সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ছাতকে প্রতিপক্ষের হামলায় ছাতকে প্রতিপক্ষের হামলায় একই পরিবারের ৫ জন আহত, আটক ১

daily-sylhet-hamla-1ছাতক প্রতিনিধিঃ
ছাতকে প্রভাবশালী কর্তৃক নীরিহ একটি পরিবার বার-বার হামলার শিকার হচ্ছে। ইসলামপুর ইউনিয়নের কুমারদানি গ্রামের ছাদিকুর রহমান ও তার পরিবারের লোকজন অসহায় হয়ে পড়েছে বলে অভিযোগ করেন ছাদিকুর রহমানের স্ত্রী জরিনা বেগম। ছাদিকুর রহমানের স্কুল পড়ুয়া মেয়ে ফাতেমা আক্তার সুমিকে(১৪)কে গত ২২এপ্রিল অপহরন করে একই গ্রামের পিয়ার আলীর পুত্র আয়ুব আলী ফকির। এ ব্যপারে ছাতক থানায় একটি অপহরন মামলা( নং-১৫) দায়ের করেন জরিনা বেগম। মামলা দায়েরের পর আয়ুব আলী ফকিরের পরিবার ও তার আত্মীয়-স্বজন কর্তৃক একাধিক হামলার শিকার হয়েছেন ছাদিকুর রহমান ও তার পরিবারের লোকজন। অনেক সময় হাট-বাজার ও রাস্তা-ঘাটে চলাফেরা করতেও এ পরিবারের লোকজনকে বাধা দেয়াসহ বিভিন্ন ধরনের হুমকি দেয়া হয়েছে। অপহরনকারী আয়ুব আলী ফকির তার মেয়েকে নিয়ে দু’ মাসের অধিক সময় দেশের বিভিন্ন এলাকায় আত্মগোপনে থেকে মেয়েকে শারিরিক ও মানষিক ভাবে নির্যাতন করেছে। পুলিশ মামলার প্রেক্ষিতে আয়ুব আলী ফকিরকে সুনামগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করে তার কবল থেকে গত ১জুলাই সুমিকে উদ্ধার করে। বর্তমানে আয়ুব আলী ফকির জেলহাজতে রয়েছে। এ অপহরন মামলায় শিয়ার আলী, সুহেল মিয়া, রহমত আলী নামের আরো ৩ আসামী জেলহাজতে রয়েছে। আয়ুব আলী ফকিরকে জেলহাজতে প্রেরনসহ মামলার ৪ আসামী হাজতে থাকায় বেপরোয়া হয়ে উঠে তাদের পরিবার ও আত্মীয়স্বজনরা। তারা আবারো ছাদিকুর রহমান ও তার পরিবারের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে হামলা করেছে। গত মঙ্গলবার বিকেলে বাড়ির পাশের দোকানের কাছে ছাদিকুর রহমানের উপর হামলা করে তেরা মিয়া, লিটন মিয়া, সদ্দাম হোসেনসহ লোকজন। এ সময় হামলায় গুরুতর আহত হন ছাদিকুর রহমান। হামলাকারীদের কবল থেকে তাকে উদ্ধারের জন্য আসা আনফর আলী, আফরুজ মিয়া, পারভেজুর রহমান রনি, জরিনা বেগমও হামলার শিকার হন। হামলায় আহতদের ছাতক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় গতকাল বুধবার একই গ্রামের জাকির মিয়া(১৯), তেরা মিয়া(৫৫), লাল মিয়া(২৫), লিটন মিয়া(৩০), বিল্লাল মিয়া(১৯), সাদ্দাম হোসেন(২৫), সুমন মিয়া(২২), আয়না মিয়া(৩৫), গেদা মিয়া(১৮), আলী হোসেন(৩০), আনর হোসেন(২৫), শুকুর মিয়া(২১), রুপন মিয়া(২০)কে আসামী করে ছাতক থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ছাদিকুর রহমান। এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে গতকাল বিকেলে কুমারদানি গ্রামের কুঠি মিয়ার পুত্র রুপন মিয়া(২০)কে আটক করেছে পুলিশ।

ছাতক প্রতিনিধিঃ
ছাতকে প্রভাবশালী কর্তৃক নীরিহ একটি পরিবার বার-বার হামলার শিকার হচ্ছে। ইসলামপুর ইউনিয়নের কুমারদানি গ্রামের ছাদিকুর রহমান ও তার পরিবারের লোকজন অসহায় হয়ে পড়েছে বলে অভিযোগ করেন ছাদিকুর রহমানের স্ত্রী জরিনা বেগম। ছাদিকুর রহমানের স্কুল পড়ুয়া মেয়ে ফাতেমা আক্তার সুমিকে(১৪)কে গত ২২এপ্রিল অপহরন করে একই গ্রামের পিয়ার আলীর পুত্র আয়ুব আলী ফকির। এ ব্যপারে ছাতক থানায় একটি অপহরন মামলা( নং-১৫) দায়ের করেন জরিনা বেগম। মামলা দায়েরের পর আয়ুব আলী ফকিরের পরিবার ও তার আত্মীয়-স্বজন কর্তৃক একাধিক হামলার শিকার হয়েছেন ছাদিকুর রহমান ও তার পরিবারের লোকজন। অনেক সময় হাট-বাজার ও রাস্তা-ঘাটে চলাফেরা করতেও এ পরিবারের লোকজনকে বাধা দেয়াসহ বিভিন্ন ধরনের হুমকি দেয়া হয়েছে। অপহরনকারী আয়ুব আলী ফকির তার মেয়েকে নিয়ে দু’ মাসের অধিক সময় দেশের বিভিন্ন এলাকায় আত্মগোপনে থেকে মেয়েকে শারিরিক ও মানষিক ভাবে নির্যাতন করেছে। পুলিশ মামলার প্রেক্ষিতে আয়ুব আলী ফকিরকে সুনামগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করে তার কবল থেকে গত ১জুলাই সুমিকে উদ্ধার করে। বর্তমানে আয়ুব আলী ফকির জেলহাজতে রয়েছে। এ অপহরন মামলায় শিয়ার আলী, সুহেল মিয়া, রহমত আলী নামের আরো ৩ আসামী জেলহাজতে রয়েছে। আয়ুব আলী ফকিরকে জেলহাজতে প্রেরনসহ মামলার ৪ আসামী হাজতে থাকায় বেপরোয়া হয়ে উঠে তাদের পরিবার ও আত্মীয়স্বজনরা। তারা আবারো ছাদিকুর রহমান ও তার পরিবারের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে হামলা করেছে। গত মঙ্গলবার বিকেলে বাড়ির পাশের দোকানের কাছে ছাদিকুর রহমানের উপর হামলা করে তেরা মিয়া, লিটন মিয়া, সদ্দাম হোসেনসহ লোকজন। এ সময় হামলায় গুরুতর আহত হন ছাদিকুর রহমান। হামলাকারীদের কবল থেকে তাকে উদ্ধারের জন্য আসা আনফর আলী, আফরুজ মিয়া, পারভেজুর রহমান রনি, জরিনা বেগমও হামলার শিকার হন। হামলায় আহতদের ছাতক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় গতকাল বুধবার একই গ্রামের জাকির মিয়া(১৯), তেরা মিয়া(৫৫), লাল মিয়া(২৫), লিটন মিয়া(৩০), বিল্লাল মিয়া(১৯), সাদ্দাম হোসেন(২৫), সুমন মিয়া(২২), আয়না মিয়া(৩৫), গেদা মিয়া(১৮), আলী হোসেন(৩০), আনর হোসেন(২৫), শুকুর মিয়া(২১), রুপন মিয়া(২০)কে আসামী করে ছাতক থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ছাদিকুর রহমান। এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে গতকাল বিকেলে কুমারদানি গ্রামের কুঠি মিয়ার পুত্র রুপন মিয়া(২০)কে আটক করেছে পুলিশ।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: