সর্বশেষ আপডেট : ১১ মিনিট ১৪ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

৪৭২ মেয়ের বিয়ে দিয়ে গর্বিত বাবা মহেশ সাবানী

1466326003নিউজ ডেস্ক : কে বলে, মেয়েরা বাবাদের কাছে বোঝা হয়। অন্তত ভারতের গুজরাটের ভাবনগরের শিল্পপতি মহেশ সাবানীর কাছে তা নয়। বাবা দিবস উপলক্ষে ৪৭২ জন বিবাহিত মেয়ের থেকে অভিনন্দন পেয়ে আরও গর্বিত তিনি।

এই ৪৭২ জন মেয়ের সঙ্গে হয়তো রক্তের সম্পর্ক নেই মহেশ সাবানীর। কিন্তু পিতৃহারা এই মেয়েদের কাছে বাবা বলতে একমাত্র তিনি। তাদের দায়িত্ব নেওয়া থেকে শুরু করে বিয়ের ব্যবস্থা করা পর্যন্ত সবকিছুই করেছেন এই দিলদরিয়া মানুষটি।

আজ থেকে ১০ বছর আগে, যখন মহেশবাবুর দাদা মারা যান তখন তার বয়স ৩৭ বছর। মৃত দাদার দুই মেয়ের বিয়েতে ‘কন্যাদান’ করেছিলেন তিনি। আর তখনই তিনি অনুভব করেন আরও কত পিতৃহারা কন্যারা রয়েছে তার নিজের শহরেই।

২০০৮ সাল থেকে শুরু হয় মহেশ সাবানীর নতুন ভূমিকা। বাবা না থাকায় যে মেয়েরা অসুবিধায় পড়ে, বিয়ে হচ্ছে না, তাদের পাশে এসে দাঁড়ান তিনি। তাদের বিয়ে দেওয়া বা দায়িত্ব পালন করার অঙ্গীকার নেন। এরপর থেকেই বার্ষিক বিয়ের ব্যবস্থা করতে শুরু করেন মহেশবাবু।

মহেশ সাবানীর বাবা বল্লভভাই ৪০ বছর আগে ভাবনগরে এসে কাজ শুরু করেন। প্রথমে হিরা পালিশের কাজ করতেন তিনি। তারপর ক্রমেই তিনি নিজের একটি ছোট দোকান খোলেন। বল্লবভাইয়ের পরিবার এখন গুজরাটের বিত্তশালী পরিবার। প্রত্যেক মেয়ের বিয়ের জন্য ৪ লাখ রুপি খরচ করার সামর্থ রাখেন মহেশ সাবানী এবং খরচও করেন।

মহেশ সাবানীর কথায়, ‘যে মহিলারা স্বামীকে হারায় তাদের ক্ষেত্রে একা হাতে মেয়ের বিয়ে দেওয়াটা খুবই কঠিন চ্যালেঞ্জ।’

মেয়েদের বিয়েতে সোনা- রূপোর গয়না দেওয়া ছাড়াও কাপড়, বাসন এমনকি ইলেকট্রনিক সামগ্রীও দেন মহেশবাবু। তবে এক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য, মেয়েদের বিয়ের ক্ষেত্রে জাতপাত ধর্মের কোনও ভেদাভেদ নেই তার নজরে। জাতপাতধর্ম নির্বিশেষে তিনি মেয়েদের বিয়ের ব্যবস্থা করেন।

কন্যাভ্রূণ হত্যা, মেয়ে হওয়ায় বধূ নির্যাতন এসব খবরের মাঝে মহেশবাবুর মতো মানুষ সত্যিই নতুন অক্সিজেন। সূত্র- ওয়ান ইন্ডিয়া ও টাইমস অফ ইন্ডিয়া।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: