সর্বশেষ আপডেট : ৪২ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

পর্যটনকেন্দ্র জাফলং সড়কের করুণ দশা

daily sylhe newspic_jaflongবিশেষ প্রতিবেদক ::
ভারতের মেঘালয় পর্বতের পাদদেশে নৈসর্গিক সৌন্দর্যের লীলাভুমি প্রকৃতি কন্যা জাফলং। সিলেটের সীমান্ত জনপদ গোয়াইনঘাট উপজেলার জাফলং পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে দেশ-বিদেশে বেশ পরিচিত। কিন্তু খানাখন্দে ভরা রাস্তার বেহাল দশার কারণে দিন দিন পর্যটক বিমুখ হয়ে পড়ছে এই পর্যটন কেন্দ্রটি। রাস্তাটির এমন দশায় মনে হয় পথের শেষই যেন পথের বেড়া। আর রাস্তার এমন বেহাল দশার কারণে পর্যটন কেন্দ্র জাফলংয়ে দিনে দিনে ভ্রমণের আগ্রহ হারাচ্ছেন পর্যটকেরা।
এতে আর্থিক দিক দিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন এই এলাকার পর্যটন সংশ্লিষ্ট সহস্রাধিক ব্যবসায়ী। আর কয়েকদিন পরই ঈদুল ফিতর। তাই দ্রুত রাস্তাটি সংস্কার না করলে ঈদ পরবর্তী দিনগুলোতে পর্যটকদের জাফলং ভ্রমণে আসার সম্ভাবনা খুব কম। এতে করে বড় ধরনের আর্থিক লোকসানের আশঙ্কা করছেন এই এলাকার পর্যটক সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা।
সিলেটের অত্যন্ত গুরুত্বপুর্ণ ও ব্যস্ততম সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের সিলেট থেকে জাফলং পর্যন্ত ৬০ কিলোমিটার রাস্তা। এর মধ্যে নলজুরি জেলা পরিষদ ডাক বাংলো থেকে জাফলয়ে বল্লাঘাট পর্যন্ত প্রায় ৮ কিেিলামিটার রাস্তার সর্বত্রই প্রায় খানাখন্দে ভরা। রাস্তার পিচ উঠে অনেক জায়গায় বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। বর্তমানে যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী রাস্তাটি পরিণিত হয়েছে মরণফাঁদে। তারপরও এই রাস্তা মাড়িয়ে অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিনই চলাচল করছে, পর্যটক, কয়লা, পাথর ও যাত্রীবাহী কয়েক সহস্রাধিক যানবাহন। এই রাস্তা দিয়ে চলতে গিয়ে রাস্তার গর্তে পড়ে বিকল হয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা আটকে থাকে বিভিন্ন যানবাহন। এতে যানজটের সৃষ্টি হয়ে যানচলাচল ব্যহত হচ্ছে। প্রতিনিয়তই দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে স্কুল কলেজগামী ছাত্র-ছাত্রী, স্থানীয় এলাকার জনাসাধারণসহ জাফলংয়ে আগত পর্যটকদের। সম্প্রতি স্থানীয় সাংসদ ইমরান আহমদ জাফলংয়ে হাজী সোহরাব আলী হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজের একাডেমিক ভবনের ভিত্তি প্রস্তর অনুষ্ঠানে যাবার সময় মামার বাজার এলাকায় খানাখন্দে ভরা রাস্তার গর্তে পড়ে তাকে বহনকারী গাড়িটি আটকে যায়। এসময় রাস্তার এমন বেহাল বেহাল দশা দেখে তিনি ক্ষোব্ধ হন। তাৎক্ষণিক ভাবে তিনি রাস্তাটি সংস্কারের বিষয়ে সড়ক ও জনপদ বিভাগের সাথে কথা বলেন এবং রাস্তাটি দ্রুত সংস্কারের তাগিদ দেন। এরপর তরিঘরি করে সড়ক ও জনপদ বিভাগ রাস্তাটি সংস্কারের উদ্যোগ নেয়। ইট বসিয়ে রাস্তাটির সংস্কার কাজ করলেও অনেক জায়গায় সপ্তাহ না পেরোতেই আবার সেই পুরোনো চেহারায় ফিরে গেছে। বর্তমানেও রাস্তাটির সংস্কার কাজ চলমান রয়েছে। একদিকে সংস্কার হচ্ছে অন্যদিকে ভেঙে যাচ্ছে।
jflong_roadএব্যাপারে স্থানীয় ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান লেবু বলেন, সম্ভাবনাময় এই পর্যটন কেন্দ্র জাফলংয়ে পর্যটকদের জন্য গড়ে উঠেছে হোটেল- রেস্তোরাঁসহ পর্যটন কেন্দ্রিক নানা ব্যবসা। ব্যক্তি মালিকানা কয়েকটি আবাসিক হোটেল ছাড়াও এখানে রয়েছে জেলা পরিষদের ডাকবাংলো, সড়ক ও জনপদ বিভাগের গেস্ট হাউস, বন বিভাগের গ্রিনপার্ক গেস্ট হাউজ, বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের নির্মিত পর্যটন মোটেল। কিন্তু দীর্ঘদিন থেকে রাস্তার বেহাল দশার কারণে পর্যটক বিমুখ হয়ে পড়েছে জাফলং। লাখ লাখ টাকা বিনিয়োগ করে প্রতি মাসেই লোকসান গুনতে হচ্ছে ব্যবসায়ীদের।
জাফলং পিকনিক সেন্টারের ইজারা গ্রহীতা সিরাজ আহমেদ বলেন, প্রকৃতি কন্যা জাফলংয়ে সব মৌসুমেই থাকতো পর্যটকদের উপচেপড়া ভিড়। কিন্তু রাস্তার বেহাল দশার কারণে জাফলংয়ে দিন দিন পর্যটকের সমাগম হ্রাস পাচ্ছে। এর ফলে পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন। তিনি বলেন পর্যটকের সমাগম কম থাকায় গত কয়েক মাস থেকে শুধু লোকসান গুনতে হচ্ছে।
জাফলং বল্লাঘাট পর্যটন ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির সহ-সভাপতি মরম আলী জানান, মাত্র কয়েকদিন পরই ঈদুল ফিতর। আর এই ঈদকে সামনে রেখে ব্যবসায়ীরা একটু আশান্বিত। অনেকে আবার ধারদেনা করে দোকানে মাল পত্রও তুলেছেন। কিন্তু রাস্তার সংস্কার না করলে পর্যটকের সমাগম কম হবে। এনিয়ে লোকসানের শঙ্কা করছেন ব্যবসায়ীরা।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: