সর্বশেষ আপডেট : ৯ মিনিট ৫২ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

খনিজ মন্ত্রণালয়ের সিদ্বান্ত না পাওয়ায় ধোপাজান নদী বালি পাথর মহালের লিজ দিতে পারছেনা সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসন

1440773000আল-হেলাল, সুনামগঞ্জ :

খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় হতে সিদ্বান্ত না পাওয়ায় এখনও জেলার জাতীয় রাজস্ব আয়ের অন্যতম ক্ষেত্র ধোপাজান নদী বালি পাথর মহালের ব্যাপারে কোন সিদ্বান্ত নিতে পারছেনা সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসন।

রবিবার বিকেলে জেলা প্রশাসক শেখ রফিকুল ইসলাম এ প্রতিবেদককে বলেন,আমরা বারবার উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে স্থায়ী পদক্ষেপ নেয়ার জন্য লিখিতভাবে সিদ্বান্ত চেয়ে আবেদন নিবেদন করছি। যখন সুনির্দিষ্টভাবে সিদ্বান্ত পাবো তখনই কে বা কারা হবে বৈধ ইজারাদার সে ব্যাপারে চুড়ান্ত ফায়সালা নেবো।

এর আগে আদালত অবমাননা করে কারো পক্ষে কোন ধরনের অবাঞ্চিত পদক্ষেপ নিতে আমি বা জেলা প্রশাসন যাবেনা। জানা যায়, খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের নামে সুনামগঞ্জ পৌরসভার ষোলঘর আবাসিক এলাকার সুরমা ১৬৪/৪ নং বাসভবনের বাসিন্দা আজমান আলীর পুত্র ও জেলা বিএনপি নেতা ফারুক আহমেদ লিলু,সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার আলমপুর নিবাসী মনির উদ্দিনের পুত্র আরশাদ আলী ও আতাহার আলী এবং অক্ষয়নগর গ্রামের আলাউর রহমান প্রমুখ ৬ বিএনপির নেতাকর্মী বর্তমানে মহালটি প্রশাসনের বিনা বাধায় দখল নিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে ভোগদখল করে যাচ্ছেন।

তারা ভূমি মন্ত্রণালয়ের নামে কালেকশনকারী বর্তমান ইজারাদার তোফাজ্জুল হোসেন,আজম খান চৌধুরী ওয়াকফ এস্টেট এর নামে চাঁদা উত্তোলনকারী সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার পূর্ব সদরগড় গ্রামের সামসুল ইসলামের পুত্র জুয়েল মিয়া,ইব্রাহিমপুর গ্রামের আব্দুল্লাহর পুত্র আব্দুর রহমান,সমরাজ মিয়ার পুত্র রাসেল মিয়া,সুনামগঞ্জ পৌরসভার নামে চাঁদা উত্তোলনকারী আরপিননগর নিবাসী শুয়েব চৌধুরীগং,সুরমা ইউনিয়ন পরিষদের নামে চাঁদা উত্তোলনকারী অক্ষয়নগর,ইব্রাহিমপুর সদরগড় ও হুরারকান্দা গ্রামের কতিপয় যুবকদের সাথে পাল্লা দিয়ে প্রকাশ্য দিবালোকে বালিপাথর বহনকারী নৌকা কার্গো বলগেড হতে বিভিন্ন রেটে চাঁদা আদায় করে যাচ্ছেন।

কিন্তু জেলা প্রশাসন এখন পর্যন্ত তাদের কাছ থেকে কোন লীজমানী গ্রহন করেনি এবং মহালটির দখলদেহীও সমজিয়ে দেয়নি। বরং গত ২রা মে ২০১৬ইং ৯৭৫(৪) নং স্মারকে জা¡লানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব বরাবরে সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক,“মেসার্স ফারুক আহমদ (লিলু) গং ০৬ জন এর অনুকূলে সুনামগঞ্জ জেলার ধোপাজান বালুমিশ্রিত পাথর কোয়ারীর ভূমি হতে সাধারন পাথর/বালিমিশ্রিত পাথর উত্তোলনের জন্য দখলনামা প্রদান প্রসঙ্গে” সংক্রান্ত ব্যাপারে মতামত চেয়ে পত্র লিখলেও এখন পর্যন্ত উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে কোন সিদ্বান্ত পায়নি জেলা প্রশাসন। মোট ১৮১.৮২ হেক্টর ভুমি হতে সাধারন পাথর ও বালুমিশ্রিত পাথর উত্তোলন ও অপসারনের লক্ষ্যে ভোগদখল সমজিয়ে দেয়ার জন্য এবং সর্বাত্বক প্রশাসনিক সহযোগীতা প্রদান করার জন্য জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে যৌথভাবে আবেদনপত্র দাখিল করেছেন ফারুক আহমদ লিলু ও তার ব্যাবসায়ী পার্টনাররা।

জেলা প্রশাসক তার পত্রে আরো উল্লেখ করেন,গত ১৪/৩/২০১৩ ইং তারিখে ধোপাজান বালুমিশ্রিত পাথর কোয়ারী”সাধারন পাথর/বালুমিশ্রিত সমৃদ্ধ এলাকা হিসেবে ঘোষনা সম্পর্কীত প্রজ্ঞাপন এর বিরুদ্ধে ইজারাদার তোফাজ্জুল হোসেন মহামান্য হাইকোর্টে রীট পিটিশন নং ৪৭৭৯/২০১৩, ১৪২১ বাংলা সনের ইজারা মেয়াদ আরো ৩ বৎসর বর্ধিত করার জন্য রীট পিটিশন নং ৫৪৫৯/২০১৪ এবং ১৪২২ বাংলা সনের খাজনা পরিশোধের জন্য রীট পিটিশন ২৩৩৩/২০১৫ দায়ের করেন। এসব মামলার কোনটিতে ৩ মাসের,কোনটিতে ৬ মাসের স্থগিতাদেশ,স্থিতাবস্থাসহ বিভিন্ন আদেশ হয়।

এছাড়া আজম খান চৌধুরী ওয়াকফ এস্টেট এর মুতওয়াল্লী আলহাজ্ব শাহ সাজ্জাদুর রহমান সুনামগঞ্জের যুগ্ম জেলা জজ প্রথম আদালতে স্বত্ত মোকদ্দমা নং ৩৫/২০০৮ দায়েরক্রমে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার আদেশ লাভ করেন। উক্ত নিষেধাজ্ঞার আদেশ এর বিরুদ্ধে সিভিল রিভিশন দায়েরের জন্য জেলা প্রশাসক সলিসিটর উইং বরাবরে অনুমতি চেয়ে আবেদন করেন। ফলে এ পর্যন্ত ৪টি মামলার আদেশের কারনে মহালটিতে খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের ইজারা প্রদান আদেশ হাছিলে ব্যার্থ রয়েছে জেলা প্রশাসন। এদিকে বিএনপি নেতা ফারুক আহমদ লিলু ও তার পার্টনাররা বলেন,ইতিমধ্যে রীট পিটিশন নং ৫৪৫৯/২০১৪ এর সর্বশেষ আদেশ সুর্প্রীম কোর্টের আপীল বিভাগের দ্বারা বারিত হয়েছে। কিন্তু ৪টি মামলার মধ্যে আরোও ৩টি মামলার আদেশ সরকারের বিরুদ্ধে থাকায় ধোপাজান বালিমিশ্রিত পাথর মহালের ইজারা দানের ব্যাপারে কোন সিদ্বান্তই নিতে পারছেনা জেলা প্রশাসন। শেষ পর্যন্ত বিরোধীয় ৩টি মামলার ব্যাপারে ফারুক আহমদ লিলুসহ বিএনপির আগ্রহী ইজারাদাররা কোন আদেশ নিয়ে আসেন সেদিকে দৃষ্টি এখন জেলাবাসীর।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: