সর্বশেষ আপডেট : ৫ মিনিট ৪৪ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সুরমার পানি বিপদসীমার ৯০ সেন্টিমিটার ওপরে, বন্যার আশঙ্কা

sunamganj20160721115935সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি::
টানা বৃষ্টিপাত ও পাহাড়ি ঢলে জেলার নদ-নদী ভরাট হয়ে কূল উপচে পানি নি¤œাঞ্চলে ঢুকায় জেলায় বন্যার আশংকা দেখা দিয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকাল ৩ টায় সুরমা নদীর সুনামগঞ্জ পয়েন্টে পানি বিপৎসীমার ৯০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এই মৌসুমে সুরমা নদীতে এটিই সর্বোচ্চ পানি।

শহরের নদীরপার এলাকায় জগন্নাথবাড়ি রোড, কিচেন মার্কেট, জেলরোড, পুলিশ ফাঁড়ি ও লঞ্চঘাট এলাকা, বড়পাড়া, তেঘরিয়া, পুরানপাড়া, সাহেববাড়ির সেলুঘাট, আরপিননগর ও পশ্চিমবাজার এলাকার সড়ক, চান্দিঘাট, ওয়েজখালী, মল্লিকপুর, হাসনবসত, কালীপুর, গণিপুর, উকিলপাড়া, কাজির পয়েন্ট, ষোলঘর, ধোপাখালি, হাছননগর, নতুনহাছননগর, হাসনবাহার, পাঠানবাড়ি এবং নবীনগর ও আশপাশের এলাকায় পানি ওঠেছে।

এছাড়াও শহরতলীর ইব্রাহীমপুর ও পূর্ব ইব্রাহীমপুর, সদরগড়, জগন্নাথপুর, মইনপুর, হালুয়ারগাঁও, রহমতপুর, ইয়াছিনপুর গ্রামের বিভিন্ন নিচু এলাকার ঘরবাড়িতে পানি ওঠেছে। স্থানীয়রা জানিয়েছেন বৃষ্টিপাত ও পাহাড়ি ঢল অব্যাহত থাকলে জেলায় বন্যার আশঙ্কা রয়েছে।

ষোলঘর এলাকার বাসিন্দা রুকন আহমদ বলেন, ‘দিনে ও রাতের ভারী বর্ষণে এবং পাহাড়ি ঢলে সুরমা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে শহরের বিভিন্ন স্থানের নিচু এলাকা তলিয়ে গেছে।’

আরপিননগর এলাকার বাসিন্দা সাজু আহমদ বলেন, ‘আমাদের এলাকায় রাস্তাঘাট তলিয়ে গেছে। পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। এভাবে পানি বৃদ্ধি পেলে ঘর বাড়ি পানিতে তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা হচ্ছে’।

এছাড়া, দোয়ারাবাজার, বিশ্বম্ভরপুর, জামালগঞ্জ ও তাহিরপুরের নিম্নাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। চলাচলের অনেক সড়ক ডুবে গেছে। সুনামগঞ্জ-বিশ্বম্ভরপুর ও তাহিরপুর সড়কের অনেক অংশ ডুবে সরাসরি যান চলাচল বন্ধ হয়ে পড়েছে।

পাউবো’র নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আফছর উদ্দিন বলেছেন, লাগাতার বৃষ্টিপাত, পাহাড়ি ঢল এবং ভারতের বরাক উপত্যকায় পানি বাড়ায় সুনামগঞ্জের সুরমা নদীসহ অন্যান্য নদীতে পানি আশংকাজনকভাবে বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সুরমা নদীর সুনামগঞ্জ পয়েন্টে প্রায় ৪০ সেন্টিমিটার বেড়ে ৯০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ২৪ ঘণ্টায় ১২৭ মিলি মিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক শেখ রফিকুল ইসলাম সকালে জেলার দোয়ারাবাজারের বন্যা পরিস্থিতি দেখতে গেছেন। মুঠোফোনে তিনি জানান, সুনামগঞ্জে বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত যে পানি হয়েছে, এটাকে দুর্যোগ বলা যাবে না। তবে বন্যা হলে মোকাবেলার প্রস্তুতি রয়েছে আমাদের, সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার জন্য সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা ডাকা হয়েছে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: