সর্বশেষ আপডেট : ৭ মিনিট ৪৮ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কোচিং থেকে অর্জিত অর্থ দিয়ে জঙ্গি অর্থায়ন (ভিডিও)

koching_44710-550x357নিউজ ডেস্ক : শুধু কোচিং ব্যবসা থেকে ধর্ম ভিত্তিক রাজনৈতিক দল জামায়াতের আয় কোটি কোটি টাকা। যা পরিচালিত করছে দলটির ছাত্র সংগঠন। এ খাত থেকে অর্জিত অর্থ জঙ্গি অর্থায়নের ব্যবহারের প্রাথমিক প্রমাণও পেয়েছে পুলিশ।

কুষ্টিয়ার তিনটি কোচিং সেন্টার থেকে ১৮ জনকে গ্রেফতারের পর আরো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য এসেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে।

জঙ্গি অর্থায়নে জামায়াত শিবির পরিচালিত প্রতিষ্ঠানগুলোকে দায়ী করা হয়েছিল অনেক দিন ধরেই। সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন স্থানে সন্দেহ ভাজনদের গ্রেফতারের পর জিজ্ঞাসাবাদে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নজরে আসে কুষ্টিয়ার তিনটি কোচিং সেন্টার। বেরিয়ে আসে শিবিরের রহস্যজনক আয় ব্যয়ের খতিয়ান।

বছরে দুই থেকে আড়াই হাজার শিক্ষার্থীর ভর্তি বাবদ আয় অন্তত ১ কোটি ৩০ লাখ টাকা। খরচ বাদে সেখানে থাকে প্রায় কোটি টাকার মুনাফা।

কোচিং পরিচালক নাহিদ হাসান তিতাশ বলেন, সাকসেস ও ফেমাস এই প্রতিষ্ঠানগুলো অনেক বড় প্রতিষ্ঠান। দীর্ঘ দিন ধরে চলছে এই প্রতিষ্ঠান। প্রায় ৩৭-৩৮ বছর ধরে চলছে। এদের ধারে কাছে অন্য প্রতিষ্ঠান যায় না।

গোয়েন্দা সংস্থাগুলো তাদের প্রতিবেদনে বলছে এই টাকা দিয়েই বিভিন্ন নিষিদ্ধ সংগঠনের ব্যানারে গুপ্তহত্যা ও নাশকতা চালাচ্ছে শিবির কর্মীরা। অর্থের উৎস জানার পর তাই তাদের গন্তব্য সম্পর্কে এখন নিশ্চিত হতে চায় গোয়েন্দা সংস্থা।

কুষ্টিয়া মডেল থানার অফিসার উনচার্জ শাহাবুদ্দিন চৌধুরী বলেন, তাদের আয় ব্যায়ের ব্যাপারে তারা যেসব তথ্য দিয়েছে সে ব্যাপারেও আমরা সত্যতা যাচাই করার চেষ্টা করছি।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শিবিরের পরিচালনায় সাকসেস, মিশন এ প্লাস ও ফেমাস তিন যুগেরও বেশি সময় ধরে কোচিং ব্যবসা চালিয়ে আসছে এ জেলায়। বাধ্যতামূলক হলেও ভ্যাটের আওতায় আসেনি এই তিনটি প্রতিষ্ঠান। কখনও অডিটের মুখোমুখিও হতে হয়নি তাদের।

কাস্টমস-এক্সাসাইজ-ভ্যাট বিভাগীয় কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন বলেন, আশা করছি যেহেতু ভর্তির মৌসুম যদি এ মৌসুমেও তারা এ রকম শুরু করে তাহলে তাদের আমরা বেটার আওতায় নিয়ে আসার চেষ্টা করব।

সচেতন নাগরিকরা বলছেন গোড়া থেকে নজরদারি না থাকায় ধর্ম ভিত্তিক দলটি জঙ্গি মদদের সুযোগ পেয়েছে।

মানবাধিকার কর্মী হাসান আলী বলেন, ১৮ জন শিবির কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। যাদের কেউই আসলে কুষ্টিয়ার স্থায়ী না।

ঘাতক দালাল নির্মুল কমিটির সাধারণ সম্পাদক অসিত সিংহ রায় বলেন, ধীরে ধীরে আমরা এই জঙ্গিবাদ শক্তির উত্থানের লক্ষ্য করছি এবং সেই অর্থ ব্যয় করেই তারা আজকে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে।

জঙ্গি অর্থায়নের শেকড় সন্ধানে সারা দেশে জামাত শিবিরের ৫৬১ টি প্রতিষ্ঠানের আর্থিক বিবরণ খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। সূত্র- যমুনা টিভি

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: