সর্বশেষ আপডেট : ১ মিনিট ৪৭ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সুবিধা চাইতে গিয়ে অসুবিধা নিয়ে এলাম : রিহ্যাব প্রেসিডেন্ট

Untitled-5 copyনিউজ ডেস্ক : আগামী অর্থবছরের (২০১৬-১৭) প্রস্তাবিত বাজেটে আবাসন খাতের প্রত্যাশা পূরণ হয়নি বলে জানিয়েছেন রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (রিহ্যাব) প্রেসিডেন্ট আলমগীর শামসুল আলামিন। তিনি বলেন, কিছু সুবিধা চাইতে গিয়ে অসুবিধা নিয়ে এলাম। এবার আয়করের পরিমাণ পরিবর্তনের ফলে বাসস্থানের ব্যয় বেড়ে যাবে।

রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে আজ রোববার দুপুরে বাজেট-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে রিহ্যাব প্রেসিডেন্ট এ কথা বলেন।

রিহ্যাব প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘দেশের মানুষের আবাসন সংকট দূর ও পরিকল্পিত নগরী গড়তে সরকারের সহযোগী হিসেবে রিহ্যাব কাজ করছে। কিন্তু এ খাতের উন্নয়নে রিহ্যাবের পক্ষ থেকে যেসব প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল প্রস্তাবিত বাজেটে তার প্রতিফলন দেখা যায়নি। আমাদের প্রস্তাবে সিঙ্গেল ডিজিট সুদ, একটি তহবিল গঠন, রেজিস্ট্রেশন ব্যয় হ্রাস, আয়কর কমানোসহ বেশ কিছু দাবি ছিল। এর মধ্যে তহবিল গঠনের ওপর সবচেয়ে গুরুত্ব দেওয়া হয়। বাজেটে এ তহবিল গঠনেরও কোনো প্রতিফলন নেই।’

আলমগীর শামসুল আলামিন বলেন, ‘রাজস্ব আয়ের গুরুত্বপূর্ণ খাত হচ্ছে রেজিস্ট্রেশন খাত। তবে ফির হার ১৪-১৬ শতাংশের ওপরে হওয়ায় রেজিস্ট্রেশনের পরিমাণ কমেছে। সারা দেশে জমি বেচা-কেনা ৮০ শতাংশ কমেছে। সার্কভুক্ত দেশের মধ্যে বাংলাদেশেই রেজিস্ট্রেশনের ব্যয় সর্বোচ্চ। পার্শ্ববর্তী দেশের সঙ্গে সমন্বয় করে এর হার ৭ শতাংশ করার প্রস্তাব করলেও তার প্রতিফলন হয়নি। এটা খুবই দুঃখজনক।’

‘মনে হচ্ছে আমরা কিছু সুবিধা চাইতে গিয়ে অসুবিধা নিয়ে এলাম। প্রস্তাবিত বাজেটে আয়করের পরিমাণ পরিবর্তনের ফলে বাসস্থানের ব্যয় বেড়ে যাবে।’

শামসুল আলামিন বলেন, ‘প্রস্তাবিত বাজেটে আয়করের পরিমাণ কমানোর প্রস্তাব করা হলেও তা আগের চেয়ে বাড়ানো হয়েছে। এর ফলে মধ্যবিত্ত এবং নিম্ন মধ্যবিত্তদের আবাসন ব্যয় বেড়ে যাবে। এতে এর সাথে জড়িত ২ কোটি মানুষের আয়ের এ খাতটি আরো মুখ থুবড়ে পড়তে পারে। সাথে এ খাতের সংশ্লিষ্ঠ ২৬৯ টি লিংকেজ শিল্পকেও সংকটে ফেলবে।’

অপ্রদর্শিত টাকা বিনিয়োগ প্রসঙ্গে রিহ্যাব প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘ফ্ল্যাট ক্রয়ের ক্ষেত্রে টাকার উৎস নিয়ে প্রশ্ন করার কথা না বললেও দুদক তা করছে করছেই। সে টাকার পরিমানও বাড়ানো হয়েছে। এটি এ খাতকে আরো নিরুৎসাহিত করবে। বিনিয়োগের সুবিধা সহজ না হলে দেশ থেকে টাকা পাচার হবে। ২০১৩ সালে বিদেশে চলে গেছে ৭৬ হাজার কোটি টাকা। প্রতি বছর সেভাবে যাচ্ছে।’

‘এ ছাড়া ট্যাক্স হলিডের মাধ্যমে বিকেন্দ্রীকরণ নগরায়ন, গৃহায়ন শিল্পের জন্য নির্মাণকালীন পরিস্থিতিতে ইন্ডাস্ট্রিয়াল হারে ইউটিলিটি ফি নির্ধারণ, সাপ্লায়ার ভ্যাট ও উৎস কর সংগ্রহের দায়িত্ব থেকে ৫ বৎসরের জন্য ডেভেলপারকে অব্যাহতি প্রদানের প্রস্তাব করেছিলাম। এগুলোর কোনো কিছুর প্রতিফলন প্রস্তাবিত বাজেটে পাইনি। অবনতিশীল পরিস্থিতি মোকাবিলায় কোম্পানিগুলোকে ৫ বছরের জন্য ট্যাক্স হলিডে প্রদানের দাবি জানানো হয়।’

সংবাদ সম্মেলনে আজ আরো উপস্থিত ছিলেন রিহ্যাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি নূরন্নবী চৌধুরী শাওন, সহ-সভাপতি লিয়াকত আলী ভূইয়া, আহকাম উল্লাহ, প্রকৌশলী সরদার মোহাম্মদ আমিন, প্রকৌশলী মোহাম্মদ সোহেল রানা প্রমুখ।

নিউজ ডেস্ক : আগামী অর্থবছরের (২০১৬-১৭) প্রস্তাবিত বাজেটে আবাসন খাতের প্রত্যাশা পূরণ হয়নি বলে জানিয়েছেন রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (রিহ্যাব) প্রেসিডেন্ট আলমগীর শামসুল আলামিন। তিনি বলেন, কিছু সুবিধা চাইতে গিয়ে অসুবিধা নিয়ে এলাম। এবার আয়করের পরিমাণ পরিবর্তনের ফলে বাসস্থানের ব্যয় বেড়ে যাবে।

রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে আজ রোববার দুপুরে বাজেট-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে রিহ্যাব প্রেসিডেন্ট এ কথা বলেন।

রিহ্যাব প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘দেশের মানুষের আবাসন সংকট দূর ও পরিকল্পিত নগরী গড়তে সরকারের সহযোগী হিসেবে রিহ্যাব কাজ করছে। কিন্তু এ খাতের উন্নয়নে রিহ্যাবের পক্ষ থেকে যেসব প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল প্রস্তাবিত বাজেটে তার প্রতিফলন দেখা যায়নি। আমাদের প্রস্তাবে সিঙ্গেল ডিজিট সুদ, একটি তহবিল গঠন, রেজিস্ট্রেশন ব্যয় হ্রাস, আয়কর কমানোসহ বেশ কিছু দাবি ছিল। এর মধ্যে তহবিল গঠনের ওপর সবচেয়ে গুরুত্ব দেওয়া হয়। বাজেটে এ তহবিল গঠনেরও কোনো প্রতিফলন নেই।’

আলমগীর শামসুল আলামিন বলেন, ‘রাজস্ব আয়ের গুরুত্বপূর্ণ খাত হচ্ছে রেজিস্ট্রেশন খাত। তবে ফির হার ১৪-১৬ শতাংশের ওপরে হওয়ায় রেজিস্ট্রেশনের পরিমাণ কমেছে। সারা দেশে জমি বেচা-কেনা ৮০ শতাংশ কমেছে। সার্কভুক্ত দেশের মধ্যে বাংলাদেশেই রেজিস্ট্রেশনের ব্যয় সর্বোচ্চ। পার্শ্ববর্তী দেশের সঙ্গে সমন্বয় করে এর হার ৭ শতাংশ করার প্রস্তাব করলেও তার প্রতিফলন হয়নি। এটা খুবই দুঃখজনক।’

‘মনে হচ্ছে আমরা কিছু সুবিধা চাইতে গিয়ে অসুবিধা নিয়ে এলাম। প্রস্তাবিত বাজেটে আয়করের পরিমাণ পরিবর্তনের ফলে বাসস্থানের ব্যয় বেড়ে যাবে।’

শামসুল আলামিন বলেন, ‘প্রস্তাবিত বাজেটে আয়করের পরিমাণ কমানোর প্রস্তাব করা হলেও তা আগের চেয়ে বাড়ানো হয়েছে। এর ফলে মধ্যবিত্ত এবং নিম্ন মধ্যবিত্তদের আবাসন ব্যয় বেড়ে যাবে। এতে এর সাথে জড়িত ২ কোটি মানুষের আয়ের এ খাতটি আরো মুখ থুবড়ে পড়তে পারে। সাথে এ খাতের সংশ্লিষ্ঠ ২৬৯ টি লিংকেজ শিল্পকেও সংকটে ফেলবে।’

অপ্রদর্শিত টাকা বিনিয়োগ প্রসঙ্গে রিহ্যাব প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘ফ্ল্যাট ক্রয়ের ক্ষেত্রে টাকার উৎস নিয়ে প্রশ্ন করার কথা না বললেও দুদক তা করছে করছেই। সে টাকার পরিমানও বাড়ানো হয়েছে। এটি এ খাতকে আরো নিরুৎসাহিত করবে। বিনিয়োগের সুবিধা সহজ না হলে দেশ থেকে টাকা পাচার হবে। ২০১৩ সালে বিদেশে চলে গেছে ৭৬ হাজার কোটি টাকা। প্রতি বছর সেভাবে যাচ্ছে।’

‘এ ছাড়া ট্যাক্স হলিডের মাধ্যমে বিকেন্দ্রীকরণ নগরায়ন, গৃহায়ন শিল্পের জন্য নির্মাণকালীন পরিস্থিতিতে ইন্ডাস্ট্রিয়াল হারে ইউটিলিটি ফি নির্ধারণ, সাপ্লায়ার ভ্যাট ও উৎস কর সংগ্রহের দায়িত্ব থেকে ৫ বৎসরের জন্য ডেভেলপারকে অব্যাহতি প্রদানের প্রস্তাব করেছিলাম। এগুলোর কোনো কিছুর প্রতিফলন প্রস্তাবিত বাজেটে পাইনি। অবনতিশীল পরিস্থিতি মোকাবিলায় কোম্পানিগুলোকে ৫ বছরের জন্য ট্যাক্স হলিডে প্রদানের দাবি জানানো হয়।’

সংবাদ সম্মেলনে আজ আরো উপস্থিত ছিলেন রিহ্যাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি নূরন্নবী চৌধুরী শাওন, সহ-সভাপতি লিয়াকত আলী ভূইয়া, আহকাম উল্লাহ, প্রকৌশলী সরদার মোহাম্মদ আমিন, প্রকৌশলী মোহাম্মদ সোহেল রানা প্রমুখ।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: