সর্বশেষ আপডেট : ৬ ঘন্টা আগে
রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন কূটনীতিকেরা

1467618515-Gulshan-attack-2ডেইলি সিলেট ডেস্ক: ঢাকায় কর্মরত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকেরা তাঁদের ও বাংলাদেশে অবস্থানরত তাদের নাগরিকদের নিরাপত্তা নিয়ে বেশ উদ্বিগ্ন। এ কথা জানিয়ে নিরাপত্তা জোরদারের জন্য তাঁরা বাংলাদেশকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন। আজ মঙ্গলবার রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সঙ্গে এক ব্রিফিংয়ে তাঁরা এ অবস্থান তুলে ধরেন।
গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারি রেস্তোরাঁয় জঙ্গি হামলায় দেশি বিদেশি নাগরিকদের জিম্মি করে হত্যার পর উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে ঢাকায় কর্মরত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিক ও আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রতিনিধিদের জন্য এই ব্রিফিংয়ের আয়োজন করা হয়। পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনের অভিন্ন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বাংলাদেশকে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় সমর্থন করবে বলে আশা প্রকাশ করেন। তিনি দেশের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে তিনি কূটনীতিকদের আশ্বস্ত করেন।
ব্রিফিং শেষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও কূটনীতিকদের কেউই আলোচনার বিষয় নিয়ে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেননি। তবে পরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি প্রচার করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, ব্রিফিংয়ের সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী সন্ত্রাসবাদকে একটি বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ হিসেবে অভিহিত করেন। তিনি কূটনীতিকদের আশ্বস্ত করে বলেন, সরকার সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের শিকড় খুঁজে বের করবে। নিরাপত্তাবাহিনী সর্বোচ্চ সতর্কাবস্থায় রয়েছে। দেশের নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।
জানতে চাইলে কূটনৈতিক কোরের ডিন ও মিসরের বিদায়ী রাষ্ট্রদূত মাহমুদ ইজ্জাত গতকাল বিকেলে প্রথম আলোকে বলেন, কয়েকটি দেশের রাষ্ট্রদূতেরা তাঁদের নিজেদের, দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মীদের পাশাপাশি তাঁদের নাগরিকদের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছেন। এ জন্য কূটনৈতিক এলাকার পাশাপাশি বিদেশি নাগরিকদের নিরাপত্তা বাড়ানোর অনুরোধ করা হয়েছে। এ জন্য ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূতসহ কয়েকজন কূটনীতিক প্রয়োজনে বাংলাদেশে সহায়তা দেওয়ার আগ্রহ দেখিয়েছেন। বৈঠকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী রাষ্ট্রদূতদের কাছ থেকে সন্ত্রাসবাদ দমনে কী কী পদক্ষেপ নেওয়া যায় সে বিষয়ে পরামর্শ চান।
এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অন্য এক কূটনীতিক প্রথম আলোকে বলেন, দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত আন সিয়ং দো বাংলাদেশে ব্যবসা ও চাকরি সুবাদে অবস্থান করা কোরিয়ার নাগরিকদের নিরাপত্তা বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন এবং তাঁদের নিরাপত্তা চান। ডি কে হং নামে যে কোরিয় নাগরিক হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁর পাশে থাকতেন এবং গোটা ঘটনাটি ভিডিও করেছে, তাঁর নিরাপত্তার বিষয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত চরম উদ্বেগ প্রকাশ করেন।
হং আর্টিজান রেস্তোরাঁর পাশের বাড়িতে থাকতেন এবং শুক্রবার সারা রাত এবং শনিবার সকালে অপারেশন থান্ডার বোল্ট নামের অভিযানটি ভিডিও করেন এবং পরে এই ভিডিও সামাজিক যোগযোগের মাধ্যমগুলোতে ছড়িয়ে পড়ে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত আন সিয়ং দো খুদে বার্তায় প্রথম আলোকে জানান, তিনি তাঁর দেশের নাগরিকদের বাংলাদেশে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার অনুরোধ জানান।
যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট বলেন, এখন সময় এসেছে সন্ত্রাসবাদ দমনে সবাই একসঙ্গে কাজ করার এবং এ জন্য তাঁরা সরকারকে সহায়তা দিতে প্রস্তুত আছেন।
গুলশান ঘটনায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর জন্য আর্মি স্টেডিয়ামে আয়োজিত অনুষ্ঠানের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েও এক রাষ্ট্রদূত ব্রিফিংয়ে প্রশ্ন তোলেন বলে জানা গেছে। এ প্রসঙ্গে কূটনৈতিক কোরের ডিন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আর্মি স্টেডিয়াম ছেড়ে যাওয়ার পরে বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূতেরা শ্রদ্ধা জানানোর পর দেখতে পান হঠাৎ করে গ্যালারি থেকে দর্শকেরা লাফ দিয়ে মাঠে ঢুকে পড়ে এবং কয়েকজন রাষ্ট্রদূত বিচলিত হয়ে পড়েন।
জাপানের রাষ্ট্রদূত এ ঘটনার জন্য শোক প্রকাশ করেন এবং বাংলাদেশে দুই দিনের শোক দিবস ঘোষণার জন্য ধন্যবাদ দেন।
ব্রিফিংয়ে প্রায় ৫০ জন কূটনীতিক অংশ নেন। তাঁদের বেশির ভাগই বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত ও হাইকমিশনার। এতে পররাষ্ট্রসচিব মো. শহীদুল হক এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

-প্রথম আলো

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: