সর্বশেষ আপডেট : ৪ মিনিট ৫৫ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

১‌ কিলোমিটার সমুদ্র সাঁতরে মেসির সাথে দেখা!

full_1048502892_1468990781নিউজ ডেস্ক: ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর দামোদর নদী সাঁতরে পাড়ি দিয়ে মাকে দেখতে যেতেন- এ গল্প বাঙালি পাঠকের অজানা নয়। কিন্তু খেলার খবরে বিদ্যাসাগর কেন? হ্যা, বিদ্যাসাগর যে টানে মায়ের জন্য সাঁতরে নদী পাড়ি দিতেন, প্রিয় তারকার দর্শন লাভে সুলির সমুদ্রে সাঁতারও তো সে একই টানে! তবে সেই লিওনেল মেসি হতাশ করেন নি চব্বিশ বছরের স্প্যানিশ তরুণকে। তার সাথে ক্যামেরাবন্দী হওয়ার শখ তো মিটিয়েছেনই, কিছু সময় তার সঙ্গে খোশগল্পও করেছেন এই ভক্ত!

ঘটনা হলো – ছুটি কাটাতে ইবিজায় গিয়েছিলেন সুলি নামের ওই তরুণ স্প্যানিয়ার্ড। নতুন মৌসুম শুরুর আগে সেখানে অবকাশ যাপন করছেন মেসি-রোনালদোরাও। সৈকতে অলস সময় কাটাতে কাটাতেই আচমকা সুলির চোখে পড়ে যায় এক কিলোমিটার মতো দূরের আরেক সৈকতে মেসির বিলাসবহুল ইয়াটটি। দেখা মাত্রই সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন তিনি, সাঁতরে যাবেন মেসিকে দেখতে। যেই ভাবা সেই কাজ, সাথের মোবাইলখানা পলিব্যাগে মুড়িয়ে কোমরে বেঁধে নেমে পড়েন সমুদ্রে।

বোটের কাছাকাছি পৌঁছতেই মেসির নজরে আসেন সুলি। অচেনা আগন্তুককে সাঁতরে আসতে দেখে আড়ালে চলে যাওয়াটাই হয়তো স্বাভাবিক ছিল। মেসি অবশ্য উল্টো বেশ আগ্রহ নিয়েই ডেকের রেলিংয়ে ভর দিয়ে দাঁড়িয়ে রইলেন। একরকম অভ্যর্থনা দিয়েই ইয়টে তুলে নিলেন তরুণ দর্শনার্থীকে।

সুলি সাঁতরে সেখানে পৌছাতে গিয়ে মোবাইল ফোনটা কখন পানিতে ডুবে হারিয়ে গেছে জানা নেই। সেটা প্লাস্টিকের ব্যাগে মোড়া ছিল। ১ কিলোমিটার সাঁতরে তাকে পৌঁছতে হবে সেই ইয়টের কাছে যে ইয়টে আছেন লিওনেল মেসি। সাগরের ঢেউয়ের সাথে পাল্লা দিয়ে সাঁতরে চলেন ফুটবল ভক্ত।

কারো কারো কাছে এটা পাগলামি মনে হলেও যখন মেসির সাথে একটি ছবি তুলে ফেলেন, তখন সব কষ্ট ভুলে যান সুলি। এই ফুটবল ভক্ত সম্প্রতি সাগরে সাঁতরেই মেসির সাথে দেখা করে ইয়টে বসে একসাথে জুসও পান করে এলেন।

তার এই দৃঢ়চেতা মানসিকতা দেখে অবজ্ঞা করতে পারেননি মেসি। সুলিকে ইয়টে তুলে নিয়েছেন। একসাথে সময় কাটিয়েছেন। মেসিতে দুর থেকে মুগ্ধ ছিলেন সুলি। এবার কাছ থেকে দেখে বেড়েছে মুগ্ধতা, “আমি ফোনটা হারিয়ে ফেলেছি। কিন্তু মেসির সাথে একটা ছবি পেয়েছি। তিনি যেভাবে আমার সাথে মিশলেন, কথা বললেন তাতে তাকে বিশ্বের বড় তারকা লাগেনি। খুব বিনয়ী ও অতিথি পরায়ন ছিলেন তিনি।”

এরপর বিদায়ের প্রহর আসে। মেসি বললেন, তিনি তার স্পিড বোট দিচ্ছেন। তাতে করে ফিরে যাক সুলি। ফুটবল পাগল ভক্ত তা শুনলেন না। যেভাবে এসেছিলেন, সেভাবেই ফিরে গেছেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: