সর্বশেষ আপডেট : ৫ মিনিট ৫২ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

স্টার জলসা বন্ধের প্রসঙ্গ নিয়ে ক্ষোভের উত্তর

20182611163-550x326নিউজ ডেস্ক : সবাই সবকিছুতে বিনোদন পান না। কে কিসে বিনোদন পাবেন  সেটা নির্ভর করে তার পারিবারিক ও প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার উপর। যেমন একজন বিজ্ঞানী নতুন কিছু আবিস্কারে আনন্দ পান। বিজ্ঞান অনুরাগীরা সেই বিষয়ে পড়ে আনন্দ পান। একজন সাহিত্যিক প্রতিনিয়তই নতুন কিছু লেখার চেষ্টা করেন। সাংবাদিক নতুন সংবাদের সন্ধানে থাকেন। এটাই তাদের আনন্দ।

একটু ভাবুন তো ! একটি নাটক, যেখানে একজন মানুষ নিজের গয়না চুরি করে বা লুকিয়ে রেখে আরেকজনকে ফাঁসানোর চেষ্টা করছেন। একজন আরেকজনের ক্ষতি করার চেষ্টায় অনাবরত লেগে থাকছেন। আর এটি দেখে আপনি বিনোদনের খোরাক মিটাচ্ছেন। বছরের পর বছর নাটকের মূল বিষয়বস্তু যখন পারিবারিক কূটচাল তখন এই নাটক দেখে মানুষের মনের অবস্থা কেমন হতে পারে?

মনে আছে ! বিটিভির নাটক অয়োময়, কোথাও কেউ নেই, সংশপ্তক নাটকগুলো কেমন ছিলো। এই নাটকগুলো আমাদের তৎকালীন সমাজের দৃশ্যপট কিভাবে ফুটিয়ে তুলেছিলো।

বউ শাশুড়ির মনোমালিন্য আমাদের সমাজেও হয়। তবে স্টার জলসার মতো এতোটা প্রকটভাবে নয়। বউয়ের রান্না করা খাবারে অতিরিক্ত লবন দিয়ে বদনাম করানো আমাদের সমাজে প্রচলিত না। আমাদের দেশের সবচেয়ে ধনি পরিবারের গৃহিনীও ভারি গয়না আর মেকআপ পরে হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে থাকে না।

বিবাহ বিচ্ছেদ আমাদের সমাজেও আছে। তবে এটি একজনের জীবনে প্রতি সপ্তাহে হয় না।

এটিতেও কোন সমস্যা ছিলো না। সমস্যা হচ্ছে মানুষ যখন এইসব দেখতে দেখতে নাটকের সমস্যাগুলোর সাথে নিজের সমস্যাকে মিলিয়ে ফেলে। নিজের উপর অনেক কল্পিত সমস্যা আরোপ করে।

আমাদের এক বোন অত্যন্ত কাতর কণ্ঠে অভিযোগ করেছেন স্টার জলসা বন্ধ হলে ঘরের ভিতরে যে নারীরা থাকেন তাদের বিনোদনের কি হবে? তিনি অনেকগুলো প্রশ্ন করেছেন। বলেছেন, ‘যারা স্টার জলসা বন্ধ করার কথা বলেন তারা পর্ন সাইট বন্ধ করার জন্য উঠেপড়ে লাগছেন না কেন।

উত্তর হচ্ছে, টিভিতে কোন পর্ন চ্যানেল আমাদের দেশে দেখানো হয় না। ইন্টারনেটে বিভিন্ন পর্ন সাইট আছে যা কেউ দেখতে চাইলে একা দেখেন এবং এটা কোন ভাল কাজ নয় ভেবেই দেখেন। কিন্তু স্টার জলসার সিরিয়ালগুলো ক্ষতিকারক হলেও সেটা পরিবারের সবাই মিলেই দেখেন এবং এটা যে খারাপ সেটা সম্পর্কে অচেতন হয়েই দেখেন।

আপনি অভিযোগ করে বলেছেন, পুরুষরা সহধর্মীনিকে মানুষ বলে মনে করে না। খেলনা পুতুল মনে করে। তাদের পছন্দ অপছন্দ নিয়ে ভাবেন না।

এর উত্তরটা একটু বড়। এই সমাজটা র্দীর্ঘদিন থেকেই পুরুষ শাসিত। যুগের পর যুগ নারীরা রান্নাঘরে কাজ করতে করতে তাদের চিন্তাভাবনা এর ভিতর গেঁথে আছে। কিছু নারী এর বাইরে চিন্তাভাবনা করলেও বাকিরা এর বাইরে বের হতে পারছে না। যেই করণে স্টার জলসার কূটচাল নারীরা বেশি পছন্দ করেন। একবারও কি ভেবেছেন পুরুষদের চেয়ে নারীরাই কেন এই চ্যানেল বেশি দেখেন। নারী স্বাধীনতার এই যুগে নিজেরাই কি নিজেদের একটি ছোট্ট গন্ডিতে আবদ্ধ করে রাখছেন না?

দেশ-বিদেশ, আন্তর্জাতিক রাজনীতি, বিজ্ঞান, মহাকাশ নিয়ে আপনি একটুও ভাববেন না অথচ আশা করবেন আপনার সন্তান বড় বিজ্ঞানি হবে, বিমান চালাবে, ডাক্তার বা ইঞ্জিনিয়ার হবে। এটি কিভাবে সম্ভব? মায়ের কাছ থেকে কি কিছুই শিখবে না? একটুও অনুপ্রেরনা পাবে না?

কেউ যদি স্টার জলসা দেখতে নিষেধ করেন তাহলে তো সে রান্নাঘরের কূটচাল থেকে বের হতেই বলছেন। আপনি বলছেন, যারা চাকরি করে তাদের এগুলো দেখার সময় হয় না। সত্যি। আপনি চাকরি করেন। অন্য কিছু করেন। যদি আপনার পুরুষটি তাতে বাধা দেয় তখন তাকে গালাগাল দিয়েন। স্টার জলসার জন্য না।

সবশেষে বলবো আপনার আনন্দের জায়গাটি একটু পরিবর্তন করুন। পৃথিবীটা অনেক বড়। নারীদের পৃথিবীও এখন অনেকটা বড় হয়েছে সেখানে বিচরণ করুন।  শিল্প, সাহিত্য, ইতিহাস, উপন্যাসের বই কি ঘরে নেই। আপনি কি আপনার দেশ ও চারপাশটা সম্পর্কে খুব বেশি জানেন। আপনার সন্তান কি আপনার কাছে এগুলো শিখতে পারছে? সন্তানকি সবকিছু স্কুলেই শিখবে বলে ভাবছেন?- আমাদের সময়.কম

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: