সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ৫০ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

গভীর রাতে সিলেট শহরে এতো মানুষ কেন?

f

রাত ১২টার পর সিলেট নগরীতে প্রচন্ড যানজট

নিজস্ব প্রতিবেদক :: রাস্তায় তো বটে; শপিংমল কিংবা বিপনী বিতান কোথাও পা ফেলার ফুসরত নেই। ঈদ যত ঘনিয়ে আসছে সিলেট নগরী তত ব্যস্ত হয়ে উঠছে। রাত আড়াইটা পর্যন্ত রাস্তায় যানজট, সবার হয়তো বিশ্বাস নাও হতে পারে!
২০ রমজান থেকে সিলেট নগরীর রাতের ব্যস্ততা বেড়েছে। ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, প্রথম দিকে খুব হতাশ হয়ে পড়েছিলাম। কিন্তু, এখন মনে হচ্ছে পুষাতে পারবো। যদি পুরো রমজানজুড়ে বৃষ্টি না হয়।
সিটি সেন্টারের তানিম ফ্যাশনের ব্যবসায়ী আজাদ বলেন, বৃষ্টি হলে মানুষ চলাচল করতে পারে না। যদিও গরমে কিছুটা কষ্ট হয়, তবু মানুষ ঘুরতে পারে দোকানে দোকানে যেতে পারে। তাই, বৃষ্টি যেনো না হয় সেই প্রত্যাশা করছি।
তিনি উদাহরণ দিয়ে বলেন, গত রোববার সন্ধ্যার পর কেনাবেচা বেশ জমেছিল, কিন্তু রাত পৌনে ১২টার দিকে বৃষ্টি শুরু হওয়ায় ক্রেতারা বাসাবাড়িতে চলে যায়। আমাদের আশায় গুঁড়েবালি হয়।

20160627_004319

রোববার রাতে বৃষ্টির পর ফাঁকা হয়ে যায় জিন্দাবাজার এলাকা

শেষ সময়ে রাতের বেলা রাস্তায় মানুষের যেমন ভীড়, যানজটও প্রচন্ড। ট্রাফিক পুলিশ রাতে দায়িত্ব পালন করলে হিমশিম খেতে হচ্ছে তাদের। দিনের তুলনায় ট্রাফিক পুলিশের সংখ্যা ও সক্রিয়তা কম।

 

20160626_231044

রাত পৌনে ১টায় নগরীর জিন্দাবাজার পয়েন্ট থেকে জল্লারপাড় রোড পর্যন্ত দীর্ঘ যানজট

আর ক্রেতারা রাস্তায় জ্যামের মধ্যে সময় ফুরিয়ে যাওয়ায় মার্কেটে গিয়ে বেশি সময় পান না বলে জানিয়েছেন অনেকে। তারা বলছেন, গ্রামাঞ্চল থেকে এসে শহরে প্রবেশ করতে কিংবা এক এলাকা থেকে অন্য এলাকায় যেতে সময় কেটে যায়। দিনের বেলা কেনাকাটায় এলে একদিকে কড়া রোদ, অন্যদিকে যানজটে আটকা পড়ে রাত পর্যন্ত গড়ায়। হাতে সময় বেশি থাকে না, তাই দ্রুত ফিরতে হয়। এতে ভাল-মন্দ বিচার করে কাপড় কেনার সুযোগ মিলে না।
সিলেট নগরীতে ঈদ বাজার জমে উঠলেও কোথাও কোথাও ক্রেতাদের উপস্থিতি এখনও কিছুটা কম। নগরীর আল-হামরা শপিং সিটি, মিলেনিয়াম, কাকলী ম্যানশন কিংবা লন্ডন ম্যানশনে তেমন আগ্রহ নেই ক্রেতাদের। পাঞ্জাবির মার্কেট শুকরিয়া, ব্লুওয়াটার শপিং সিটি, সিটি সেন্টারে ক্রেতাদের উপস্থিতি একটু বেশি।

 

20160626_231147

ব্লুওয়াটার শপিং সিটি একটি কমমেটিকস এর দোকানে ক্রেতাদের ভিড়

শাড়ি, পাঞ্জাবি, জুতা ছাড়াও মেয়েরা কসমেটিকস নিয়ে একটু ব্যস্ত আছেন। তবে, ব্র্যান্ড দোকানগুলোর কদর এবার একটু বেশি। মাহা ফ্যাশন, আড়ং, শী, কমলা, সিগন্যাল, টেন পয়েন্ট, ব্যাঙ্গ, বোর্টনসহ ফ্যাশন হাউজগুলো এবার ক্রেতাদের কাছে কদর পেয়েছে।
কলেজ ছাত্র ঈমন জানিয়েছেন, দিনের বেলা শহরে এসেছেন। ইচ্ছে ছিল সন্ধ্যার আগে গ্রামে ফিরবেন। কিন্তু, পরিবারের সবার জন্য বাজার করতে গিয়ে রাত ১২টা পর্যন্ত গড়িয়েছে। ফ্যাশন হাউস থেকে কাপড় না কিনলে হয়তো এই সময়ে কাভার হতো না।

20160626_231131

জুতার দোকানে ক্রেতাদের ভিড়

এভাবে প্রতিদিন কেনাবেচা হলে এবার অন্য বছরের তুলনায় ভাল ব্যবসা হবে বলে আশা করছেন ব্লু ওয়াটার মার্কেটের কাপড় ব্যবসায়ী আলী হোসেন। ৮জন কর্মকর্তা-কর্মচারি নিয়মিত ব্যস্ত রয়েছেন বলে জানান তিনি। রাত ৩টার আগে আজ বাসায় ফিরার সম্ভাবনা নেই বলে জানান তিনি। হয়তো, জিন্দাবাজারেই সেহরি খেতে হবে তাদের।

 

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: