সর্বশেষ আপডেট : ৩৫ মিনিট ৪৯ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বানিয়াচংয়ে স্বামীর পরকিয়ার বলি গৃহবধু রামিনা

ww-194_20691ডেইলি সিলেট ডেস্ক:
বানিয়াচং উপজেলার ইকরাম গ্রামে গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার বিকাল ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। রামিনার পরিবারের দাবি পরকিয়া আসক্ত মোক্তাদির ২য় বিয়ে করার অনুমতি না দেয়ায় তাকে হত্যা করা হয়েছে। অপর দিকে স্বামী মোক্তাদিরের স্বজনদের দাবি রামিনা আক্তার আত্মহত্যা করেছে।

এ নিয়ে দুই পরিবারের মাঝে পরস্পরবিরোধী বক্তব্য পাওয়া গেছে। জানা যায়, ওই গ্রামের কদর আলীর পুত্র মোক্তাদির মিয়া দীর্ঘদিন পূর্বে তারই নিকটাত্মীয় ডাঃ সিদ্দিক আলীর স্কুল পড়ুয়া কন্যা খাদিজা আক্তার মিতার সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। এক পর্যায়ে বিষয়টি তার পরিবারের লোকজনের কর্ণগোচর হয়। তারা তাকে সে পথ থেকে ফেরানোর জন্য প্রায় দেড় বছর পূর্বে আজমিরীগঞ্জ উপজেলার কাকাইলছেও (মোহাম্মদপুর) গ্রামের হাজী ফতেহ উল ইসলামের কন্যা রামিনাকে বিয়ে করিয়ে ঘরে আনেন।

বিয়ের পরও মোক্তাদির গৃহবধূকে ঘরে রেখে গোপনে ওই স্কুল ছাত্রীর সাথে পরকিয়া চালিয়ে যায়। এক পর্যায়ে ঘটনাটি আচঁ করতে পারে রামিনা। স্বামীকে পরকিয়া থেকে ফেরানোর চেষ্টা করলে বার বার তার উপর নেমে আসে অমানবিক অত্যাচার নিপীড়ন। এভাবে কেটে যায় তাদের দাম্পত্য কলহের এক বছর।

এরই মধ্যে গত এক মাস পূর্বে রামিনার কোল জুড়ে আসে একটি পুত্র সন্তান। তার এ সন্তানকে লালন-পালনে সহযোগিতা করতে রামিনা পিত্রালয় থেকে তার ছোট বোন শারমিন আক্তার শ্বশুর বাড়িতে নিয়ে আসে। নিহতের ছোট বোন শারমিন জানায়, গত ২/৩ দিন যাবত সে ওই স্কুল ছাত্রীকে বিয়ে করতে রামিনার কাছে ২য় বিয়ের অনুমতি চায়। রামিনা তাতে রাজি না হওয়ায় মোক্তাদির অত্যাচারের মাত্রা আরও বাড়িয়ে দেয়। এক পর্যায়ে মোক্তাদির গতকাল মঙ্গলবার রামিনাকে হত্যা করে গলায় উড়না দিয়ে সিলিং ফ্যানের সাথে বেধে ঝুলিয়ে রাখে। পরে শারমিন তার বোনকে ফাঁসিতে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে চিৎকার করে।

এ সময় প্রতিবেশীরা চিৎকার শুনে ছুটে এসে নিহতের লাশ দেখতে পেয়ে বানিয়াচং থানা পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে বানিয়াচং থানার এস আই ওমর ফারুক মন্ডল ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখতে পান রামিনার লাশ খাটের বিছানায় শোয়ানো। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।

এ ব্যাপারে বানিয়াচং থানার অফিসার ইনচার্জ অমূল্য কুমার চৌধুরী জানান, এটা হত্যা না আত্মহত্যা ময়নাতদন্তের পূর্বে কিছুই বলা যাবেনা এবং কোন পক্ষ থেকে অভিযোগও পাওয়া যায়নি।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: