সর্বশেষ আপডেট : ৭ মিনিট ৪৫ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

স্বামীর নির্মম নির্যাতনের বর্ণনা দিলেন সেই তাসফিয়া

image-5152 copyনিউজ ডেস্ক:
রাজশাহী মহানগরীর ডিঙ্গাডোবায় স্বামীর নির্মম নির্যাতনের শিকার রিফাহ তাসফিয়া আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন।

রোববার দুপুরে তাসফিয়াকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতাল থেকে একটি অ্যাম্বুলেন্সে আদালতে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর তিনি রাজশাহী মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের আদালত-১ এ স্বামীর নির্মম নির্যাতনের বর্ণনা দেন।

ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মোকসেদা আসগার তার জবানবন্দি গ্রহণ করেন। আদালতে তাসফিয়ার সঙ্গে তার মা হোসনে আরা পারভীন, চাচা মীর আবু সাঈদ শিমুল ও মামা ফজলে রাব্বীসহ আরো কয়েকজন নিকটাত্মীয় এসেছেন।

জবানবন্দি শেষে তাসফিয়ার আইনজীবী জানান, তিনি তার জীবনে এমন নির্মম নির্যাতনের ঘটনা আর দেখেননি। নির্যাতন কেন হয়েছে, কীভাবে হয়েছে এবং এর সঙ্গে কারা কারা জড়িত সেসব বিষয় জবানবন্দিতে আদালতকে জানিয়েছেন তাসফিয়া।

তাসফিয়ার মা হোসনে আরা পারভীন জানান, বিয়ের পর তাসফিয়ার সুখের কথা চিন্তা করে তার স্বামীকে তারা দেড় লাখ টাকা দিয়েছেন। কিন্তু আরো ৫০ হাজার টাকা যৌতুকের দাবিতে তাসফিয়ার ওপর নির্যাতন চালাতেন স্বামী সোহাগসহ তার শ্বশুরবাড়ির লোকজন। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১১ জুলাই লাঠি, লোহার রড ও পাইপ দিয়ে তাসফিয়াকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে স্বামী সোহাগ, তার মা জাহানারা বেগম সুজি (৫০), বাবা ফজলুল হক (৫৬), ভাই ফয়সাল (৩০) ও সজীব (২৮)।

তাসফিয়ার মা আরো জানান, আহত অবস্থায় ওই দিন তাসফিয়াকে উদ্ধার করে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে জানতে পারেন তার মেয়ের দুই হাত ও পা ভেঙ্গে গেছে। বুকের ও পাঁজরের দুটি হাড়ও ফেটে গেছে। মাথায় সেলাই লেগেছে ১৬টি। পরে ওই দিন রাতেই এ ঘটনায় পাঁচজনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন তিনি। পরে পুলিশ সোহাগকে গ্রেফতার করে। তখন থেকেই সোহাগ কারাগারে। তবে মামলার অন্য আসামিরা আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন নিয়েছেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রাজপাড়া সদর থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাহবুবুর রহমান বলেন, আদালতের আদেশে রিফাহ তাসফিয়া নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ২২ ধারা মতে জবানবন্দি দিয়েছেন। গত ১১ জুলাই থেকেই তিনি রামেক হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস (ওসিসি) বিভাগে চিকিৎসাধীন ছিলেন। রোববার দুপুরে তাকে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। এর পরই তাকে অ্যাম্বুলেন্সে আদালতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তিনি জবানবন্দি দেন।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: