সর্বশেষ আপডেট : ১২ মিনিট ৫৩ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বাবা-মা মেয়ে জামাই সহ পরিবার উধাও

full_1896686580_1468850553ডেইলি সিলেট ডেস্ক: রাজধানীর রামপুরা এলাকা থেকে দুই মেয়ে ও মেয়ের জামাই উধাও হয়েছেন। এরা হলেন- শিশু হাসপাতালের চিকিৎসক রোকনুজ্জামান, তার স্ত্রী নাঈমা আক্তার, বড় মেয়ে নাদিয়া, বড় মেয়ের স্বামী শিশির ও ছোট মেয়ে রামিতা রোকন।

এরমধ্যে ডা. রোকনুজ্জামান, তার স্ত্রী নাঈমা আক্তার ও ছোট মেয়ে রামিতা রোকন সহ সাতজনকে নিয়ে ইতোমধ্যে বিভিন্ন গণমাধ্যমে ফিরে আসার আহবান জানিয়ে বিজ্ঞাপন দেওয়া হচ্ছে।
গুলশানের স্পেনিশ রেস্তোরাঁ হলি আর্টিজান বেকারীতে হামলার পরপর নিখোঁজ হওয়ার খবর দিয়ে প্রথম ১০ জনের পরিবারের সদস্য ফিরে আসার আহবান জানিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে বিজ্ঞাপন দিয়েছিল। এরপর এই তালিকা আরো দীর্ঘ হতে থাকে।

পুলিশ জানিয়েছে, এরা হলেন- শিশু হাসপাতালের চিকিৎসক রোকনুজ্জামান, তার স্ত্রী নাঈমা আক্তার, তিনি পুরান ঢাকার কবি নজরুল ইসলাম কলেজের অধ্যাপক, বড় মেয়ে নাদিয়া, বড় মেয়ের স্বামী শিশির বেসরকারী বিশ^বিদ্যালয় নর্থ সাউথের ইংরেজী বিভাগের শিক্ষার্থী ও ছোট মেয়ে রামিতা রোকন ভিকারুন নেছা নুন স্কুলের শিক্ষার্থী।

পুলিশ সদর দপ্তরেরর সহকারী মহাপরিদর্শক (গোপনীয়) মো. মনিরুজ্জামান জানিয়েছিল, নিখোঁজ ব্যক্তিরদের নিয়ে কাজ করছে পুলিশ সদর দপ্তর। তবে এখনো পর্যন্ত এই তালিকা চুড়ান্ত হয়নি।

গুলশান ও শোলাকিয়ায় হামলারকারী বেশ আগেই পরিবার থেকে নিখোঁজ হয়েছিল। এদের পরিবারের সদস্যরা আগেও থানায় জিডিও করেছিল। কিন্তু সে সময়ে পুলিশ বিষয়টি গুরুত্ব দেয়নি।
র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ জানিয়েছেন, সম্পতি নিখোঁজ ব্যক্তিদের মধ্যে কেউ কেউ জঙ্গি হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে। তবে যে ১০ জন নিখোঁজ হয়েছে বলে গণমাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রচার করা হচ্ছে তাদের ফেরার ব্যাপারে কোন তথ্য জানানো হয়নি।

সোমবার রামপুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. রফিকুল ইসলাম ওই বাড়িতে গিয়েছিলেন। তিনি তার নিখোঁজদের আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে কথা বলেছেন। তবে এ ব্যাপারে থানায় কোনো জিডি (সাধারণ ডায়েরি) করা হয়নি বলেও জানান তিনি।

খিলগাঁও চৌধুরীপাড়ার ৪২২/বি নম্বর বাড়িতে বসবাস করতেন ডা. রোকনুজ্জামান পরিবার। ওই বাসার কেয়ারটেকার মো. হেলাল উদ্দিন জানান, গত ১০ রমজান ভ্রমণের উদ্দেশে সপরিবারে মালয়েশিয়া যান ডা. রোকন উদ্দিন। তবে যাওয়ার সময় তারা বলেন, যদি কোনো মুসলিম দেশ ভালো লাগে তাহলে ওখানে থেকে যাবেন। আর দেশে ফিরবেন না। তবে মালয়েশিয়া যাওয়ার আগে ডা. রোকন উদ্দিন চাকরি থেকে ইস্তফা দেন বলে জানা গেছে।

জানতে চাইলে রামপুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম বলেন, আমার কাছে যে তথ্য ছিল তা আমি বলেছি,এর থেকে বেশি কোন তথ্য আমার কাছে নেই।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: