সর্বশেষ আপডেট : ২৮ মিনিট ৫৩ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

পরকীয়া প্রেমে বাধার জেরে স্ত্রীকে নির্যাতন, পুলিশ কনষ্টেবল স্বামী গ্রেফতার

Untitled-2_12ডেইলি সিলেট ডেস্ক:
ঝালকাঠির বিনয়কাঠি ইউনিয়নের মুরাসাতা গ্রামে পরকিয়া প্রেমে বাধা দেওয়ার জেরে স্ত্রী নির্যাতনের মামলায় ফয়সাল শরীফ (২৮) নামে এক পুলিশ কনষ্টেবলকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রোববার রাতে তার নিজবাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করে সোমবার দুপুরে ঝালকাঠি আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

রোববার বিকেলে নির্যাতনের শিকার নুপুর আক্তারের (২০) ভাই শাহীন হোসেন বাদি হয়ে স্বামীসহ ৩ জনকে আসামী করে ঝালকাঠি থানায় শিশু ও নারী নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। বর্তমানে নির্যাতনের শিকার নুপুর আক্তার বানারীপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি।

গ্রেফতারকৃত ফয়সাল শরীফ বাবুগঞ্জ থানায় পুলিশ কনেস্টবল হিসেব কর্মরত। মামলায় তার বাবা আঃ সালাম শরীফ ও তার ভাই ফায়জুল শরীফকে আসামী করা হয়েছে।

নির্যাতনের শিকার নুপুরের ভাই শাহীন হোসেন অভিযোগ করে জানান, বানারীপাড়া উপজেলার সলিয়াবাকপুর ইউনিয়নের চৌয়ারীপাড়া গ্রামের মৃত আঃ লতিফ খানের মেয়ে নুপুর আক্তারের সঙ্গে দেড় বছর পূর্বে ঝালকাঠির নিয়নকাঠি ইউনিয়নের মুরাসাতা গ্রামের আঃ সালাম শরীফের ছেলে পুলিশ কনষ্টেবল ফয়সাল শরীফের পারিবারিক ভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পরপরই যৌতুকের দাবি করলে মেয়ের সুখের কথা ভেবে ফয়সালকে ২ লাখ টাকা দেয় নুপুরের পরিবার। এছাড়াও বিয়ের সময় স্বর্নালঙ্কারসহ মূল্যবান বিভিন্ন উপঢৌকন দেওয়া হয়। কিন্তু যৌতুক লোভী ফয়সাল সম্প্রতি আরও ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবী করলে নূপুর তা দিতে অস্বীকৃতি জানালে তাকে অব্যাহতভাবে মানসিক ও শারিরীক ভাবে নির্যাতন করা হয়।

নির্যাতনের শিকার নুপুর অভিযোগ করে জানান, ফয়সাল ঝালকাঠির র্কীতিপাশা গ্রামের মৃত মোবাক্কের মৃধার মেয়ে আসমা আক্তার আশা নামের এক কলেজ পড়ুয়া মেয়ের সঙ্গে পরকিয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়লে তাতে বাধা দেন নুপুর। এনিয়ে সৃষ্ট বিরোধের জের ধরে ছুটিতে বাড়িতে এসে গত ৮ জুন সকালে ফয়সাল স্ত্রী নুপুর আক্তারকে রড ও লাঠি দিয়ে নির্মমভাবে নির্যাতন করেন। নির্যাতনে ৪ ঘন্টা অচেতন ছিলেন নুপুর। জ্ঞান ফিরে আসার পরে তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে বাসায় আটকে রাখা হয়। বিষয়টি টের পেয়ে ওই এলাকার জনৈক হালিম খান তাকে কৌশলে উদ্ধার করে উজিরপুরের গুঠিয়া বন্দরে দিয়ে যান। সেখান থেকে খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন নূপুরকে বানারীপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

ঝালকাঠি থানার ওসি মাহে আলম জানান, এ ঘটনায় নুপুরের ভাই শাহীন হোসেন বাদী হয়ে ৩ জনকে আসামী করে ঝালকাঠি থানায় শিশু ও নারী নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ফয়সাল শরীফকে গ্রেফতার করে ঝালকাঠি আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: