সর্বশেষ আপডেট : ৬ ঘন্টা আগে
রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

পুন:উদ্ভাবন জরুরি যেসব নিত্য ব্যবহার্য পণ্যের

full_1031925991_1465795341লাইফ স্টাইল ডেস্ক: বিজ্ঞান-প্রযুক্তি সবসময় চেষ্টা করছে মানুষের জীবনকে আরো বেশি উন্নত ও সহজ করতে। কিন্তু সব বড় বড় চিন্তাধারার মাঝে ছোটো ছোটো ভুলগুলো যেন কারো চোখে পড়ছে না। গৃহস্থালিসংক্রান্ত কোনো নিত্যব্যবহার্য পণ্য নিয়ে নতুন করে মাথা ঘামানোর সময় নাই কারো। কিন্তু অসংখ্য গৃহস্থালি পণ্য প্রায় প্রতিদিনই ভীষণ অস্বস্তিতে ফেলে দেয় আমাদের।

তারপরেও এসব অস্বস্তি থেকে মুক্তির জন্য পণ্যগুলোর পুন:উদ্ভাবনের কোনো বিকল্প উপায় নাই। এসব অস্বস্তিদায়ক নিত্যব্যবহার্য গৃহস্থালি পণ্য শত শত বছর ধরে আমরা ব্যবহার করে আসছি। অথচ এই পণ্যগুলোর ডিজাইন পুনঃউদ্ভাবনের প্রয়োজনীয়তা কখনো ঘুণাক্ষরেও কারো মনে আসেনি।

– মিশ্র তাপমাত্রার কল প্রথম বিশ্ববাজারে আসে ১৮৮০ সালে। এতে একসঙ্গে দুই হাত ধুতে গেলে বেসিনে হাত লাগবেই। অথচ গত ১৩৬ বছরেও সমস্যাটি সমাধানের জন্য কেউ কোনো চেষ্টাই করেননি।

– প্লাস্টিক মোড়কজাত পণ্য ব্যবহারের ক্ষেত্রে যে বিড়ম্বনায় পড়তে হয় তা বুঝাতে একটি নতুন দুর্দশার ধারণার প্রচলন হয়- র‌্যাপ রেজ বা মোড়ানো ক্রোধ। প্লাস্টিকের মোড়ক খুলতে গিয়ে যে ভয়াবহ বিড়ম্বনায় পড়তে হয় শুধু তা বোঝানোর জন্যই এই ধারণাটির প্রচলন করা হয়। আর প্লাস্টিক কন্টেইনারও যে কারো বন্ধু নয় তাও আমাদের জানা।

– কাউকে বোকা বানানোর দ্রুততম ও সবচেয়ে সহজ উপায়টি সম্ভবত কোনো পাবলিক ডোরে বিভ্রান্তিমূলক হ্যান্ডেল লাগিয়ে দেয়া। কারণ এ ধরনের হ্যান্ডেল ধরে দরজাটি আপনি টানুন বা ঠেলুন, যাই করুন না কেন, প্রতিবারই আপনার ভুল হবে।

– টয়লেট ব্যাকটেরিয়া সম্পর্কে ভয়াবহ সব তথ্য জানা থাকা সত্ত্বেও এখনো বেশির ভাগ বাড়িতেই কমোড ফ্লাশের জন্য ফুট প্যাডেল বা স্বয়ংক্রিয় ফ্লাশের বদলে হ্যান্ডেলই ব্যবহার করা হয়। আর তাছাড়া একবারের কমোড ফ্লাশে বেশ কয়েক গ্যালন পানি খরচ হয়। অথচ বিশ্বব্যাপী কয়েক’শ কোটি মানুষ এখনো বিশুদ্ধ পানির ঘাটতিতে রয়েছেন। সে হিসাবে একবারের কমোড ফ্লাশে একসঙ্গে এত পরিমাণ পানি খরচ শুধুমাত্র অপচয় ছাড়া কিছুই নয়।

– অটোমেটিক হ্যান্ড ড্রায়ারের ধারণাটি হয়তো শুনতে খুবই ভালো লাগে। কিন্তু প্রায়ই এই ধরনের মেশিন থেকে বের হওয়া বাতাসে আপনার হাত না শুকিয়ে বরং ভেজাই থেকে যায়, যা খুবই অস্বস্তিকর অনুভুতির জন্ম দেয়।

– বৃষ্টিতে ভেজার হাত থেকে বাঁচতে খ্রিষ্টীয় প্রথম শতক থেকেই মানুষ ছাতা ব্যবহার করে আসছে। কিন্তু বেশির ভাগ ছাতারই খাঁচাটা হয় দুর্বল এবং একটু ঝোড়ো হাওয়া বইলেই তা নড়বড়ে হয়ে যায়। এমনকি ভারি ঝড়-বৃষ্টির সময় ছাতাগুলোর খাঁচা বেশির ভাগই উল্টে যায় কিংবা স্রেফ ভেঙে পড়ে। এ ব্যাপারে সবাই জানলেও কোনো পদক্ষেপ নেয়া হয় না।

– টুথপেস্ট শেষ হয়ে যাওয়ার পর টুথপেস্টের টিউবটি আগাগোড়া টিপেটুপে সেটি থেকে পেস্ট বের করার যত চেষ্টাই আপনি করুন না কেন এতে কিছুটা পরিমাণ টুথপেস্ট আটকে থাকবেই। যা আপনি কখনোই ব্যবহার করতে পারবেন না।

– প্লাস্টিকের মোড়ক খাবার সংরক্ষণের জন্য খুবই উপযোগী। কিন্তু আপনি যদি এটি ঠিকঠাকমতো হ্যান্ডেল করতে না পারেন তাহলে আপনাকে বারবার পীড়াদায়ক অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হতে হবে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: