সর্বশেষ আপডেট : ৩ মিনিট ৩৬ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

নবীগঞ্জে বিলাসবহুল গাড়ির খোঁজে গোয়েন্দারা

daily sylhet 0-182 copyডেইলি সিলেট ডেস্ক:
নবীগঞ্জে বিভিন্ন ট্রানজিট রোড ব্যবহার ও শুল্ককর ফাঁকি দিয়ে চলছে আলিশান পাজারো গাড়ি আমদানি এবং বিক্রি। রহস্য অনুসন্ধানে গোয়েন্দা তৎপরতা জোরদার করা হয়েছে। ৭ই জুন অভিযুক্ত ফয়েজ আমিন রাসেলের প্রায় দুই কোটি টাকা মূল্যের পাজারো জব্দ করে সিলেট বিভাগীয় আবগারি শুল্ক কর বিভাগ। এ নিয়ে মামলা হয়েছে। এ ঘটনার পর বিলাসবহুল একই মডেলের অপর একটি গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যায় একাধিক মামলায় আলোচিত রাসেল। নারী ধর্ষণ, অপহরণ, অবৈধ অস্ত্র বহন এবং গুলি করে দখল বাণিজ্যের নায়ক রাসেলের বাড়িতে একাধিকবার অভিযান চালিয়েছে র‌্যাব। তাকে নিয়ে বিব্রত ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। মন্ত্রীর সাথে সংযুক্ত ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করা নিয়ে আলোচনার ঝড় উঠে। আলোচিত ওই যুবকের গতিবিধি এবং বিভিন্ন মহলে দৌড়ঝাঁপ নিয়ে অনুসন্ধান করছে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা। এছাড়াও গাড়ি আমদানি ও বিক্রির অভিযোগ খতিয়ে দেখছে সিলেট শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগ।

স্থানীয় সূত্রে প্রকাশ, উপজেলার পাহাড়ি জনপদ খ্যাত গজনাইপুর ইউনিয়নের লোগাঁও গ্রামের সাবেক চেয়ারম্যান পুত্র ফয়েজ আমিন রাসেল ছাত্রদল নেতা হিসেবে এলাকায় পরিচিতি লাভ করে। সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সিলেট গমনে মহাসড়কে বিশালাকার তোরণ নির্মাণ করে আলোচিত হন তিনি। হঠাৎ তার রাজনৈতিক পরিচয় পাল্টে যায়। ২০১৪ সালে গঠিত নবীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের কমিটিতে সাংগঠনিক সম্পাদক পদবী বাগিয়ে নেয়। এ নিয়ে আওয়ামী লীগ নেতারাই হতবাক। শহরে ব্যবসা নেই, বাসা নেই, অবস্থানের সুযোগ নেই, তারপরও সে পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। রাজনীতির লেবাসে বিস্তৃত হয় রাসেলের আন্ডারগ্রাউন্ড নেটওয়ার্ক। প্রবাসী ও দেশি নেতাদের উপঢৌকন, ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাদের নাম ব্যবহার করে বেপরোয়া হয় উঠে। গুলি করে প্রতিবেশী ও যুক্তরাজ্য প্রবাসীর বাড়ি দখল করে।

এ নিয়ে বাড়ির কেয়ারটেকার জিতু মিয়া মামলা করেন। প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে গিয়ে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারের নাটক তৈরি করে রাসেল। এ ঘটনায় স্বয়ং হবিগঞ্জ পুলিশ সুপার জয়দেব কুমার ভদ্র বিব্রত হন। তার অপতৎপরতা রোধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্র্দেশ দেন। নবীগঞ্জ থানায় তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা হয়। সম্প্রতি যুক্তরাজ্য প্রবাসী আওয়ামী লীগ নেতা আনোয়ারুজ্জামানের আমন্ত্রণে সিলেট জেলার বালাগঞ্জ আসেন প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। লোকজনের ভিড়ে ছবি তোলে রাসেল। মন্ত্রীর সংযুক্ত ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করেন। এ নিয়ে আলোচনার ঝড় উঠে। অপহরণ, ধর্ষণ ও অস্ত্র মামলায় অভিযুক্ত রাসেলকে নিয়ে জাতীয় সংবাদ মাধ্যমে বিবৃতি দিয়ে নিজের অবস্থান পরিষ্কার করে তারানা হালিম বলেন, অনেক লোকের ভিড়ে কে ধর্ষণ আর অস্ত্র মামলায় অভিযুক্ত তা শনাক্ত করা সম্ভব নয়। তাছাড়া ফয়েজ আমিন রাসেল নামের কারো সঙ্গে তার পরিচয় বা জানাশোনা নেই।

এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ছাড়াও স্থানীয় ও জাতীয় সংবাদ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় উঠে। অনেক দিন গাঢাকা দেয় রাসেল। পঞ্চম ধাপে অনুষ্ঠিতব্য ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ইমদাদুর রহমান মুকুলের বিপরীতে ঘোড়া প্রতীক নিয়ে লড়াই করেন রাসেলের পিতা শাহ নেওয়াজ। পিতার জন্য মরিয়া হয়ে মাঠে নামে রাসেল ও তার লোকজন। একাধিক পাজারো নিয়ে অপরিচিত লোকজনের আনাগোনায় তটস্থ হয় সাধারণ ভোটাররা। এ ঘটনায় তাকে নবীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের পদ থেকে বহিষ্কার করে হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ। নির্বাচনে শাহ নেওয়াজ পরাজিত হন। ৭ই জুন অস্ত্র মামলায় আদালতে হাজির হলে বিজ্ঞ বিচারক তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন। এদিন হবিগঞ্জ আদালত চত্বর থেকে রাসেলকে আটকের চেষ্টা করে শুল্ক গোয়েন্দা সংস্থা। পরিস্থিতি আঁচ করে পালিয়ে যায় রাসেল। এ সময় হবিগঞ্জ শহরের কোর্ট মসজিদ মার্কেটের সামন থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় রাসেলের কোটি টাকা মূল্যের পাজারো জব্দ করে সিলেট বিভাগীয় আবগারি শুল্ক কর বিভাগ (গাড়ি নং-ঢাকা মেট্রো-ম-০০-০৫০১)। ২৪শে এপ্রিল আলোচিত ওই যুবককে আটকের জন্য র‌্যাব সিলেট-৯-এর একটি দল তার বাড়িতে অভিযান চালায়।

এ সময় পুরো বাড়ির ভিডিওচিত্র ধারণ করে র‌্যাব। শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর সিলেটের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা মো. জিয়া উদ্দিন মিয়াজী বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মিৎসুবিশি ব্রান্ডের রেজিস্ট্রেশনবিহীন ঢাকা মেট্রো ম-০০-০৫০১ গাড়িটি কারনেট সুবিধায় যুক্তরাজ্য থেকে আমদানি করা হয়। টিকে-এবি ইএন ২৮০ মডেলের ওই গাড়িটি এলএনবি অটোমোবাইল গ্যারেজের নম্বর প্লেট লাগানো ছিল। অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান বলেন, ২৪শে এপ্রিল গাড়ি উদ্ধারের জন্য নবীগঞ্জ উপজেলার লোগাঁও গ্রামের ফয়েজ আমিন রাসেলের বাড়িতে অভিযান চালনো হয়েছিল। পরিত্যক্ত অবস্থায় হবিগঞ্জ শহর থেকে গাড়িটি উদ্ধার করা হয়েছে। শুল্ক ফাঁকি দিয়ে আনা মার্সিডিজ, বিএমডব্লিউ, জাগোয়ার থেকে শুরু করে বিশ্বের নামিদামি বিভিন্ন ব্রান্ডের গাড়ি বিআরটিএ’র কিছু অসাধু কর্মকর্তার যোগসাজশে শুল্ক ফাঁকি দিয়ে বাংলাদেশে আমদানি হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: