সর্বশেষ আপডেট : ৫ ঘন্টা আগে
মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সুইডেনে রবীন্দ্র সংগীত চর্চায় একদল সুইডিশ: সাথে আছেন সিলেটের মনজুর কাদের

Rabindra team1 (1)মারুফ হাসান ::
সুইডেনে দীর্ঘদিন থেকে রবীন্দ্র সংগীতের চর্চা করে আসছেন একদল সুইডিশ নাগরিক। সেই দলটিতে স্থান করে নিয়েছেন সিলেটের মনজুর কাদের। দলটির নাম ‘International Tagore Choir in Lund’, Sweden’ । ভারতীয় বংশদ্ভূত সংগীতশিল্পী বুবু মুন্সি একলুন্দ (Bubu Munshi Eklund)-এর নিজ হাতে গড়া এই সংগীত দলটি বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে রবীন্দ্র সংগীত পরিবেশন করে খ্যাতি অর্জন করেছে। সুইডিশদের এই বাংলাকে ভালবাসার গল্প ছড়িয়ে পড়েছে সবখানে। ডেইলি সিলেটের সাথে কথা বলেন, এর বাংলাদেশী সদস্য ডা. মনজুর কাদের।

মনজুর কাদের বললেন, “ভিন্ন দেশের ভাষা, সংস্কৃতির চর্চা ও বিকাশে সুইডিশ সরকার সর্বদাই পৃষ্ঠপোষকতা করে আসছে। আমি সুইডেনে এসে দেখলাম, এখানকার স্কুলগুলোতে প্রতিটি বিদেশী অভিবাসীদের ছেলেমেয়েকে তাদের মাতৃভাষা শেখানো হয়, তাই বাঙালী পরিবারের ছেলেমেয়েরাও স্কুলগুলোতে বাংলা ভাষা শেখার সুযোগ পায়। এখন অবাক হচ্ছি এই দেখে যে, সুইডিশরা বাংলা গানেও অনুপ্রাণিত।

সংগীত দলে জড়িয়ে যাওয়া সম্পর্কে ডা. মনজুর কাদের বলেন, আমি ছোটবেলা থেকেই অনেক সংগীত অনুরাগী। এ বছর সুইডেন বাংলা বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে আমি দুটি গান পরিবেশন করি। সে সময় অনুষ্ঠানটিতে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ‘International Tagore Choir in Lund’, Sweden’ এর প্রতিষ্ঠাতা রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী বুবু মুন্সি একলুন্দ। তিনি আমার গান পছন্দ করেন এবং উনার এই রবীন্দ্র সংগীতের দলটির সাথে গান গাওয়ার আমন্ত্রণ জানান, সেই থেকেই আমি আছি এই দলটির সাথে।

সুEDIT_Rabindrateam2 (1)ইডিশদের মুখে রবীন্দ্র সংগীত শুনে অবাক হয়েছেন মনজুর কাদের। তাদের গায়কীর প্রশংসা করে তিনি বলেন, দলটিতে আমি বাংলাদেশের একজন হয়ে গান করতে পারায় গর্ব অনুভব করছি। মনজুর কাদের জানান, সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী বছর (২০১৭ সালের) জানুয়ারি মাসে আমরা ঢাকায় প্রোগ্রাম করবো। সেইসাথে আমার ইচ্ছা সুইডিশ দলটিকে সিলেট দেখাবো।

দলটি সম্পর্কে ডা. মনজুর কাদের বলেন, এই দলটির সংগীতশিল্পীদের বেশিরভাগই সুইডিশ নাগরিক। যারা ভালো ভাবে বাংলা বলতে পারেন না, বুঝেনও না। কিন্তু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরে অনুপ্রাণিত হয়ে যথাযথ সুর-তাল-লয় বজায় রেখে নিয়মিত বাংলায় রবীন্দ্রসংগীত চর্চা করে আসছেন।
রবীন্দ্র সংগীতের এই দলটির নেতৃত্ব দিচ্ছেন বুবু মুন্সি একলুন্দ। তিনি কলকাতার রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সংগীতের উপর উচ্চতর পড়াশুনা করেছেন। শান্তিনিকেতন আশ্রমিক সংঘে তিনি দীর্ঘদিন সংগীত পরিবেশন করেছেন। বুবু মুন্সি একলুন্দ বিয়ে করেছেন একজন সুইডিশ নাগরিককে এবং সুইডেনে ৩০ বছরেরও বেশী সময় থেকে বসবাস করছেন। তাঁর স্বামী লার্স একলুন্দ (Lars Eklund) এই সংগীত দলটির গায়ক এবং দলটির কার্যকরী কমিটির প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও তিনি The Swedish South Asian Studies Network (SASNET)-এ ডেপুটি ডিরেক্টর হিসেবে কাজ করছেন।

Monjur Kader২০১২ সালে ‘International Tagore Choir in Lund’, Sweden’ নামের এই সংগীত দলটি প্রতিষ্ঠা লাভ করে এবং তারপর থেকেই সুইডেন এবং সুইডেনের বাইরে দলটি নিয়মিত রবীন্দ্রসঙ্গীত পরিবেশন করে আসছে। দলটি গত ৭ই মে ১৫৫ তম রবীন্দ্রজয়ন্তী উপলক্ষ্যে সুইডেনের লুন্ড শহরে একটি রবীন্দ্রকন্সার্ট-এর আয়োজন করে। এতে তাঁরা উপস্থিত শ্রোতাদের জন্য ১০টি রবীন্দ্রসংঙ্গীত পরিবেশন করে।

এর আগে ২০১৩ সালের অক্টোবরে দলটি কলকাতায় স্টার থিয়েটারে সফলভাবে কনসার্ট সম্পন্ন করেছে। পাশাপাশি সুইডেনের অনুদানে প্রতিষ্ঠিত উড়িষ্যা রাজ্যের শকুন্তলা রিউম্যাটোলজি হাসপাতালের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দলীয় সংগীত পরিবেশন করে দলটি । ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি (আইআইটি) এবং শান্তিনিকেতনেও সংগীত পরিবেশন করে তাক লাগিয়ে দেয় দলের সদস্যরা।

সুইডিশ লোকদের রবীন্দ্রসঙ্গীত শেখার স্বপ্ন ৩০ বছর থেকে লালন করছিলেন দলটির প্রতিষ্ঠাতা বুবু মুন্সি একলুন্দ। এ বিষয়ে বুবু মুন্সি বলেন, ২০১১ সালের কথা, তখন আমি অন্য একটি সংগীত দলের সদস্য। সুইডেনে ১৫oতম রবীন্দ্রজয়ন্তী পালন উপলক্ষ্যে আমাকে একটি গান তুলে দিতে বলেন। আমি ”অন্তর মম” গানটি তুলে দেই। যার আবেদন ছিল অনেক। তারপরই আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি সম্পূর্ণরূপে রবীন্দ্রসংগীত নিবেদিত একটি স্বতন্ত্র গায়কদল তৈরী করবো। সেই সিদ্ধান্তের ফল আজেকের এই International Tagore Choir in Lund” দলটি।

দলটির এক সুইডিশ সদস্যের নাম Pernilla Garmy। ডেইলি সিলেটকে তিনি বলেন, “রবীন্দ্রসংগীত দলটিতে গাওয়া আমার জন্য একটি আনন্দদায়ক অভিজ্ঞতা। এটা একটা মনোমুগ্ধকর সংগীত চর্চার স্থান। তিনি জানান, পশ্চিমা ক্লাসিক্যাল সংগীত থেকে আলাদা ছন্দ ও সুর খুঁজে পাওয়া যায় রবীন্দ্রসংগীতে। আমি প্রতিনিয়তই বিকশিত হচ্ছি রবীন্দ্রসংগীতের মতো একটা ভিন্ন সংগীতধারা গাওয়ার মাধ্যমে।

Pernilla Garmy আরো বলেন, একটি বিদেশী ভাষায় শব্দ উচ্চারণ ও গাওযায় যেন ধ্যানমগ্ন হয়ে থাকা। নতুন শব্দ-ছন্দ আয়ত্ত করা আমার কাছে যেন প্রাচুর্য খুঁজে বেড়ানো। আমাদের গুরু বুবু মুন্সি একলুন্দ এই দলটির জন্য দুর্দান্ত সম্পদ। দলটির অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে সম্প্রীতিপূর্ণ মনোভাব আমাদের এগিয়ে যাওয়ার পথকে আরো বিকশিত করেছে।

উল্লেখ্য, সংগীত দলটির বাংলাদেশী সদস্য ডা. মনজুর কাদের হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাটের বাসিন্দা। যিনি সুইডেনে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসায় ও গবেষণায় বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করেছেন এবং বর্তমানে সুইডেনে লুন্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পার্কিনসন্স রোগ নিয়ে গবেষণা কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। মনজুর কাদের হবিগঞ্জ ও মৌলভীবাজার জেলায়  অবস্থিত Human Physiotherapy Clinic-এর প্রতিঠাতা এবং  সাবেক কনসালট্যান্ট।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: