সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

এক স্ত্রীর ৬৯ সন্তান, বিশ্ব রেকর্ড গড়লেন মস্কোর বাবা

full_1774038476_1466418705ডেইলি সিলেট ডেস্ক: গতকাল বিশ্বজুড়ে পালিত হয়েছে বাবা দিবস, ফাদার্স ডে। বাবার সঙ্গে সন্তানের ছবিতে ভরে গেছে সোশ্যাল মিডিয়ার পাতা। নিজের মতো করে অনেকেই ভালোবাসা জানাচ্ছেন জীবনের প্রথম হিরোকে। দিন তো পালন করছেন, কিন্তু ক’জনই বা জানেন ফাদার্স ডে-র উত্‍‌পত্তি ঠিক কবে? বাবাদের সম্পর্কে এরকমই না জানা কিছু তথ্য নিয়ে আজকের পঞ্চবাণ, যা জানলে আক্কেল গুড়ুম হতে বাধ্য।

১. ফাদার্স ডে কনসেপ্টের সূচনা করেন মার্কিন নারী সোনোরা স্মার্ট ডড। তিনিই প্রথম ঠিক করেছিলেন একটি বিশেষ দিনে বাবাকে সম্মান জানাবেন। প্রবীণ সেই সিঙ্গল ফাদার একা হাতে মানুষ করেছিলেন ৬ সন্তানকে। ১৯১০ সালের ১৯ জুন পালিত হয় প্রথম ফাদার্স ডে।

২. ফাদার্স ডে-তে বাবাকে কি ফুল উপহার দিতে চান? তাহলে কিনে ফেলুন গোলাপ ফুল। কারণ এটাই ফাদার্স ডে-র আনুষ্ঠানিক ফুল। বলা হয়, যিনি এই দিনে লাল গোলাপ পরেন, তার অর্থ হল তাঁর বাবা জীবিত রয়েছেন। আর সাদা গোলাপ পরে থাকলে, বুঝতে হবে সেই ব্যক্তির বাবা বেঁচে নেই।

৩. ফাদার্স ডে-তে বাবাকে ফুলের পাশাপাশি গ্রিটিংস কার্ড, বই, বাবার পছন্দের কোনও জিনিসসহ বিভিন্ন উপহার দেওয়া হয়। তবে, এখনো বাবার জন্য এই বিশেষ দিনের বিশেষ উপহারের তালিকায় সর্বাধিক বেশি কেনা হয় টাই। ১৯২০ সাল থেকে শুরু হয়েছে এই টাই উপহারের চল। আর প্রথম যে ফাদার্স ডে কার্ড আবিষ্কৃত হয়েছে, তা ৪০০০ বছর আগের। ব্যবিলনের ধ্বংসাবশেষ থেকে একটি মাটির পাত্র থেকে এই প্রাচীন গ্রিটিংস কার্ডটি আবিষ্কার করেছেন প্রত্নতত্ত্ববিদরা। যেখানে বাবার প্রতি এক কিশোরের বার্তা লেখা ছিল, ‘সুস্থ থাকো, দীর্ঘজীবী হও।’

৪. সারা বিশ্বের থেকে ফাদার্স ডে পালনের রীতি একেবারে আলাদা জার্মানিতে। সেখানে এই দিনটি পালন করা হয় প্রচুর বিয়ার আর স্থানীয় খাবার-দাবার খেয়ে। এই বিশেষ দিনে পুলিশ ও জরুরি পরিষেবাগুলিতে জারি করা থাকে চূড়ান্ত সতর্কতা।

৫. সবশেষে ফাদার্স ডে-তে এমন এক বাবার কথা বলব, যা শুনলে অবিশ্বাস্য বলে মনে হবে। একজন স্ত্রীর থেকে সর্বাধিক সন্তান পাওয়ার বিশ্ব রেকর্ড গড়েছেন মস্কোর এক বাবা। তাঁর সন্তানের সংখ্যা ৬৯। তাঁর স্ত্রী ফিওডোর তাঁকে ১৬ জোড়া যমজ, ৭ সেট ট্রিপলেট (একসঙ্গে তিনটি বাচ্চা হওয়া) ৪ সেট কোয়াড্রুপ্লেট (একসঙ্গে চারটি বাচ্চা হওয়া) সন্তান উপহার দিয়েছেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: