সর্বশেষ আপডেট : ২ ঘন্টা আগে
মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সিলেটের ঈদ বাজারে নারী পুলিশ কেন ?

jkkkডেইলি সিলেট নিউজ : প্রতি বছর ঈদ বাজারের নিরাপত্তায় নারী পুলিশকে রাখা হয় সিলেট নগরীর শপিংমল, বিপনী বিতানে। এবারও তার ব্যতিক্রম নয়। গত ক’দিন ধরেই সিলেট নগরীর মার্কেটগুলোতে নারী পুলিশ সদস্যদের নিরাপত্তায় নিয়োজিত রাখা হয়েছে।

অন্যান্য যেকোন নিরাপত্তায় পুরুষ পুলিশ সদস্যদের রাখা হয়। কিন্তু, ঈদ বাজারের ক্ষেত্রে একটু ব্যতিক্রম, নগরীর প্রতিটি মার্কেটে নারী পুলিশ সদস্য নিরাপত্তায় নিয়োজিত রয়েছেন; সংখ্যাও বেশি। তবে, কেন?

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঈদ এলে নারী অপরাধ চক্রের উৎপাত বেড়ে যায়। কেননা ঈদের বাজারে নারীদের ভীড় থাকে বেশি। নারীদের এই ভীড়কে কাজে লাগাতেই ছিনতাই, পকেটমারের মত অপরাধ করতেই নারী অপরাধ চক্র হয়ে উঠে সক্রিয়।

এদিকে ঈদকে সামনে রেখে সিলেট নগরীতে বেড়েছে ব্যস্ততা। নগরীর মার্কেটগুলোতেই জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা। আর এই সুযোগকে অপরাধীরা যাতে কাজে লাগিয়ে  বিভিন্ন ধরনের অপরাধ কর্মকান্ড না চালাতে পারে সেজন্য ঈদ কেন্দ্রীক অপরাধ ঠেকাতে  মাঠে নেমেছে আইন শৃঙ্খলা বাহীনি। নগরীর বিভিন্ন মোড়ে, বিপনীবিতান ও বড় বড় মার্কেটগুলোর সামনে অপরাধীদের ধরতে দায়িত্ব পালন করছে তারা।

পুরুষ পুলিশের পাশাপাশি নারী পুলিশ সদস্যদেরও মাঠে নামানো হয়েছে। নগরীর বন্দরবাজার, জিন্দাবাজার, পূর্ব জিন্দাবাজার, চৌহাট্টা, বারুতখানা, নয়াসড়কসহ বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, পুরুষ পুলিশের পাশাপাশি নারী পুলিশ সদস্যরা নিরাপত্তা কাজে ব্যস্ত সময় পাড় করছেন।

এসএমপি সূত্রে জানা গেছে, ঈদকে কেন্দ্র করে নগরীতে অপরাধীরা যাতে বিচরণ করতে না পারে সে জন্যই পুরো নগরীতে বাড়তি নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

সাধারণ মানুষের যান-মালের নিরাপত্তার স্বার্থে নগরীতে দুই ধাপে পুলিশ সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছেন। গত বৃহস্পতিবার সকাল থেকে নগরীর প্রতিটি বড় বড় মার্কেট, বিপনী বিতান ও বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ঈদের আাগের দিন রাত পর্যন্ত পুলিশ সদস্য নগরীতে বাড়তি নিরাপত্তার জন্য কাজ করে যাবেন।

এদিকে, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর নিরপাত্তা দেখে সাধারণ মানুষও অনেকটা স্বস্তি প্রকাশ করেছেন। অনেকই বলছেন এবার নগরীতে বাড়তি নিরাপত্তার ব্যবস্থা করায় ঈদের কেনাকাটা নিরাপদে করা যাবে।

তবে মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার রহমত উল্লাহ জানান, ঈদকে কেন্দ্র করে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও নগরীতে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যস্থা করা হয়েছে।

২০ রমজান থেকে বাড়তি নিরাপত্তা দেয়ার কথা থাকলেও গত বৃহস্পতিবার থেকে নগরীতে তারা কাজ শুরু করেছেন। নারী চোর চক্রের সদস্য ও নারী ছিনতাইকারী ধরতে নারী পুলিশ এবং পুরুষ ছিনতাইকারী ও অপরাধী ধরতে পুরুষ পুলিশ সদস্য মাঠে কাজ করছেন। এছাড়া থাকছে স্ট্রাইকিং ফোর্স, মোটরসাইকেল ফোর্স, ব্যাকআপ পার্টিও। সবমিলিয়ে নগরীজুড়ে কঠোর নিরাপত্তা নিশ্চিতে এসএমপি তৎপর বলে জানান তিনি।

আরও পড়ুন : জিন্দাবাজার থেকে ‘কৌশলী’ নারী চোর চক্রের ৩ সদস্য আটক

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: