সর্বশেষ আপডেট : ৮ মিনিট ৩৪ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বন্যার কবলে বিশ্বম্ভরপুর, পানিবন্দি শতাধিক গ্রাম

bonna daily sylhetবিশ্বম্ভরপুর প্রতিনিধি::
পাহাড়ি ঢল ও প্রবল বর্ষণে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় বন্যার সৃষ্টি হয়েছে। গত ২ দিনের বৃষ্টিপাত ও পাহাড়ি ঢলে উপজেলার পলাশ, ফতেপুর, বাদাঘাট দক্ষিণ. সলুকাবাদ ধনপুর ইউনিয়নের প্রায় ৭ হাজার পরিবার বন্যা কবলিত হয়ে পড়েছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে প্রায় শতাধিক গ্রাম।

সম্প্রতি আগাম বন্যায় বুরো ফসল হারানো পর আবার নতুন করে বন্যার কবলে পড়েন এ উপজেলার কৃষকরা।

বৃহষ্পতিবার সুরমা নদীর পানি বিপদ সীমার ৬৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় ২৭ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

উপজেলা কৃষি বিভাগ জানায়, উপজেলায় প্রায় ৫০ হেক্টর রোপা আমনের বীজ তলা নষ্ঠ হয়ে গেছে। এছাড়া প্রায় ২৫ হেক্টর আউস, প্রায় ৩০ হেক্টর বর্ষাকালীণ সবজি ক্ষেত বিনষ্ঠ হয়েছে।

বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জিএম ওয়ালিউল ইসলাম জানান- অর্ধ শতাধিক গ্রামের মানুষ পানিবন্দি অবস্থায় রয়েছেন। এছাড়া শতাধিক কাঁচা ঘর-বাড়ি ভেঙে পড়েছে।

উপজেলা প্রকৌশলী ফজলুর রহমান জানান- এলজিইডির উপজেলার শক্তিয়ারখলা পাকা সড়ক,বিশ্বম্ভরপুর-কারেন্টের বাজার পাকা সড়ক, বাঘমারা-সোনাপুর পাকা সড়ক, জনতাবাজার-পলাশ পাকা সড়ক, বিশ্বম্ভরপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় সড়ক, বিশ্বম্ভরপুর সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয় সড়ক, মাছিমপুর-স্বরূপগঞ্জ পাকা সড়ক মিয়ারচর পাকা সড়ক সহ বিভিন্ন কাঁচা-পাকা সড়ক পানির নিচে ডুবে যাওয়ায় যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন এলাকার মানুষ।

এছাড়া অসংখ্য পশু পাখি মারা গেছে। ভেসে গেছে পুকুরের মাছ। পলাশ-ফতেপুর ও বাদাঘাট দক্ষিণ ইউনিয়ন ঘুরে দেখা যায়, প্রায় প্রতিটি বাড়ির আঙ্গিনায় পানি প্রবেশ করেছে, পরিবারের লোকজন গবাদি পশু নিয়ে এক সঙ্গে বসবাস করছেন। অনেকে নৌকায় করে দূর থেকে বিশুদ্ধ পানি সংগ্রহ করছেন। রান্না ঘরের চুলায় পানি উঠায় রান্না কাজে বিঘ্ন ঘটছে। ফতেপুর ইউপি চেয়ারম্যান রনজিত চৌধুরী রাজন, পলাশ ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাইয়ূম জানান, তাদের ইউনিয়নে বেশি ক্ষতি হয়েছে। ধনপুর ইউপি চেযারম্যান রফিকুল ইসলাম জানান ধনপুর ইউপির সবজি ও বীজতলা সবচেয়ে বেশি ক্ষতি গ্রস্থ হয়েছে। বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত)মো.তালুত জানান উপজেলায় প্রায় ৭হাজার লোক পানি বন্দি অবস্থায় রয়েছে। শুক্রবার ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে ত্রাণ সহয়তা দেয়া হবে বলে জানান তিনি।

জেলা প্রশাসক শেখ রফিকুল ইসলাম জানান পর্যাপ্ত পরিমাণ ত্রাণ সামগ্রী মজুদ রয়েছে। চাহিদানুযায়ী ত্রাণ সহায়তা দেয়া হবে।

এদিকে বৃহম্পতিবার বেলা ৪টায় বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা প্রশাসন উপজেলা সম্মেলন কক্ষে জরুরী সভা করে বন্যা মোকাবেলায় আগাম ব্যবস্থা গ্রহন করেছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা সহকারি কমশিনার ভূমি-নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো.তালুত,বক্তব্য দেন উপজেলা চেয়ারম্যান হারুনুর রশিদ,ভাইস চেয়ারম্যান সুলেমান তালুকদার,পলাশ ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাইয়ূম,ফতেপুর ইউপি চেয়ারম্যান শামছুজ্জামান শাহ,নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান রনজিত চৌধুরী রাজন,উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা,এনজিও প্রতিনিধি ও সাংবাদিক বৃন্দ।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: