সর্বশেষ আপডেট : ২ ঘন্টা আগে
রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মুসলমান হলে হিজাব পরেনি কেন? তাই ইশরাতকে হত্যা!

2016_07_03_18_52_35_25a5od7ApEQR5uqT9gGnGvqQkVZwpl_originalনিউজ ডেস্ক :  : একে একে চলছে সওয়াল-জওয়াব। যারা ব্যর্থ তারাই খতম। বিদেশিদের পর বাংলাদেশিদের কাছে আসে হামলাকারীরা। হাসনাত করিমের পরিবারকে দেখে খুব খুশি তারা। কারণ তার স্ত্রী শারমিন পারভীনের গায়ে ছিল হিজাব। আর সে জন্য রাতে তাদের খেতেও দেয় জঙ্গিরা।

পালাক্রমে আরেক বাংলাদেশি ইশরাত আখন্দের পাশে এসে দাঁড়ায় দুই জঙ্গি। নাম জিজ্ঞেস করে তার। নাম জানিয়ে ইশরাত তখন জানান, তিনি বাংলাদেশেরই নাগরিক এবং মুসলিম।

একজন তখন বলে, ‘ও বাঁচার জন্য ধর্মের নাম (মুসলিম নাম) নিচ্ছে। মুসলমান হলে হিজাব পরেনি কেন? মাথায় কাপড় নেই কেন?’ হিজাব পরার অভ্যাসটা ছোট থেকেই ছিল না ইশরাতের। অবশ্য বাংলাদেশের অনেক মুসলিম পরিবারের মেয়েরাও হিজাব পরে না, অথচ ধর্ম পালন করে।

ইশরাতকে নিয়ে দুই জঙ্গির মধ্যে মৃদু আলোচনা চলছিল। মিনিটখানেক পর তৃতীয় এক জঙ্গি এসে বলে, ‘আমাদের হাতে কিন্তু বেশি সময় নেই।’ এ কথা শুনে আর কোনোকিছুই ভাবেনি ওই জঙ্গিরা। একজনের হাতে থাকা ধারালো অস্ত্র নেমে আসে তার ঘারে। ইশরাত মুখ থুবড়ে পড়ে থাকেন কফির কাপে।

এ দৃশ্যগুলো খুব কাছে থেকেই দেখছিলেন গুলশান ২ নম্বরের হলি আর্টিসান বেকারি নামের রেস্টুরেন্টটির এক কর্মী। জঙ্গিদের জিম্মি থেকে মুক্ত হওয়ার পর ঘটনাটি জানান তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্রী ইশরাত অস্ট্রেলিয়া থেকেও উচ্চশিক্ষা নিয়েছেন। ঢাকার একটি আর্ট গ্যালারির প্রধান ছিলেন। এছাড়াও কাজ করেছেন বিভিন্ন সংস্থার উচ্চপদে। ছিলেন শিল্পী। আবার মিউজিক ভিডিওতে অভিনয়ও করেছেন। শুক্রবার সন্ধ্যায় কফি খেতে গিয়েছিলেন গুলশনের হোলি আর্টিসেন বেকারিতে।

ইশরাত ছাড়াও আরো দুই বাংলাদেশি এ হামলায় নিহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে একজন ট্রান্সকম গ্রুপের চেয়ারম্যান লতিফুর রহমানের নাতি ফারাজ আইয়াজ হোসেন।

অন্যজন ল্যাভেন্ডারের মালিকের নাতনী অবিন্তা কবীর। যুক্তরাষ্ট্রে লেখাপড়া করতেন। গ্রীষ্মের ছুটিতে তিনি বাংলাদেশে বেড়াতে এসেছিলেন। আগামী মাসেই তার যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে যাওয়ার কথা ছিল।

তার সঙ্গে ওইসময় দেহরক্ষীও ছিল। কিন্তু দেহরক্ষী বেঁচে গেলেও রক্ষা পাননি অবিন্তা কবীর।

এদিকে হাসনাত করিমের বরাত দিয়ে তার বাবা এন আর করিম জানান, সন্ত্রাসীরা অমুসলিম জিম্মিদের ধরে ধরে হত্যা করেছে। তবে হাসনাত করিমের স্ত্রী শারমিন পারভীন হিজাব পরায় জঙ্গিরা খুব খুশি হয়েছে। তাদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেনি তারা। রাতে তাদের সেহেরিও খেতে দিয়েছিল জঙ্গিরা।

ছেলে রায়ান করিমের জন্মদিন উপলক্ষে ওই রেস্টুরেন্টে গিয়েছিলেন হাসনাত। সঙ্গে ছিল মেয়ে সাফা করিম ও স্ত্রী শারমিন পারভীন।

ছেলের বরাত দিয়ে এন আর করিম আরো জানান, বিদেশিদের প্রত্যেককে সুরা বলতে বলে জঙ্গিরা। যারা তা পারেননি তাদেরকেই গলা কেটে হত্যা করা হয়। রাত ১১টার মধ্যেই বিদেশিদের হত্যা করেছিল জঙ্গিরা।

এদিকে সত্যপাল নামে এক ভারতীয় চিকিৎসকও রেস্টুরেন্টে ছিলেন বলে জানা গেছে। কিন্তু তিনি বাংলায় খুব স্বাচ্ছন্দেই কথা বলতে পারেন। কথোপকথন শুনে তাকে বাংলাদেশি বলে ভুল করেছিল জঙ্গিরা। এমনকি তাকে মুসলিম ভেবেও খুন করা হয়নি। সেনা কমান্ডোরা তাকে অন্য ১২ জনের সঙ্গে উদ্ধার করে।

যদিও ওই হামলায় সুরা বলতে না পারায় নিহত হয়েছেন আরেক ভারতীয় তরুণী। তারাশি জৈন (১৯) নামের ওই তরুণী যুক্তরাষ্ট্রে অধ্যয়ন করছিলেন। তার বাবা গত ১৫ থেকে ২০ বছর ধরে বাংলাদেশে গার্মেন্টস ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। তারাশি ছুটিতে ঢাকায় এসে পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাচ্ছিলেন।

উল্লেখ্য, শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে হলি আর্টিসানে হামলা করে কয়েকজন অস্ত্রধারী। এসময় তারা বেশ কয়েকটি বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে রেস্টুরেন্টের অবস্থানকারীদের জিম্মি করে। সন্ত্রাসীদের গুলিতে দুই পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হওয়ার পাশাপাশি আহত হয়েছেন কিছু সংখ্যক পুলিশ সদস্য।

শনিবার সকালের দিকেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে কামান্ডোরা। অভিযানে সেনা সদস্যদের সঙ্গে অংশ নেয় নৌবাহিনীর কমান্ডো, বিজিবি, পুলিশ ও র‍্যাবের বিশেষ বাহিনী।

এদিকে আইএস’র পক্ষ থেকে হামলার দায় স্বীকার করা হলেও তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে সেনা ও গোয়েন্দাদের। মনে করা হচ্ছে, অস্থির পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে স্থানীয় মৌলবাদীরাই এ হামলা চালাচ্ছে। যদিও আইএস এক টুইটার বার্তায় নিহত হামলাকারীদের ছবি প্রকাশ করেছে।-বাংলা মেইল

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: