সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বন্ধুদের ছাড়া যেতে চাননি, তাই প্রাণ গেল ফারাজের

photo-1467546593নিউজ ডেস্ক : রাজধানীর গুলশানে স্প্যানিশ রেস্তোরাঁয় জঙ্গি হামলায় নিহত ফারাজ আইয়াজ হোসেন বেঁচে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছিলেন। কিন্তু তাঁর দুই বন্ধুকে জঙ্গিরা না ছাড়ায় তিনি এ সুযোগ নেননি।

ফারাজের দুই বন্ধু হলেন- অবিন্তা কবির ও তারিশি জৈন। ফারাজের আত্মীয় হিশাম হোসেনের বরাত দিয়ে নিউইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, জঙ্গিরা জিম্মিদের জাতীয়তা বিষয়ে প্রশ্ন করলে ফারাজ নিজেকে বাংলাদেশি হিসেবে পরিচয় দেন এবং অবিন্তা যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক ও তারিশি ভারতের নাগরিক বলে জানান। এ সময় ফারাজকে চলে যেতে বলে জঙ্গিরা। কিন্তু তিনি তাঁর দুই বন্ধুকে ছাড়া যেতে চাননি। ফলে রেস্তোরাঁ থেকে জীবিত ফেরা হয়নি তাঁর। অন্যদের সঙ্গে তাকে হত্যা করে জঙ্গিরা।

অবিন্তা কবির যুক্তরাষ্ট্রের জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের রাজধানী আটলান্টার ইমোরি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি ঢাকায় পরিবার ও বন্ধুদের সঙ্গে ছুটি কাটাতে এসেছিলেন। ঢাকায় অবিন্তা আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে পড়াশোনা করেছেন। অবিন্তা থাকতেন ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের মায়ামিতে।

আটলান্টার কাছে অক্সফোর্ড কলেজ থেকে এ বছরই গ্র্যাজুয়েট শেষ করেছিলেন ফারাজ। এমোরির গোইজুয়েটা বিজনেস স্কুলের শিক্ষার্থী ছিলেন তিনি। ফারাজ ট্রান্সকম গ্রুপের কর্ণধার লতিফুর রহমানের নাতি।

ভারতীয় নাগরিক তারিশি বার্কেলেতে ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ার শিক্ষার্থী ছিলেন। ঢাকায় ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডে ইন্টার্নশিপ শুরু করেছিলেন। ঢাকায় তিনি আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে পড়েছেন। তাঁর বাবা এখানে পোশাক ব্যবসা করতেন।-এনটিভি

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: