সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ছাতকে চেয়ারম্যানের হামলায় ৩ মেম্বার আহত

index1ছাতক (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ
ছাতক উপজেলার সিংচাপইড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাহাব উদ্দিন সাহেলের হামলায় ৩ইউপি সদস্য আহত হয়েছেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে রোববার রাতে এ হামলার ঘটনা ঘটে। ভিজিএফ’র চাল বিতরণকে কেন্দ্র ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানা গেছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সিংচাপইড় ইউপির ২নং ওয়ার্ড সদস্য আজিবুর রহমান শান্ত, ৫নং ওয়ার্ড সদস্য করম আলী ও ৮নং ওয়ার্ড সদস্য মাসুক মিয়ার চেয়ারম্যান সাহাব উদ্দিন সাহেলের সাথে সমন্বয় না থাকায় রোববার ভিজিএফের চাল ৭, ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্য সফিকা খাতুনের তত্বাবধানে বিতরনের উদ্যোগ নেয়া হয়। এতে ২, ৫ ও ৮নং ওয়ার্ড সদস্য বাঁধা দিয়ে বিষয়টি ইউএনওকে জানালে তিনি চেয়ারম্যানসহ ৩সদস্যকে রাত ৮টায় বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্যে তার কার্যালয়ে ডেকে আনেন। এখানে চেয়ারম্যান আসার পর ইউপি সদস্যদের সাথে অশালীন আচরন শুরু করেন এবং তাদেরকে অফিস থেকে বের করে দেন। এ সময় অফিসের বাহিরে ওঁৎ পেতে থাকা দূর্বৃত্তরা ৩সদস্যের উপর হামলা চালায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনের জন্যে ইউএনও ছাতক থানার অফিসার্স ইনচার্জকে ঘটনাস্থলে ডেকে আনেন। পুলিশ এসে আহত ৩ইউপি সদস্যকে উদ্ধার করে এবং ইউএনওর গাড়িতে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করে। এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য মাসুক মিয়া জানান, অংশ মোতাবেক ভিজিএফ কার্ড না দেয়ায় চাল বিতরনে বাঁধা দিয়েছি। পরে ইউএনও কার্যালয়ে নিষ্পত্তির জন্যে গেলে চেয়ারম্যান তার দলবল নিয়ে হামলা করে ৩সদস্যকেই গুরুতর আহত করেছে। জানা গেছে, নির্বাচনের পর থেকেই চেয়ারম্যান ও সদস্যদের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মতবিরোধ চলে আসছে। সংরক্ষিত আসনের সদস্য সফিকা খাতুন বলেন, চেয়ারম্যানের সাথে মেম্বারদের সুসম্পর্ক না থাকায় ৭, ৮ ও ৯ ওয়ার্ডের ভিজিএফের চাল ইউনিয়নের পরগনা বাজারে বিতরনের সময় ৭ ও ৯নং ওয়ার্ডের চাল বিতরন করলেও ইউপি সদস্য মাসুক মিয়ার বাঁধার মূখে ৮নং ওয়ার্ডের চাল বিতরন করা যায়নি। এসময় সদস্য মাসুক মিয়ার হামলায় ভিজিএফ কমিটির সভাপতি বাবুল মিয়া, সদস্য দেলোয়ার হোসেন, নুর মিয়া, কদরিছ আলীও তার স্বামী সামছুল হক আহত হন। এসময় সদস্য মাসুক মিয়ার লোকজন মাষ্টাররোলের কাগজপত্র ছিনিয়ে নেয় এবং তাকে প্রাণ নাশের হুমকি দেয়। বিষয়টি জানাতে তিনি ইউএনও কার্যালয়ে পৌছলে ৩ইউপি সদস্যের উপর হামলার ঘটনা ঘে ছে বলে তিনি জানান।
ইউপি চেয়ারম্যান সাহাব উদ্দিন সাহেলকে ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও পাওয়া যায়নি।
এ ব্যাপারে থানার অফিসার্স ইনচার্জ আশেক সুজা মামুন জানান, আহত ইউপি সদস্যদের পুলিশী নিরাপত্তায় গোবিন্দগঞ্জ পর্যন্ত পৌছে দেন এবং এখন পর্যন্ত থানায় কোন মামলা হয়নি।
এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফুজ্জামান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বিষয়টি তিনি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছেন বলে জানান।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: