সর্বশেষ আপডেট : ৫৫ মিনিট ৩১ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বাবার স্বপ্ন পূরণে আমেরিকা থেকে ঢাকায় তিন বোন

23800_s2ডেইলি সিলেট ডেস্ক:
২৫ বছর ধরে আমেরিকায় বসবাস করছেন মিজানুর রহমান। কাগজপত্র তৈরি না হওয়াতে দীর্ঘ সময়ে দেশে আসতে পারেননি। আসতে না পারলেও দেশের প্রতি একটুও ভালোবাসা কমেনি তার। ওই ভালোবাসা থেকেই চার মেয়েকে ফুটবলার বানিয়েছেন। স্বপ্ন দেখছেন তার চার মেয়েকেই একদিন লাল সবুজের জার্সি গায়ে প্রতিনিধিত্ব করাবেন। বাবার স্বপ্ন পূরণেই গেল বছর ঢাকা এসেছিলেন বড় মেয়ে মিয়ামি রহমান। ইন্দো-বাংলা গেমস স্থগিত হওয়ায় সেবার মহিলা জাতীয় দলের হয়ে খেলা স্বপ্ন পূরণ হয়নি তার। নিজে না পারলে কি হবে? মিয়ামি এবার বাবার স্বপ্ন পূরণে সঙ্গে নিয়ে এসেছেন ছোট তিন বোন ম্যালেনি, ম্যালেনিয়া ও ম্যালেনিয়ামকে। বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৬ মহিলা দলে খেলার স্বপ্ন নিয়ে ঢাকায় এসেছে এরা।

আগস্টের শেষের দিকে ঢাকায় বসবে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়ন শিপের বাছাইপর্ব। এক মাসের অধিক সময় ধরে চলছে বাছাইপর্বের প্রস্তুতি। এই প্রস্তুতিতে যমজ তিন বোন যোগ দেয়ায় নতুন মাত্রা পেয়েছে বলে দাবি করলেন বাফুফের মহিলা উইংয়ের চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরন। তার মতে, এরা তিনজনই আমেরিকায় পেশাদার ফুটবলে খেলে থাকে। স্কিলও অনেক ভালো। ওরা আসাতে মার্জিয়া, তোহুরাদের নিয়ে গড়া দল আরো শক্তিশালী হবে। ওদের বাবা মিজানুর রহমানের আগ্রহেই ওরা ঢাকা এসেছে।

গতকালের অনুশীলনে নিজেদের সামর্থ্যের প্রমাণও দিলেন ম্যালেনি, ম্যালেনিয়া ও ম্যালেনিয়াম। তিন বোনের মধ্যে ম্যালেনি অপরূপা রহমান খেলেন মাঝমাঠে। ম্যালেনিয়া অপরূপা রহমান স্ট্রাইকার অপর বোন ম্যালেনিয়াম অপরূপা রহমান খেলেন ডিফেন্সে। এর মধ্যে ম্যালেনিয়া দুটি গোলও করেছেন গতকালের প্রস্তুতি ম্যাচে। তবে প্রথম দিনের অনুশীলন দেখে এখনই এদের সম্পর্কে কিছু বলতে চান না কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন। বড় বোন মিয়ামির মতে, বাবার স্বপ্ন থেকেই তারা চার বোন ফুটবল খেলছেন। তার বাবার ইচ্ছা লাল সবুজের জার্সি গায়ে তারা চার বোন একসঙ্গে মাঠে নামবে। ছোট বোনদের সম্পর্কে মিয়ামি বলেন, ‘আমার মনে হয় ওরা ফাইনাল স্কোয়াডে সুযোগ পাবে। কারণ ওরা অনেক ভালো ফুটবল খেলে। কম্পেয়ার করলে ওদের স্কিল অনেক হাই। কারণ তারা বছরজুড়েই খেলে। কোনো ব্রেক দেয় না। দেখলেই বুঝতে পারবেন।’ মাত্র দু’দিন আগে বোনদের নিয়ে ঢাকা এসেছেন মিয়ামি। মুন্সীগঞ্জে স্থায়ী নিবাস হলেও আপাতত গ্রিন রোডে চাচা টিপু সুলতানের বাসায় উঠেছেন চার বোন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: