সর্বশেষ আপডেট : ৮ মিনিট ৪১ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ত্থুক্কে পানসী রেষ্টুরেন্ট

Panshi-Restaurant-Highway.সময় : ১৪ জুন ভোররাত ৩:২৮ মিনিট (সেহেরীর সময়)
স্থান : পানসী রেষ্টুরেন্ট, মাধবপুর, হবিগঞ্জ (হাইওয়ে)
ঘটনাটা খুলে বলি। সেঝবোনটা স্বামীর চাকুরীর সুবাদে বগুড়ায় থাকে। তার অসুস্থতার কথা শুনে ছোটবোনটাকে সাথে নিয়ে রওয়ানা দিলাম এনা পরিবহনের একটি কোচে। উপরোল্লেখিত সময়ে বাসটি যাত্রা বিরতী নেয় পানসী রেষ্টুরেন্টে। অষ্টম রোজা রাখার জন্য সেহেরী খেতে ঢুকেছি।

মানুষ আর মানুষ কে কোথায় বসবে? কি খাবে? কে খাওয়াবে? এমন প্রশ্ন মাথায় ঘুরপাক খাচ্ছে। এমন সময় মাইকে ঘোষণা সম্মানিত যাত্রীসাধারণ, আমাদের দোতলায় আপনাদের জন্য ভালো ব্যবস্থা রাখা আছে। আপনারা উপরে চলে যান। গেলাম উপরে। চার চেয়ারের একটি টেবিলে দুই ভাইবোন বসলাম সেহেরী খাবার জন্য। অন্য একটি চেয়ারে বসলেন একজন ভদ্রলোক।

হোটেল বয় আসলো বললাম ভাত খাবো। সাথে কি খাবেন? বলে সে কয়েকটি আইটেমের নাম বললো। সময় এতোই কম যে বাছবিচারের টাইম নাই। বললাম মুরগীর রোষ্ট নিয়ে আসেন।

শুরু হলো সময় গুনার পালা। সেহেরীর সময় চলে যায় হোটেল বয়তো ফিরে আসে না। আশপাশের টেবিলগুলোতে তাকিয়ে দেখি কেউ সাদা ভাত নাড়া-চাড়া করছে তরকারীর অপেক্ষায়, কেউ তরকারী পায়নি শুধু ডাইল দিয়ে ভাত খাচ্ছেন। একজন এইটা চাচ্ছেন তো অন্যজন অন্যএকটা চাচ্ছেন। কে পাচ্ছে আর কে পাচ্ছে না বোঝা মুসকিল।

বসে বসে এইসকল তামাশা দেখছি। হঠাৎ মাইকে ঘোষণা ঢাকাগামী এনা পরিবহন ৯৩৫৮কোচের যাত্রী সাধারণের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে সকলে যার যার আসন গ্রহণ করুন। সেরেছে … আমরা ভাতই পেলাম না তার মধ্যে গাড়ি ছাড়ার সময় হয়েছে। দুই-ভাইবোন একে অন্যর দিকে তাকালাম এমন সময় ভাত হাজির। না না তরকারী দিয়ে নয় তরকারী ছাড়া শুধু সাদা ভাত। কি করবো বুঝতে পারছি না…. ভাত নিলাম। একদম না খেয়ে কেমন করে রোজা রাখবো। কিছুক্ষণ পর আসলো তরকারী ততক্ষণে দ্বিতীয় বারের মতো মাইকে ঘোষণা ….।

মুরগীর রোষ্ট বলতে যা দিলো তা শুধু মুরগীর ডানা। ছোট আপ্পিটাকে বললাম কিছু করার নাই দুই লোকমা মুখে দাও। আমাদের সামনের ভদ্রলোকটিও সবর করে খেয়ে নিচ্ছেন এমনটাই মনে হলো।

টেবিলে পানি নেই। ভাগ্যভালো যে নিজেরা একটা পানি সাথে নিয়ে ঢুকেছিলাম। তাই পান করে। দ্রুত বেরিয়ে পড়বো। জিজ্ঞাসা করলাম বিল কত? উত্তর শুনে তো হতবাক! ৪শত টাকা। পানি নাই, লেবু-শশা নাই, লবন নাই। শুধু ভাত আর মুরগির ডানা। তারই বিল ৪০০ টাকা। কথা না বাড়িয়ে টাকা দিয়ে এক দৌড়। বেরিয়ে দেখি গাড়ি ঘুরিয়ে মেইন রাস্তায় আমাদের অপেক্ষায়। উঠলাম…। গাড়ি চলতে শুরু করেছে…।

মনের মধ্যে এতো রাগ আসলো… এতো রাগ আসলো… মনে হলো সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে আমার পুত্রধন যখন তার রকেট লাঞ্চার থেকে শরীরের অপ্রয়োজনীয় তরলটা ঢেলে দেয় টয়লেটের বারান্দায় সেইটা পানসীর মালিকের মুখে ঢেলে দিলে…আমার যানে কিছুটা শান্তি আসতো।

ত্থুক্কে পানসী রেষ্টুরেন্ট।
মারুফ হাসানের ফেসবুক থেকে নেওয়া

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: