সর্বশেষ আপডেট : ১৫ মিনিট ৩৯ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

গুলশানে হামলায় নিহত হওয়া জিম্মিদের পরিচয়

foreign-550x307নিউজ ডেস্ক : ঢাকার গুলশানে ক্যাফেতে জঙ্গি হামলায় নিহত ২০ জনের লাশ মর্গে রয়েছে, যাদের ১৭ জন বিদেশি বলে আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) জানিয়েছে।

নিহত বিদেশিদের মধ্যে নয়জন ইতালির, সাতজন জাপানি ও একজন ভারতের নাগরিক। বাকি তিনজন বাংলাদেশি, যাদের মধ্যে একজনের যুক্তরাষ্ট্রেরও নাগরিকত্ব রয়েছে।

শনিবার সকালে গুলশানের ওই ক্যাফেতে অভিযানের কয়েক ঘণ্টা পর আইএসপিআর জানায়, সেখান থেকে ২০ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়, যাদের অধিকাংশই বিদেশি নাগরিক। রাতেই তাদের গলা কেটে হত্যা করে হামলাকারীরা।

নিহতদের ১১ জন পুরুষ ও নয়জন নারী বলে জানিয়েছে আইএসপিআর।

নিহত নাগরিকদের পরিচয় প্রকাশ করেছে ইতালির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

এরা হলেন- বারিধারাভিত্তিক ইতালীয় বায়িং হাউজ স্টুডিও টেক্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) নাদিয়া বেনেদিত্তো, গুলশান ২ নম্বরের আরেক ইতালীয় বায়িং হাউজ ডেকাওয়ার্ল্ডের প্রাইভেট লিমিটেডের এমডি ভিনসেনজো দ আলেস্ত্রো, ক্লদিও মারিয়া দান্তোনা, সিমোনা মন্টি, মারিয়া রিবোলি, আডেলে পুগলিসি, ক্লদিও চাপেলি, ক্রিস্টিয়ান রোসিস ও মারকো তোনডাট।

শনিবার ইতালির পররাষ্ট্রমন্ত্রী পাওলো জেনতিলোনিও ঢাকায় হামলায় তাদের নয় নাগরিক নিহত এবং একজন নিখোঁজ থাকার খবর জানিয়েছেন।

তাকে উদ্ধৃত করে রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, “নিহত নয়জনকে (ইতালীয়) আমরা চিহ্নিত করেছি। আরও একজন নিখোঁজ রয়েছেন, তিনি লুকিয়ে থাকতে পারেন বা আহতদের মধ্যে থাকতে পারেন. . .আমরা তার খোঁজ করছি।”

নিহত ছয় জাপানি হলেন- তানাকা হিরোশি, ওগাসাওয়ারা, শাকাই ইউকু, কুরুসাকি নুবুহিরি, ওকামুরা মাকাতো, শিমুধুইরা রুই ও হাশিমাতো হিদেইকো।

নিহত ভারতীয় নাগরিক হলেন তারিশা জেইন। ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজও ঢাকার হামলায় ভারতীয় এই তরুণীর মৃত্যুর খবর জানিয়েছেন।

শনিবার এক টুইটার বার্তায় তিনি বলেন, “আমি অত্যন্ত বেদনার সঙ্গে জানাচ্ছি যে, ঢাকায় সন্ত্রাসীদের হাতে জিম্মি ভারতীয় তরুণী তারুশি অস্ত্রধারীদের হামলায় নিহত হয়েছে।”

হামলায় নিহত তিন বাংলাদেশির মধ্যে এলিগেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যানের মেয়ে অবিন্তা কবীর যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক বলে জানিয়েছে আইএসপিআর। অবিন্তার নানা সুপারস্টোর ল্যাভেন্ডারের মালিক।

অন্য দুজন হলেন-ট্রান্সকম গ্রুপের চেয়ারম্যান লতিফুর রহমানের নাতি ফারাজ হোসেন ও ডেএক্সওয়াই ইন্টারন্যাশনালের মানব সম্পদ বিভাগের পরিচালক ইশরাত আখন্দ।

শুক্রবার রাত পৌনে ৯টার দিকে গুলশান ২ নম্বরের হলি আর্টিজেন বেকারিতে একদল অস্ত্রধারী ঢুকে বিদেশিসহ বেশ কয়েকজনকে জিম্মি করে। সকালে কমান্ডো অভিযান চালিয়ে ওই রেস্তোরাঁর নিয়ন্ত্রণ নেয় নিরাপত্তা বাহিনী।

এ সময় ১৩ জন জিম্মিকে জীবিত উদ্ধারের পাশাপাশি এই ২০ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয় বলে আইএসপিআর জানায়।-আমাদের সময়

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: