সর্বশেষ আপডেট : ৫ মিনিট ৫৭ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

একমাস আগে ‘নিখোঁজ’ তিন যুবককে গ্রেপ্তার দেখাল পুলিশ

145099_1নিউজ ডেস্ক: গত ১২ মে খুলনা থেকে নিখোঁজ হয় তিন যুবক। তাদের তুলে নেওয়া হয় ডিবি পুলিশ পরিচয়ে। তারপর আর সন্ধান মেলেনি। পুলিশ স্বীকারও করেনি এদেরকে তুলে নেওয়ার কথা। অবশেষে একমাস পর সন্ধান মিলেছে তাদের।

গত ১২ জুন তাদের গ্রেপ্তার দেখিয়েছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। যাত্রাবাড়ী থানায় দায়েরকৃত সন্ত্রাস বিরোধী আইনের একটি মামলায় ডিবি তাদের রিমান্ডেও নিয়েছে। যাত্রাবাড়ী থানা পুলিশ বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছে।

টানা একমাস পর সন্তানের খবর শুনে সুখের কান্নায় বুক ভাসিয়েছেন খুলনার এ তিন যুবকের মা-বাবা ও পরিবারের অন্য সদস্যরা। তবে তাদের মুখে একটিই কথা সেটি হচ্ছে, ‘ছেলে বেঁচে আছে, এটিই বড় শান্তনা’। এ জন্য তারা আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করেছেন।

খুলনার এই তিন যুবক হচ্ছেন- মোঃ মনিরুল ইসলাম বাবু (২৮), মোঃ আব্দুল্লাহ আল সায়েম তুর্য (২৫) ও মো. শোয়াইব বিশ্বাস (২৬)। এ তিন যুবক গত ১২ মে খুলনা থেকে গুম হন।

পরিবার ও পুলিশের সূত্রে জানা যায়, গত ১২ মে খালিশপুরের বয়রা সিএসডি গোডাউনের নিরাপত্তা কর্মী মাসুদুর রহমানের ছেলে ইলেকট্রিক মিস্ত্রি মোঃ মনিরুল ইসলাম বাবু, হরিণটানার থানা এলাকার খুলনা বাইপাস সড়কের মোস্তর মোড় সংলগ্ন বিসমিল্লাহ নগর মাদ্রাসা এতিমখানা ও লিল্লাহ বোর্ডিংয়ের শিক্ষক মোঃ আব্দুল্লাহ আল সায়েম তুর্য (২৫) ও একই মাদ্রাসার শিক্ষক শোয়াইব বিশ্বাসকে (২৬) ডিবি পরিচয়ে তুলে নেওয়া হয়।

গোয়েন্দা পুলিশ পরিচয়ে তাদের জোরপূর্বক তুলে নিয়ে যাওয়া হয় বলে অভিযোগ ছিল সংশ্লিষ্টদের পরিবারের।

যাত্রাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আনিসুর রহমান বুধবার রাতে বলেন, খুলনার এ তিন যুবককে গত ১২ জুন ডিএমপির ডিবি’র পক্ষ থেকে একটি সন্ত্রাস বিরোধী আইনের মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। ডিবি বাদি হয়ে মামলাটি দায়ের করে। মামলার তদন্তও ডিবি থেকে করা হচ্ছে। আসামিরা ডিবি হেফাজতে রিমান্ডে রয়েছে বলেও জানান তিনি। তবে মামলার বিষয়ে তিনি বিস্তারিত জানাতে পারেননি।

ইলেকট্রিশিয়ান মনিরুল ইসলামকে খুলনা নগরীর বয়রা সিএসডি গোডাউন কলোনীর বাসা থেকে তার বাবা মাসুদুর রহমানের সামনেই জোর করে তুলে নেওয়া হয়।

ঘটনার পরদিন বাবা মাসুদুর খালিশপুর থানায় জিডি করেন। একই দিন সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে হরিণটানার বিসমিল্লাহ নগর মাদ্রাসা থেকে নগরীর বয়রাস্থ বাসায় যাওয়ার পথে সাদা মাইক্রোবাসে তুলে নেওয়া হয় আব্দুল্লাহ আল সায়েম তুর্যকে।

এ ঘটনার পরদিন তূর্যের পিতা অগ্রণী ব্যাংকের অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম হরিণটানা থানায় অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন।

একই দিনে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নগরীর বৈকালী বাজারের বায়তুন নাজাত জামে মসজিদ কোয়াটার থেকে হরিণটানার বিসমিল্লাহ নগর মাদ্রাসায় যাওয়ার পথে নিখোঁজ হন শোয়াইব বিশ্বাস। এ ঘটনায় তার পিতা মাওলানা আব্দুস সাত্তার ১৩ মে খালিশপুর থানায় জিডি করেন।

তবে ঘটনার পর খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী কমিশনার (ডিবি) মোঃ কামরুল ইসলাম ডিবি পরিচয়ে কাউকে তুলে নেওয়ার ঘটনা তাদের জানা নেই বলে উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, ‘তাদের নিখোঁজের বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তাদের উদ্ধারেও কাজ করছে ডিবি।’ কিন্তু ঘটনার একমাস পরও খুলনার পুলিশ এ বিষয়ে কোনো তথ্য দিতে পারেনি।

পরবর্তীতে গত ২৬ মে গুম হওয়া সন্তানদের ফিরিয়ে দেওয়ার দাবিতে খুলনা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন তাদের পরিবারের সদস্যরা। একই সঙ্গে গুম হওয়া তিন যুবককে উদ্ধারের দাবি জানিয়ে খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ এবং খুলনা মহানগর বিএনপি নেতৃবৃন্দ বিবৃতি প্রদান করেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: