সর্বশেষ আপডেট : ৭ মিনিট ২০ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

পাঁচশ টাকায় বউ বন্ধক!

Indian_woman_GETTYনিউজ ডেস্ক::
জেলার সৈয়দপুর উপজেলার এক নিভৃত পল্লীতে এক নববধূকে পাঁচশ টাকায় পর পুরুষের কাছে বন্ধক রেখেছে স্বামী। সেই নববধূর স্বামী হলেন লিটন আলী ওরফে ফকির (২৮)। তিন দিন পরে স্বামী তার বন্ধকী স্ত্রীকে ফেরত আনতে গিয়ে উভয়ের মধ্যে সৃষ্ট দ্বন্ধে ঘটনাটি চাউর হওয়ায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

জানা যায়, জেলার সৈয়দপুর উপজেলার কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়নের চওড়া বাজারের সংলগ্ন তেলীপাড়ার বাবর আলীর ছেলে ভ্যান চালক লিটন আলী ওরফে ফকির। সে ভালোবেসে দুমাস আগে শিল্পী আখতারকে (১৯) বিয়ে করে নিজ বাড়িতে নিয়ে আসে এবং স্বামী-স্ত্রী হিসেবে বসবাস শুরু করে। শিল্পী আখতারের বাড়ি নীলফামারী সদর উপজেলার চাপড়া ইউনিয়নের শুকান পুকুর এলাকায়।

২২ জুন স্ত্রী শিল্পীকে পাঁচশ টাকার বিনিময়ে তার বাবার বাড়ির পাশের গ্রাম নাটুয়া পাড়ার কাঠুরিয়া ওলেমান মিয়ার (৩২) কাছে বন্ধক রাখে লিটন। তিনদিন পর ২৪ জুন শুক্রবার সন্ধ্যায় লিটন বন্ধক গ্রহীতা ওলেমানের কাছ থেকে স্ত্রী শিল্পীকে ফেরত আনতে গিয়ে ঘটে যায় বিপত্তি। শিল্পী তার স্বামী লিটনের ঘরে ফেরত না এসে বন্ধক গ্রহীতাকে স্বামী হিসেবে গ্রহণ করার দৃঢ় সংকল্প করায় ত্রিমুখী দ্বদ্বের সৃষ্টি হয়। আর তখনই ঘটনাটি এলাকায় চাউর হয়ে পড়ে।

এ ব্যাপারে লিটন হোসেন জানান, শিল্পী আখতার আমার সঙ্গে প্রায় দুই মাস থেকে ঘর সংসার করছে। সৈয়দপুর শহরের অদূরে ঢেলাপীরে তার পূর্বের স্বামী রয়েছে। স্বামী শিল্পীকে নির্যাতন করতো বলে সে আমার সঙ্গে ভালবাসার সম্পর্ক তৈরি করে আমার বাড়িতে আশ্রয় নেয়। তবে আমি তাকে বিয়ে করিনি। তবে সে পাঁচশ টাকার বিনিময়ে ওলেমানের হাতে তুলে দেয়ার কথা স্বীকার করেন।

এলাকার অন্য একটি সূত্র জানায়, লিটন খারাপ প্রকৃতি যুবক। সে ইতিমধ্যে বিয়ের নামে এ ধরনের অনেক ঘটনা ঘটিয়েছে। সে চট্টগ্রামে ভ্যান চালাতো। সেখানে স্ত্রী সন্তানসহ বাসা ভাড়া নিয়ে থাকে। ইউপি নির্বাচনের সময় স্ত্রী সন্তান রেখে বাড়িতে আসে। দুয়েক দিনের মধ্যে স্ত্রী সন্তান গ্রামের বাড়িতে আসার কথা রয়েছে। আর তাই কৌশলে বিপত্মীক কাঠুরিয়া ওলেমানের হাতে তুলে দেয় শিল্পীকে।

কাশীরাম ইউনিয়নের ইউপি সদস্য আফজাল হোসেন জানান, লিটন এলাকায় প্রচার করেছিল সে শিল্পীকে বিয়ে করে বসবাস করছে। কিন্তু এখন সে বলছে বিয়ে করিনি।

এ ব্যাপারে নারী নেত্রী কামরুন নাহার ইরা জানান, স্ত্রীকে বন্ধক কিংবা টাকার বিনিময়ে অন্যের হাতে তুলে দেয়ার এখতিয়ার স্বামী বা অন্য কারো নেই। তিনি এ ঘটনাটির বিষয়ে পুলিশ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

এ ব্যাপারে সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিরুল ইসলাম জানান, তিনি বিষয়টি সম্পর্কে এখনও অবগত নন।তবে তিনি বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: