সর্বশেষ আপডেট : ৪ মিনিট ২১ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

গুলশান হামলা : অপারেশন থান্ডারবোল্ট-এ ‘ভুল করে’ জিম্মি হত্যা?

9f82bb548cd35c1091cb948f9217974c-577beff25229cনিউজ ডেস্ক : রাজধানীর সুরক্ষিত কূটনৈতিক এলাকা গুলশানের রেস্টুরেন্টে জঙ্গি হামলা মোকাবিলায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানে ভুল করে জিম্মি হত্যার অভিযোগ উঠেছে। পুলিশ বলছে, গুলশানে অপারেশন থান্ডারবোল্টের সময় রেস্টুরেন্টের একজন নিরীহ কর্মীকে ভুল করে হামলাকারী ভেবে গুলি করে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে। এ ঘটনার তদন্ত চলছে। মঙ্গলবার ‘দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া’র এক প্রতিবেদনে এই খবর জানানো হয়েছে।

নিরাপত্তা বাহিনীর ভুলের শিকার ওই ব্যক্তির নাম সাইফুল ইসলাম চৌকিদার (৩৯)। তিনি গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে পিজা ও পাসতা তৈরি করতেন। পুলিশের পক্ষ থেকে সন্দেহভাজন হামলাকারীদের মৃতদেহের ছবি প্রকাশ করা হলে ছবি দেখে স্বজনরা তাকে শনাক্ত করেন।

পুলিশ কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘আমাদের মনে হচ্ছে, তাকে ভুল করে হত্যা করা হয়েছে। আমরা তদন্ত করছি।’

রাতব্যাপী রেস্টুরেন্টে অবরুদ্ধ অবস্থার পর শনিবার সকালে হলি আর্টিজান বেকারিতে অভিযান চালায় নিরাপত্তা বাহিনী। এ সময় নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে নিহত হন ছয় ব্যক্তি। এর আগে রাতভর জিম্মি অবস্থায় জঙ্গিদের হাতে খুন হন ২০ জিম্মি। সন্দেহভাজন এক জঙ্গিকে গ্রেফতার করা হয়।

সাইফুল ইসলাম চৌকিদারের জ্ঞাতিভাই সোলাইমান জানান, পুলিশ কর্তৃক প্রকাশিত সন্দেহভাজন জঙ্গিদের ছবি প্রকাশের আগে তারা ভেবেছিলেন সাইফুল চৌকিদারকে উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি বলেন, আমরা এর প্রতিবাদ করেছি। আমরা বলেছি, তিনি কখনও জঙ্গি ছিলেন না। তিনি একজন কঠোর পরিশ্রমী মানুষ ছিলেন। তিনি ছিলেন বাংলাদেশের একজন সেরা পিজা ও পাসতা প্রস্তুতকারক।

সোলাইমান বলেন, আমরা সেনাবাহিনীর কাছে গিয়েছিলাম। কিন্তু তারা মৃতদেহ হস্তান্তর করেনি। তারা বলেছে, তিনি একজন সন্দেহভাজন ব্যক্তি ছিলেন।

নিহত সাইফুল ইসলাম চৌকিদারের এ স্বজন জানান, সাইফুল ইসলামের মৃত্যুতে পুরো পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। ইতালিয়ান খাবার তৈরি করা শিখতে বহু বছর ধরে তিনি জার্মানিতে কাজ করেছেন।

১ জুলাই শুক্রবার গুলশানের ওই রেস্তোরাঁয় দেশি-বিদেশি অনেককে জিম্মি করে জঙ্গিরা। এরপর রাতেই তাদের মধ্য থেকে ২৪ জনকে হত্যার দাবি করে আইএস। আইএসের মুখপাত্রের বরাত দিয়ে সাইট ইন্টেলিজেন্স তাদের এ দাবির কথা জানায়।

জিম্মিদের উদ্ধারের জন্য ১০ ঘণ্টা পর অপারেশন ‘থান্ডারবোল্ট’ নামের কমান্ডো অভিযান চালানো হয়। অভিযানে অংশ নেয় ১০০ কমান্ডো।

শনিবারের কমান্ডো অভিযান শেষে আইএসপিআর এক সংবাদ সম্মেলনে জানায়, অভিযানে ছয়জন হামলাকারী নিহত হয়েছে। ধরা পড়েছে একজন।

এরপর পুলিশের প্রধান একেএম শহীদুল হক জানান, হামলাকারীদের মধ্যে পাঁচজন চিহ্নিত জঙ্গি। আইজিপির বক্তব্যের পর রাতে পুলিশ পাঁচটি লাশের ছবি সাংবাদিকদের পাঠায়।

পুলিশের পাঠানো ছবি গণমাধ্যমে আসার পর সাদা অ্যাপ্রোন পরা ব্যক্তিকে সাইফুল বলে শনাক্ত করেন শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলায় থাকা তার পরিবারের সদস্যরা।

নড়িয়ার কলুকাঠি গ্রামে দুই মেয়ে সামিয়া ও ইমলিকে নিয়ে বাস করছেন সাইফুলের স্ত্রী সোনিয়া আক্তার (২৭)। তিনি এখন সাত মাসের অন্তঃস্বত্তা।

সাইফুল ১০ বছর জার্মানিতে থাকার পর দেশে ফিরে দেড় বছর আগে হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় পিজা তৈরির কারিগর হিসেবে কাজ শুরু করেন।-আমাদের সময়.কম

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: