সর্বশেষ আপডেট : ২ ঘন্টা আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

‘কেলোর কীর্তি’ আমদানিতে অনিয়ম, প্রদর্শনে নিষেধাজ্ঞা

photo-1469016383নিউজ ডেস্ক : কলকাতার চলচ্চিত্র ‘কেলোর কীর্তি’ বাংলাদেশে প্রদর্শনের ব্যাপারে ছয় মাসের স্থগিতাদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে এই ছবির প্রদর্শন করা কেন অবৈধ হবে না তা জানতে চেয়ে চার সপ্তাহের জন্য রুল জারি করা হয়েছে।

ছবির প্রদর্শনী স্থগিত চেয়ে এক রিট আবেদনের শুনানি শেষে বিচারপতি জুবায়ের রহমান চৌধুরী ও বিচারপতি মো. খসরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ গতকাল মঙ্গলবার এ আদেশ দেন।

রিটকারীর পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম ও রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস। নীতিমালা অনুসরণ না করে ছবি প্রদর্শন বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে গত ১৮ জুলাই এস এফ ফিল্মসের প্রযোজক শরীফ হোসেন হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন।

এ বিষয়ে রিটকারীর আইনজীবী অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম এনটিভি অনলাইনকে বলেন, “বাংলাদেশের ছবি আমদানি ও রপ্তানির ক্ষেত্রে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় নীতিমালা ২০১৫-২০১৮ অনুযায়ী, বাংলাদেশে ভারতীয় ছবি আমদানি করতে হলে সমান সংখ্যক ছবি রপ্তানি হতে হবে। তবে এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ থেকে প্রথমে ছবি রপ্তানি করার পর আমদানি করতে হবে। এ ছাড়া বাংলাদেশ থেকে প্রথমে কোনো ছবি রপ্তানি হওয়ার পর ভারতের বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে এটি প্রদর্শন হতে হবে। বাংলাদেশের ছবি প্রদর্শিত হয়েছে মর্মে ভারতের সেন্সর বোর্ড ও ফিল্ম বোর্ডের লিখিত সনদ পাওয়ার পর আমাদের দেশে ভারতীয় ছবি আমদানি ও প্রদর্শন করা যাবে। কিন্তু ‘কেলো কীর্তি’ ছবির ক্ষেত্রে এ নীতিমালা অনুসরণ করা হয়নি।”

নুরুল ইসলাম আরো বলেন, “গত ১৯ জুন প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান আরাধনা এন্টারপ্রাইজ লিমিটেডের প্রযোজক কার্তিক দে বাংলাদেশ থেকে ‘রাজা ৪২০’ ছবি ভারতে রপ্তানি করার জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ‘নো অবজেকশন’ সনদ গ্রহণ করেন। কিন্তু এ ছবি ভারতে প্রদর্শন করা হয়েছে এ ধরনের কোনো সনদ ভারত সরকার থেকে দেওয়া হয়নি। বরং মাত্র তিনদিন পর ২২ জুন বাংলাদেশে ভারতীয় ছবি ‘কেলোর কীর্তি’ প্রদর্শনের জন্য আমদানি করা হয়। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ছবি আমদানি ও রপ্তানি নীতিমালা না মানায় হাইকোর্ট ছবি প্রদর্শন বন্ধ করে দেয়।”

আগামী ২২ জুলাই বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে ‘কেলোর কীর্তি’ ছবিটি মুক্তি দেওয়ার পরিকল্পনা ছিল ছবিটির আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান আরাধনা এন্টারপ্রাইজের। হাইকোর্টের স্থগিতাদেশের কারণে আপাতত ছবিটি নিয়ে কোনো ধরনের প্রচারণাও করা যাবে না বলে জানা গেছে।

রাজা চন্দ পরিচালিত ‘কেলোর কীর্তি’ ছবিটিতে অভিনয় করেছেন দেব, মিমি চক্রবর্তী, যীশু সেনগুপ্ত, অঙ্কুশ হাজরা, সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, নুসরাত জাহান, কৌশানী মুখোপাধ্যায়, রুদ্রনীল ঘোষ প্রমুখ। ছবিটি তামিল ‘চার্লি চ্যাপলিন’ চলচ্চিত্রের অনুকরণে বানানো হয়েছে। গত ঈদে ছবিটি কলকাতার বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছিল।

ছবির প্রদর্শনী স্থগিত প্রসঙ্গে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির মহাসচিব মুশফিকুর রহমান গুলজার এনটিভি অনলাইনে বলেন, ‘আমরা জানতে চাই, কোন ছবি কলকাতায় যাবে আর তার বিনিময়ে আমরা কোন ছবি আনব সেটি কারা ঠিক করছেন। এখানে নতুন একটা ছবির বিনিময়ে আমাদের পুরোনো একটি ছবি নেওয়া হয়েছে। দেখা যাবে যে তারা কোন প্রত্যন্ত অঞ্চলে আমাদের ছবিটি চালাবে, আর তাদের ছবি আমাদের দেশব্যাপী চালানো হবে। এতে করে আমাদের ব্যবসা নষ্ট হবে। আমাদের কালচার নষ্ট হবে। আমরা এর স্থায়ী সমাধান চাই।’

পরিচালক সমিতির সহসভাপতি সোহানুর রহমান সোহান বলেন, ‘বিনিময় করার আগে আমাদের দেশকে প্রযুক্তিগত সুবিধা দিতে হবে। যেন আমরাও তাদের মতো ছবি বানাতে পারি। বিনিময়ের মাধ্যমে তাদের ছবি আমাদের হলে চালানো হলে আমাদের ইন্ডাস্ট্রি বন্ধ হয়ে যাবে।’

একই প্রসঙ্গে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি শাকিব খান বলেন, ‘আপনি যদি বাংলাদেশে ব্যবসা করতে চান তা হলে নিয়মনীতি মেনে আসতে হবে। যৌথ প্রযোজনার ক্ষেত্রেও নিয়ম মানতে হবে। আপনারা নায়ক দেন, আমাদের দেশ থেকে নায়িকা নেন। সব বিষয়ে অর্ধেক হতে হবে। এতে করে আমরা দুই দেশই উপকৃত হব।’

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: