সড়ক না থাকায় বর্ষায় চরম ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে আমাদের। চিকিৎসা সেবা নিতে পারছি না আমরা। তাহিরপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন বলেন,আমার উপজেলার বেশির ভাগ বাড়ি-ঘর পাহাড়ী ঢলের পানিতে ডুবে গেছে। কিছু কিছু কমিউনিটি ক্লিনিক পানিবন্দী রয়েছে সবার খোঁজ খবর রাখছি। কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোর সংযোগ সড়ক আরো উচু করা প্রয়োজন। তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল জানান,বন্যা কবলিত এলাকা গুলোর বিষয়ে খোঁজ খবর রাখছি। দূর্যোগ মোকাবেলায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। সুনামগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ আব্দুল হাকিম বলেন,পাহাড়ী ঢলে জেলার কিছু কিছু কমিউনিটি ক্লিনিক গুলোর রাস্তা পানিতে ডুবে গেছে। তারপরও ক্লিনিকের কর্মরর্তা সিএইসসিপি (কমিউনিটি হেলথকেয়ার প্রোভাইডার) দেরকে র্সাবক্ষনিকভাবে দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রস্তুত থাকার জন্য বলা হয়েছে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: