সর্বশেষ আপডেট : ৭ মিনিট ৮ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ২২ জুন, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৮ আষাঢ় ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ফেঁসে যাওয়ার ভয়ে ক্রসফায়ার দিচ্ছে সরকার : খালেদা জিয়া

Khaleda Ziaডেইলি সিলেট ডটকম :: অপরাধের সঙ্গে সরকারের সংশ্লিষ্টতা উঠে আসার কারণেই তাদেরকে ক্রসফায়ারে মেরে ফেলা হচ্ছে বলে দাবি করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

মাদারীপুরের কলেজ শিক্ষক রিপন চক্রবর্তীকে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় রিমান্ডে নেওয়া গোলাম ফয়জুল্লাহ ফাহিম শনিবার সকালে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বিএনপি নেত্রী এই বক্তব্য রাখলেন। বুধবার রাজধানীতে এক ইফতার মাহফিলে অংশ নিয়ে তিনি বলেন, একের পর এক ঘটনা ঘটেছে, কিন্তু প্রকৃত অপরাধীদের ধরা হয়নি।

“কোনো অপরাধী ধরা পড়লে দেখা যায় জেলে নিয়ে যায়, পরে রিমান্ডে নেওয়া হয়। কিন্তু রিমান্ড থেকে আর সে জেলে বা মা-বাবার কাছে ফেরত যায় না। চলে যায় ক্রসফায়ারে। উদ্দেশ্য কী? অর্থাৎ সে এমন তথ্য দেয় যে, এতে সরকার জড়িয়ে পড়ছে। সেজন্য ক্রসফায়ার। এই রমজান মাসেও এমন কাজ হচ্ছে।” চলমান সাঁড়াশি অভিযানে বিনা ওয়ারেন্টে গ্রেপ্তারের বিষয়ে আদালতের নির্দেশ মানা হচ্ছে না বলেও এ সময় অভিযোগ করেন বিএনপি নেত্রী।

রাজধানীর মতিঝিলে ‘হোটেল পূর্বানীর’ দিলকুশা হলরুমে জোটের শরিক দল জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি-জাগপার ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ নেন বিএনপি চেয়ারপারসন।

খালেদা জিয়া বলেন, ‘এখন দেশ আছে কী না, সেটাই সন্দেহ। একের পর এক ঘটনা ঘটে চলেছে। কিন্তু আজ পর্যন্ত সত্যিকার অর্থে কোনো অপরাধীর বিচার হয়নি। সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনিকে হত্যা করা হলো। তখন অনেক হইচই হলো। বললো, ৪ দিনের মধ্যে হত্যকারীদের ধরে বিচার করা হবে। আজ কয়েকবছর হয়ে গেলো কিছুই হয় নাই।’

“কেন হয় নাই? এর পেছেনে নিশ্চয় বড় কারণ আছে। কারণ, যদি হত্যাকারীদের ধরা হয় সত্যি বেরিয়ে আসবে। তাদের কাছে (সাগর-রুনি) সরকারের অপকর্ম, চুরি, দুর্নীতির রেকর্ড ছিল। অনেক তথ্য ছিল। এসব যেই কম্পিউটারে ছিল সেটি চুরি করে নিয়ে গেছে। আর কোনো জিনিস চুরি হয় নাই”, বলেন বিএনপি নেত্রী।

সন্ত্রাস ও জঙ্গি দমনে পুলিশের সাঁড়াশি অভিযানের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘এই সরকার জনগণের নির্বাচিত নয়। জোর করে ক্ষমতায় বসে আছে। কোর্ট নির্দেশ দিয়েছে কাউকে বিনা ওয়ারেন্টে ধরতে পারবে না। কিন্তু তারা সেই নির্দেশনা মানছে না। এরা আদালতের নির্দেশ মানে না, উল্টো আদালতে আদেশ দেয় কি করতে, হবে না করতে হবে।’

দেশে বর্তমান সময়ে কারো কোনো নিরাপত্তা নেই মন্তব্য করে বিএনপি নেত্রী বলেন, ‘যে লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নিয়ে যুদ্ধ করেছি, সেটি হারিয়ে গেছে। গণতন্ত্র, ন্যায়বিচার, সবার সমান অধিবার, নিরাপত্তা আজ নেই।’

সরকার প্রধান হিসেবে প্রধানমন্ত্রী নিজে দেশ চালাচ্ছেন, না কী কারো নির্দেশ পালন করছেন সেই প্রশ্নও তোলেন খালেদা জিয়া।

“দেশে আজকে যিনি প্রধানমন্ত্রীর আসনে বসে আছেন, তিনি কি প্রধানমন্ত্রী, না অন্য কোনো মন্ত্রী হিসেবে আছেন? দেশের মানুষ মনে করেন, তিনি নামে প্রধানমন্ত্রী, কিন্তু তিনি নির্দেশ পালন করেন। তাকে প্রধানমন্ত্রী বলা যায় না।” দেশের স্বাধীনতা বিপণ্ণ হতে চলেছে দাবি করে এই অবস্থা থেকে উত্তোরণে দেশবাসীকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান খালেদা জিয়া।

মুলমঞ্চে খালেদা জিয়ার সঙ্গে জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি-জাগপার সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান, বাংলাদেশ কল্যান পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) চেয়ারম্যান ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ) চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি, ন্যাপ ভাসানীর চেয়ারম্যান আজহারুল ইসলাম চৌধুরী, বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান  মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, খেলাফত মজলিসের নায়েবে আমির মুজিবুর রহমান পেশোয়ারী, জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার, ইসলামিক পার্টির চেয়ারম্যান আবু তাহের চৌধুরী, পিপলস পার্টি মহাসচিব গরীবে নেওয়াজ, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক কমরেড সাঈদ আহমেদ ইফতার করেন।

বিএনপি নেতাদের মধ্যে লে জে (অব.) মাহবুবুর রহমান, আ স ম হান্নান শাহ, খন্দকার মাহবুব হোসেন, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, রুহুল কুদ্দস তালুকদার দুলু অংশ নেন। (সংবাদ সূত্র : রাইজিংবিডি)

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: