সর্বশেষ আপডেট : ২৮ মিনিট ২২ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

যে কারণে আয়াতুল্লাহ খামেনেয়ীকে হত্যার চেষ্টা!

Murder_Khameni

ডেইলি সিলেট ডেস্ক: আজ হতে ৩৫ বছর আগে ১৯৮১ সালের এই দিনে ইরানের বর্তমান সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা সাইয়্যেদ আলী খামেনেয়ীর প্রাণনাশের অপচেষ্টা চালায় মুনাফিক নামে কুখ্যাত সন্ত্রাসী গোষ্ঠী এমকেও। কিন্তু মহান আল্লাহর ইচ্ছায় জনপ্রিয় এই নেতা বেঁচে যান মারাত্মক আহত হয়ে। অবশ্য তার ডান হাতটি অচল হয়ে যায়।

রাজধানী তেহরানের আবু জার মসজিদে ভাষণ দেয়ার সময় মুনাফিক শত্রুদের পেতে-রাখা বোমার বিস্ফোরণ ঘটলে তাঁকে মারাত্মক আহত অবস্থায় হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে তার শরীরে কয়েকটি অস্ত্রোপচার করা হয়েছিল জরুরি ভিত্তিতে। বিপুল সংখ্যক মানুষ তার জন্য উদ্বিগ্ন হয়ে ওঠেন ও তাকে দেখতে যান হাসপাতালে। এই বিপ্লবী নেতার জন্য দোয়ায় মশগুল হন ইরানের সর্বস্তরের মানুষ।

এ সময় তিনি ছিলেন তেহরানের জুমা নামাজের স্থায়ী ইমাম এবং ইসলামী ইরানের সর্বোচ্চ প্রতিরক্ষা পরিষদে ইমাম খোমেনীর (র) প্রতিনিধি। ইসলাম ও ইরানের শত্রুদের হতাশ করে দিয়ে তিনি শিগগিরই সুস্থ হয়ে ওঠেন। পরবর্তীকালে প্রেসিডেন্ট আলী রাজায়ি মুনাফিকদের সন্ত্রাসী হামলায় শহীদ হলে সাইয়্যেদ আলী খামেনেয়ী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রার্থী হন ও বিপুল ভোটে জয়ী হন।

চার বছর ধরে প্রেসিডেন্ট থাকার পর তিনি দ্বিতীয় দফায়ও প্রার্থী হন এবং আবারও জয়ী হয়ে মোট ৮ বছর ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৯ সালে ইমাম খোমেনী (র) ইন্তেকাল করলে তার রেখে যাওয়া ওসিয়ত অনুযায়ী ও বিশেষজ্ঞ পরিষদ সদস্যদের সর্বসম্মতিক্রমে ইরানের সর্বোচ্চ নেতার পদে আসীন হন আয়াতুল্লাহিল উজমা সাইয়্যেদ আলী খামেনেয়ী।

এই দিনের হামলার ঘটনায় প্রতিক্রিয়া দেখিয়ে ইরানের ইসলামী বিপ্লবের রূপকার ইমাম খোমেনী (র) দীর্ঘ এক বিবৃতি দিয়েছিলেন। ওই বিবৃতির একাংশে তিনি বলেছিলেন, ‘ইসলামী ইরানের নিকৃষ্ট শত্রুরা সাইয়্যেদ আলী খামেনেয়ীকে হত্যার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে যিনি হলেন বিশ্বনবী (সা) ও ইমাম হুসাইন (আ)’র বংশধর। তারা তাকে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে কেবল এ কারণে যে তিনি ইসলাম ও ইসলামী ইরানের সেবক, জিহাদের ময়দানের আত্মত্যাগী একনিষ্ঠ সেনা, যোগ্য শিক্ষক ও জুমা নামাজের শক্তিশালী বক্তা এবং ইসলামী বিপ্লবের ময়দানে আন্তরিক পথ-প্রদর্শক। রাজনৈতিক চিন্তাধারার ক্ষেত্রে তার শক্তিশালী অবস্থান এবং জনগণের প্রতি তার দরদ ও জালিমদের বিরোধিতার বিষয়টি প্রমাণিত হয়েছে।’

ইসলামী বিপ্লবের রূপকার ওই বাণীতে প্রিয় খামেনেয়ীকে সম্বোধন করে আরও বলেছিলেন: ‘ওরা আপনাকে হত্যার চেষ্টা চালিয়ে দেশের ও সারা বিশ্বের লাখ লাখ অঙ্গীকারবদ্ধ বা মু’মিন মানুষের অনুভূতিকে আহত করেছে।’খবর-রেতে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: