সর্বশেষ আপডেট : ১১ মিনিট ২২ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ঈদের ছবি মুক্তি নিয়ে প্রতিযোগিতা

20436_e1ঈদে এবার থাকছে চারটি ছবি। হল মালিক ও বুকিং এজেন্টরা এমনই তথ্য দিয়েছেন। তবে দর্শক মহলে চলচ্চিত্রের খবরটা আসার আগে কোন হলে কোন ছবি বা কতটা হলে মুক্তি পাচ্ছে তা নিয়ে শুরু হয়েছে এক ধরনের প্রতিযোগিতা। সেটা অবশ্য সিনেমাপ্রেমী দর্শকরা জানতে বা দেখতে পারেন না। এবারের ঈদে মুক্তির অপেক্ষায় থাকা এ চারটি ছবি নিয়েও তৈরি হয়েছে জোর প্রতিযোগিতা। ছবিগুলো জাকির হোসেন সীমান্ত ও জয়দেবের ‘শিকারি’, মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজের ‘সম্রাট’, শামিম আহমেদ রনির ‘মেন্টাল’, এবং আবদুল আজিজ ও বাবা যাদবের ‘বাদশা’। শুরুতে অনেক ছবির নাম শোনা গেলেও চূড়ান্ত সময়ে এসে জানা যায় ঈদের ছবির তালিকা। গত ঈদেও এই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। তবে এবার শাকিব খানকে নিয়ে প্রতিযোগিতাটা বেশি হতে যাচ্ছে। তার অভিনীত তিনটি ছবি ঈদে মুক্তি পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ প্রসঙ্গে শাকিব খান মানবজমিনকে বলেন, হিরোর কাজ ছবিতে অভিনয় করা। তবে এবার প্রতিটি ছবিতে আমাকে ভিন্নভাবে দর্শকরা দেখতে পাবেন। ‘শিকারি’ ছবিতে শ্রাবন্তী, ‘মেন্টাল’ ছবিতে তিশা, আঁচল, পড়শী এবং ‘সম্রাট’ ছবিতে অপু বিশ্বাস আমার বিপরীতে কাজ করেছেন। এবারের ঈদে অপুর একটি ছবিই মুক্তি পাচ্ছে। আর ছবিটিও ভিন্ন একটি গল্প নিয়ে। আমার হিসেবে প্রত্যেকটি ছবি ব্যবসা করার মতো। আমার বিশ্বাস, সবক’টি ছবি দর্শক গ্রহণ করবেন। তারপরও ঈদের পর চূড়ান্ত ফলাফল জানা যাবে। তবে দেশীয় বড় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়ার কর্ণধার আবদুল আজিজ ঈদের ছবি নিয়ে মানবজমিনকে বলেন, ‘বাদশা’ ছবিতে কলকাতার জিৎ এর বিপরীতে থাকছেন নুসরাত ফারিয়া এবং ‘শিকারি’ ছবিতে প্রথমবার যৌথ প্রযোজনার ছবিতে অভিনয় করেছেন শাকিব খান। সঙ্গে রয়েছেন শ্রাবন্তী। তাই দুটি ছবি নিয়েই আমরা সমান আশাবাদী। এবারের ঈদে শুধু দেশি তারকা না, দর্শকরা দেখতে পাবেন ওপার বাংলার নায়ক জিৎ ও অভিনেত্রী শ্রাবন্তীকে। তাই চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট অনেকেই ধারণা করছেন, এবারের ঈদে দর্শক ভাগ হয়ে যাবে। কলকাতার অভিনেতা-অভিনেত্রীদের এদেশের দর্শকরা স্যাটেলাইট চ্যানেলেই সুবাদে বেশ ভালোভাবেই চেনেন। তাই তাদের ছবি দেখতে যাবেন দর্শকরা। ‘রানা পাগলা’ ছবি নাম দিলেও ‘মেন্টাল’ নামেই ছবিটি ঈদে মুক্তি পাবে বলে জানিয়েছেন এ ছবির প্রযোজক পারভেজ চৌধুরী। তিনি ছবিটি নিয়ে বলেন, আমার ছবির গল্পে দর্শকরা ভিন্নতা পাবে। এখন পর্যন্ত ১৫০টিরও বেশি হলের বুকিং হয়েছে আমার
ছবি। ভালো মেকিং, ভালো এডিটর এবং বাইরে থেকে কালার করে আনলেই ভালো ছবি হয়ে যায় না। ভালো গল্প লাগে সবার আগে। বাংলাদেশের গল্প।  মাটির মানুষের গল্প। যা আমার ছবিতে উপভোগ করতে পারবেন দর্শকরা। এদিকে চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মিয়া আলাউদ্দিন মানবজমিনকে বলেন, ছবি যত ভালো হবে দর্শকরা ততো হলে ভিড়
জমাবেন। তাই বড় বাজেটের বেশি ছবি মুক্তি পেলে তেমন কোনো সমস্যা নেই। এতে করে ছবির বাজার বড় হবে। এখন নজর দিতে হবে মার্কেটিং নিয়ে। এবারের ঈদে সবক’টি ছবি ভালো ব্যবসা করার সম্ভাবনা রয়েছে। কারণ ছবি মুক্তির সংখ্যাটা কম। তবে ঈদে ছবি মুক্তি দেয়ার আগে মার্কেটিং ও প্রচারণা বিষয়টার দিকে লক্ষ্য দেয়াটা বেশি জরুরি। আগে একটা ছবি মুক্তি পাওয়ার আগে কুলি, রিকশাওয়ালা থেকে শুরু করে শিক্ষিত শ্রেণীর মানুষরাও জানতে পারতেন। টিভি, পত্রিকা, মাইকিং সবকিছু মিলে ছিল ভিন্ন প্রচারণা। যা দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে। এসব দিকে সব প্রযোজকের নজর দেয়া উচিত।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: