সর্বশেষ আপডেট : ৫৪ মিনিট ১৭ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

গুলশান লেকের পাড়ে গুলিবিদ্ধ সেই শাওনকে খুঁজে পেলেন বাবা-মা

full_1972940_1467653106-550x309-1-550x309নিউজ ডেস্ক : গুলশানের রেস্তোরাঁয় সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় নিখোঁজ এক সহকারী বাবুর্চি জাকির হোসেন শাওনকে সাংবাদিকদের সহায়তায় খুঁজে পেয়েছেন মা-বাবা। গতকাল বিকালে শাওনের বাবা আব্দুস সাত্তার ছেলেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে জীবিত পাওয়ার বিষয়টি আমাদের অর্থনীতিকে নিশ্চিত করেছেন।

গত শুক্রবার সন্ধ্যায় গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারি রেস্তোরাঁয় জঙ্গি হামলার পরদিন থেকে বিভিন্ন থানা ও হাসপাতালে ঘুরে ঘুরে ছেলেকে পাওয়ার আশা ছেড়ে দিয়েছিলেন তারা। তবে শাওনকে গ্রেফতার করা হয়েছে কি নাÑ তা তারা জানেন না। বিষয়টি সম্পর্কে পুলিশকে জিজ্ঞেস করলে তারা জানায়, শাওনকে পাহারায় রাখা হয়েছে।

শাওনের বাবা আব্দুস সাত্তার জানান, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি থাকা ছেলের সারা শরীর ফুলে গেছে। কোনো কথা বলতে পারে না।

গুলশান ৭৯ নম্বর রোডের মাথায় গতকাল দুপুরে সাংবাদিকদের মোবাইল ফোনে রক্তাক্ত এক তরুণের ছবি দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েন এক বয়স্ক মহিলা, নাম মাসুদা বেগম। তিনি বলেন, ওই ছবির যুবক তার বড় ছেলে জাকির হোসেন শাওন। পাসপোর্ট সাইজের একটি ছবি দেখিয়ে মাসুদা বেগম বলেন, শুক্রবার রাতে হলি আর্টিজান বেকারিতে সন্ত্রাসী হামলার পর থেকে ছেলের কোনো খবর পাচ্ছেন না।

মাসুদা বেগমের সঙ্গে এসময় শাওনের বাবা আব্দুস সাত্তার, ফুফু জাহানারা বেগম, ছোট ভাই আব্দুল্লাহসহ আত্মীয়রা ছিলেন। ছেলের খোঁজে বেশ কয়েকবার গুলশান থানার পুলিশের কাছে গেছেন বলে জানান তিনি। পুলিশ ইউনাইটেড হাসপাতালে জাকিরকে খোঁজার কথা বলে। সেখানে গিয়ে তারা ছেলেকে পাননি। গত রোববারও রাত দেড়টা পর্যন্ত তারা গুলশান থানায় বসেছিলেন। কিন্তু পুলিশ জাকিরের কোনো খোঁজ দিতে পারেনি। গতকাল সোমবার সকালে গুলশান থানা থেকে মিন্টু রোডের ডিবি কর্যালয়ে গেলে তাদের আবার ইউনাইটেড হাসপাতালে আসতে বলা হয়।

দুপুরে হলি আর্টিজানের সামনে উপস্থিত সাংবাদিকরা শাওনের ব্যাপারে রেস্তোরাঁর হিসাব বিভাগের ম্যানেজার সাজিদের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, শাওনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে শনাক্ত করা হয়েছে। এরপর পরিবারের সদ্যসরা হাসপাতালে ছুটে যায়।

শাওনের মা মাহমুদা বেগম ও বাবা আবদুস সাত্তার কান্নাজড়িত কণ্ঠে জানান, তাদের বাড়ি নারায়ণগঞ্জের নয়াপাড়ার গুদনাইল এলাকায়। প্রায় দেড় বছর আগে আর্টিজান রেস্তোরাঁয় বাবুর্চির সহকারী হিসেবে কাজ শুরু করে শাওন। মাসিক বেতন ৮ হাজার টাকা। গত বৃহস্পতিবার ইফতারের পর তার সঙ্গে সর্বশেষ কথা হয়। সে তখন জানায়, ঈদের বোনাস পেয়েছে। বেতন পেলে রোববার বাড়ি আসবে।

আবদুস সাত্তার নারায়ণগঞ্জে মেঘনা ডিপোতে নিরাপত্তাকর্মী হিসেবে কাজ করেন। গত শনিবার টিভিতে রেস্তোরাঁয় জঙ্গি হামলার ঘটনা দেখেন। এরপর থেকেই ছেলেকে আর মোবাইল ফোনে পাচ্ছিলেন না।

এদিকে পুলিশের বরাত দিয়ে চ্যানেল আই অনলাইন বলছে, পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়া গুলিবিদ্ধ যুবকের নাম শাওন। জিজ্ঞাসাবাদে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট গোয়েন্দাদের সে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে। তবে শাওনের বাবাকে গ্রেফতারের বিষয়ে কিছু জানানো হয়নি। তাকে পুলিশ প্রহরায় রেখেছে।

হলি আর্টিজান বেকারির হিসাব বিভাগের ম্যানেজার সাজিদ জানান, শাওনকে গ্রেফতার করা হয়নি। তার চিকিৎসা চলছে। নিরাপত্তার জন্য শুধু পুলিশ পাহারায় রাখা হয়েছিল। শুধু শাওনই নয়, রেস্তোরাঁর ভিতরে থাকা আমাদের সবাইকেই জিজ্ঞাবাদ করা হয়েছে। শাওন জঙ্গিদের ভয়ে পালাতে চেয়েছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, সে এখন মুক্ত। সুস্থ হলে বাসায় যেতে পারবে।- আমাদের সময়.কম

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: