সর্বশেষ আপডেট : ১০ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ঈদুল ফিতরের ছুটিতে কমলগঞ্জে পর্যটকদের ঢল

e2c2de5c-ee1f-496b-bd8d-145308f3abd5মো.মোস্তাফিজুর রহমান,কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) ::
ঈদুল ফিতরের টানা ছুটিতে কমলগঞ্জের পর্যটন স্পট গুলোতে ছিল পর্যটকদের উপছে পড়া ভীড়। প্রকৃতির সৌন্দর্য্যের অপার লীলা নিকেতন কমলগঞ্জের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান,পদ্মকন্যার নয়নাভিরাম মাধবপুর লেক আর ‘ঝর্ণা সুন্দরী’র হামহাম জলপ্রপাত ছিল ভ্রমণ পিপাসু দর্শনার্থীদের পদভারে মুখরীত।

কমলগঞ্জের নৈসর্গের অপরূপ সৌন্দর্য উপভোগ করতে ঈদের ছুটিতে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ছুটে আসেন ভ্রমণ পিপাসু বিভিন্ন শ্রেণী পেশার হাজার হাজার মানুষ। গতকাল শনিবারও তার ব্যতিক্রম ছিল না। মাধবপুর লেক আর লাউয়াছড়া উদ্যাণে দেখা মিলে ভ্রমন পিপাসুদের। এদের মধ্যে সব শ্রেনীর মানুষ ছিল।

পুলিশি নিরাপত্তা ছিল অন্যান্য বছরের তুলনায় বেশি। তবে গুলশানের ঘটনায় বিদেশী পর্যটকের উপস্থিত তেমন ছিল না।
কমলগঞ্জে অবস্থিত রেইন ফরেস্ট লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান। বিনোদনের অন্যতম এ স্পটটি দেশের বনাঞ্চলের মধ্যে নান্দনিক ও আকর্ষণীয়।

জীববৈচিত্যে ভরপুর লাউয়াছড়া উদ্যালে দেখা মেলে বিভিন্ন বিরল প্রজাতির প্রাণী। ১৯২৫ সালে ১২৫০ হেক্টর জায়গা জুড়ে তৈরি করা প্লান্টেশনই এখনকার গহীন অরণ্যের রূপ নিয়েছে। ৭টি বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য ও ১০টি জাতীয় উদ্যানের একটি লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান বাংলাদেশে অবশিষ্ট চিরহরিৎ বনের একটি হিসেবে টিকে আছে। ১৯৯৬ সালে এই বনকে ‘জাতীয় উদ্যান’ হিসেবে ঘোষণা করা হয়। বিলুপ্তপ্রায় উল্লুকের জন্য এ বন বিখ্যাত। পাহাড়ের উঁচু নিচু টিলায় ২টি খাসিয়া আদিবাসী পল্লী। নিরক্ষীয় অঞ্চলের চিরহরিৎ বর্ষাবন বা রেইন ফরেস্টের মতো এখানেও প্রচুর বৃষ্টিপাত হয়। পবিত্র ঈদের দিন ও ঈদের পরের দিন লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান দেখতে দেশী পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড়ে মুখরিত হয়ে উঠে। ঈদের ছুটিতে যেন মানুষের মিলন মেলায় পরিণত হয় প্রকৃতির সৌন্দর্য্যের অপার লীলা নিকেতন সবুজ বনের লাউয়াছড়া উদ্যান আর পদ্মকন্যার মাধবপুর লেকটি। উদ্যাণে বেড়াতে আসা পর্যটকদের সামাল দিতে সংশ্লিষ্টদের পাশাপাশাশি পর্যটন পুলিশ সদস্যদের হিমশিম খেতে দেখা যায় । 07be4890-d99d-4d8f-a311-5c6b4626d226

লাউয়াছড়া উদ্যানের ট্যুরিষ্ট গাইডরা জানান,লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান-এর জীব বৈচিত্র দেখতে ঈদের দিনের চেয়ে শুক্রবার ও শনিবার লোজনের উপস্থিতি ছিল অন্যান্য বছরের তুলনায় বেশি। বিগত সময়ে লাউয়াছড়ায় বিদেশীরা আসলেও এবার তেমন উপস্থিতি নেই। দুই একজন এসেছিলেন।

অপরদিকে কমলগঞ্জের মাধবপুর চা বাগানে অবস্থিত মাধবপুর লেইকে সকল শ্রেনী পেশার মানুষের উপস্থিতি ছিল লক্ষ্যনীয়। লেকের চারপাশে বিশাল টিলায় সারিবদ্ধ ছোট-বড় গাছ আর সবুজ চা গালিচার টিলার মাঝখানে জলরাশি। টলটলে রূপালী জলের সঙ্গে দিবা-নিশির মিতালি করছে নীল পদ্মফুল। জলের আলো ছায়ার নীল পদ্মের লুকোচুরি খেলা মনমুগ্ধ করে আগত পর্যটকদের। প্রকৃতি অপরূপ সাজে সেজে নিজের রূপ দিয়েই আকর্ষণীয় হয়ে উঠায় জলের পদ্ম কন্যার মায়ায় আকড়ে ধরে দেশী-বিদেশী পর্যটকদের। নয়নভিরাম এ জলারণ্য দল বেঁধে দেখতে গত বছরের তুলনায় এ বছর দেশী-বিদেশী পর্যটকদের আগমন ঘটে বলে জানান লেকের প্রধান ফটকে দায়িত্বে থাকা বাবুল সরকার। অপরদিকে কমলগঞ্জের সীমান্তবর্তী কুরমা সীমান্তের গহীন অরণ্যে অবস্থিত দেশের বৃহত্তম হামহাম জলপ্রপাত।

প্রায় ১৬০ ফুট পাহাড়ের ওপর হতে স্পটির স্বচ্ছ পানি আচড়ে পড়ছে বড় বড় পাথরের গায়ে। রাজকান্দি রিজার্ভ ফরেস্টের কুরমা বনবিটের প্রায় ৯ কি.মি. অভ্যন্তরে দৃষ্টিনন্দন এই হামহাম জলপ্রপাত। প্রায় ১০ কিলোমিটার পাহাড়ি পথ পায়ে হেটে পৌঁছাতে হয় এই ‘ঝরনা সুন্দরী’র আঙিনায়। রোমাঞ্চকর দৃষ্টিনন্দন হামহাম জলপ্রপাত একনজর দেখার জন্য দল বেঁধে পর্যটকদের ছুটতে দেখা যায় গহীন বনের ওই ঝর্ণা ধারায়। এছাড়া কমলগঞ্জের বীরশ্রেষ্ট হামিদুর রহমান স্মৃতিস্তম্ভ,উচু-নিচু টিলায় সবুজ গালিচার বিভিন্ন চা বাগান,ডবলছড়া ও মাগুরছড়া খাসিয়া পল্লী ঘিরে ঈদের ছুটিতে ছিল পর্যটকদের মিলন মেলা।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: