সর্বশেষ আপডেট : ২ ঘন্টা আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সিলেটে মাজার জিয়ারতের জন্য বিশ হাজার পর্যটক আসেন শুক্র ও শনিবার

2016_01_21_12_34_17_xyIiByFKEdZrgJGo9kRI4uiXk73QrY_originalডেইলি সিলেট নিউজ :: ঢাকা টু সিলেট। প্রায় আড়াইশ’ কিলোমিটারের দূরত্ব। রাজধানী ঢাকা থেকে প্রতিদিন ছেড়ে যায় অন্তত আড়াইশ’ বাস। বাসের আসা-যাওয়া হিসেব করলে এ সংখ্যা দাঁড়ায় পাঁচশ’। আর সিলেটের মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ ও সুনামগঞ্জসহ হিসেব করলে দিনেই এ রুটে চলাচল করছে প্রায় এক হাজার বাস।

কিন্তু সরাসরি সিলেট ছাড়া অন্য তিন জেলায় ঢাকা থেকে কোনো শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত (এসি) বাস নেই। সিলেট রুটে অনেক কোম্পানির বাস চললেও মাত্র এনা পরিবহন ও গ্রিনলাইনের এসি বাস চলছে।

পর্যটনের বহু আকর্ষণ সিলেটে। হাজার হাজার পর্যটক আর তুলনামূলক দেশের অন্যান্য অঞ্চলের চেয়ে স্বচ্ছল মানুষদের চলাচল থাকলেও রুটটিতে দু’টি কোম্পানি ছাড়া আর কোনো কোম্পানির এসি বাস নেই। এর মধ্যে তিন বছর আগে লোকসান দেখিয়ে বন্ধ করে সোহাগের এসি বাস।

মহাখালী বাস টার্মিনাল থেকে সিলেটের উদ্দেশ্যে দিনে ৩টি ও সিলেট কদমতলী টার্মিনাল থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ৩টি এনা পরিবহনের বাস চলে। আর রাজারবাগ থেকে সিলেটের উদ্দেশ্যে দিনে ৬টি ও সিলেটের হুমায়ুন রশীদ চত্বর থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ৬টি গ্রিনলাইনের বাস চলে। এর বাইরে সিলেট রুটে কোনো এসি বাস নেই। আর অন্য তিন জেলায় হানিফ, শ্যামলী, ইউনিক পরিবহনের বাস চললেও তাদের এসি বাস নেই রুটটিতে।

সিলেটের পথে তাহলে বিলাসবহুল কোনো যাত্রার জন্য যাত্রীকে সড়ক পথ বাদ দিতেই হবে। এ নিয়ে হতাশ অনেক পর্যটক। এমনকি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বাসে চলাচল করে এমন অনেক যাত্রীরও উপায় থাকে না।

সোহাগ পরিবহনের মালিক ফারুক তালুকদার সোহেল জানান, লাভ হলে এসি বাস সেবা তারা বন্ধ করতেন না। লাভ নাই দেখে এ রুটে তাদের শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বাস এখন আর চলছে না।

সিলেট ছাড়া যখন পর্যটকদের সরাসরি গন্তব্য হয় চায়ের রাজধানী খ্যাত মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল। তখন সড়ক পথে গেলে বাধ্য হয়েই যেতে হবে সাধারণ বাসে। শ্রীমঙ্গল হয়ে সকাল ৬টা ২০ মিনিটে প্রথম মৌলভীবাজারের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় হানিফ এন্টারপ্রাইজের বাস। শ্যামলীর বাস চলা শুরু হয় সকাল ৮টা থেকে। এক ঘণ্টা পর পর এই দু’টো কোম্পানির বাস ঢাকার সায়েদাবাদ টার্মিনাল থেকে ছেড়ে যায় মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ এবং সুনামগঞ্জের উদ্দেশ্যে।

আর মহাখালী টার্মিনাল থেকে এনা পরিবহন এ চারজেলার উদ্দেশ্যে চলাচল শুরু করে সকাল ৬টা ১৬ মিনিট থেকে। রাত ১২টা পর্যন্ত এভাবেই ঢাকা থেকে বাস ছেড়ে যায়। বাস চলাচলের সংখ্যা এবং ছাড়ার এ সময়সূচি জানা গেছে মহাখালী ও সায়েদাবাদ বাস কাউন্টার থেকেই।

সিলেট পরিবহন মালিক সমিতির নেতা বাচ্চু রহমান জানান, দিনে অন্তত কয়েকশ’ বাস সিলেট আসে শুধু হযরত শাহজালাল ও শাহপরাণ মাজার কেন্দ্রীক। কোনো বাস খালি আসা যাওয়া করে না।

সিলেট মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স ইন্ড্রাস্ট্রির সহ সভাপতি হাসিন আহমেদ বলেন, ঢাকা থেকে সিলেটে প্রতি শুক্র ও শনিবার এই দুই দিন প্রতি দিনে বিশ হাজার পর্যটক আসেন। যারা শুধু মাজার জিয়ারত ও আশেপাশে ঘুরেন।

তার কথার সূত্র ধরেই বাস কাউন্টারে খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, এ দু’দিন যাত্রী চাহিদা বেশি বলে অনেক সময় টিকিট পাওয়া কষ্টকর হয়ে পড়ে। আগে থেকে টিকিট না করলে শুক্র ও শনিবার এনা ও গ্রিনলাইনের এসি বাসের টিকিট মেলে না।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: