সর্বশেষ আপডেট : ২৮ মিনিট ৩৭ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

জার্মানির বারে আত্মঘাতী হামলাকারী কে এই যুবক?

148006_1আন্তর্জাতিক ডেস্ক: জার্মানির দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর নুরেমবার্গের কাছে আনজবাকের একটি বারে বিস্ফোরণে নিহত যুবক সিরিয় নাগরিক। দুই বছর আগে সে জামার্নিতে প্রবেশ করে আশ্রয় প্রার্থনা করে আবেদন করেছিল। জার্মান কর্তৃপক্ষ গত বছর তার আবেদন খারিজ করে সাময়িকভাবে জার্মানিতে বসবাসের অনুমতি দিয়েছিল। খবর ডয়েসে ভেলে।

জার্মান পুলিশের মুখপাত্র বলছে, নিহত যুবক মানসিকভাবে বিকারগ্রস্ত ছিল। এর আগেও সে দুইবার আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিল। সে একাধিকবার মনোরোগ বিশেষজ্ঞের কাছ থেকে চিকিৎসাও নেয়।

সোমবার সকালে পুলিশের দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়, তাদের জানা সর্বশেষ তথ্য মতে- বিস্ফোরণে দায়ে অভিযুক্ত ব্যক্তিই নিহত হয়েছে। রবিবার স্থানীয় রাতে আনজবাক শহরের ইউজেনেস ওয়াইন নামে বারে একটি সঙ্গীত উৎসব স্থলের প্রবেশদ্বারে বোমাটির বিস্ফোরণ ঘটায়। এতে নিজের বিস্ফোরিত বোমায় অভিযুক্ত যুবক ঘটনাস্থলেই নিহত হয় এবং আরো ১২ জন আহত হয়। এদের মধ্যে ৩ জনের অবস্থা গুরুতর।

ডয়েসে ভেলে স্থানীয় এক ব্যক্তির বরাত দিয়ে জানিয়েছে, হামলাকারী পিঠে ব্যাগের ভেতর বোমাটি বহন করে আনে। পরে বিস্ফোরণে তার নিজেরই মৃত্যু হয়।

ব্যাভারিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জোসিম হারমান বলেন, ২৭ বছর বয়সী ঐ ব্যক্তির কাছে কোনো প্রবেশ টিকেট ছিল না, তাই তাকে সঙ্গীত উৎসবে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি, এরপরই সে ঐ বিস্ফোরণ ঘটায়। তবে এই বিস্ফোরণের সঙ্গে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদের কোনো সম্পর্কে আছে কী না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে আমরা সেই সম্ভাবনাকে একেবারেই উড়িয়ে দিচ্ছি না।

আনজবাক সিটির মেয়র কারডা সেইডেল বলেন, শহরের ইউজেনেস ওয়াইন নামে একটি বারে জনপ্রিয় সঙ্গীত উৎসব স্থলের প্রবেশদ্বারে বোমাটির বিস্ফোরণ ঘটায়। যেখানে প্রায় ২৫০০ সমবেত হয়েছিল সঙ্গীত উৎসব উপভোগ করার জন্য। এ ঘটনার পর অনুষ্ঠানটি বাতিল করা হয়েছে। ঘটনার পরপরই সেখানে প্রায় ২০০ পুলিশ এবং ৩৫০ উদ্ধারকর্মী প্রয়োজনীন যানসহ নিয়োগ করা হয়। এভাবে উৎসবস্থল থেকে প্রায় আড়াই হাজার মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়া সম্ভব হয়েছে।

পুলিশের একজন মুখপাত্র প্রেস কনফারেন্সের মাধ্যমে জানায়, তারা বিশ্বাস করেন একজন ব্যক্তিই ওখানে এই ঘটনা ঘটিয়েছে।

ব্যাভারিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জোসিম হারমান নিশ্চিত করেন যে, এটি কোনো দুর্ঘটনা ছিল না, ইচ্ছাকৃতভাবে এই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটানো হয়েছে। মন্ত্রীর একজন মূখপাত্র সাংবাদিকদের বলেন, ঘটনার পারিপার্শ্বিক অবস্থা দেখে আমরা নিশ্চিত হয়েছি যে ইচ্ছাকৃতভাবে এই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটনো হয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জোসিম হারমান প্রেস কনফারেন্সে বলেন, সত্যিই এটা ‘ভয়ানক’। ফলে যারাই বর্তমান আশ্রয় সিস্টেমের ব্যাপারে কটুক্তি করবে কিংবা এ ধরনের কর্মকান্ডের চেষ্টা করবে তাদের কঠোর হস্তে প্রতিরোধ করা হবে।

মন্ত্রী আরো বলেন, এটা ওই যুবকের স্রেফ আত্মহত্যা, না অন্যদের হত্যার প্রচেষ্টা ছিল তা পরিস্কার নয়। ফলে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এদিকে ব্যাভারিয়া রাজ্য পুলিশ ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী যারা ভিডিও কিংবা ছবি ধারণ করেছে তাদেরকে ই-মেইলে তথ্য পাঠিয়ে তদন্ত কাজে সহযোগিতা করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে।

আনজবাক প্রসিকিউটর অফিসের এক মুখপাত্র মাইকেল স্ক্রটবারজার বলেন, হামলাকারীর উদ্দেশ্য এখনো আমাদের কাছে পরিস্কার নয়। এছাড়া এ ঘটনায় আইএস জঙ্গিদের কোনো সম্পৃক্ততা রয়েছে কি না তাও পরিস্কার নয়। ফলে বিষয়টি খতিয়ে দেয়া হচ্ছে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: