সর্বশেষ আপডেট : ৫ মিনিট ৭ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

তনুকে ধর্ষণের প্রমাণ মিলেছে, মৃত্যুর কারণ অজ্ঞাত

Untitled-16 copyনিউজ ডেস্ক : কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের শিক্ষার্থী ও নাট্যকর্মী সোহাগী জাহান তনুর দ্বিতীয় ময়নাতদন্তে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে। তবে কীভাবে তাঁর মৃত্যু হয়েছে ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে তা উল্লেখ করা হয়নি। এ ব্যাপারে অধিকতর তদন্তের জন্য তদন্তকারী সংস্থাকে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

আজ রোববার দুপুর ১টার দিকে দ্বিতীয় ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়।

এ ব্যাপারে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. কামদা প্রসাদ সাহা বলেন, ‘তনুর দ্বিতীয় ময়নাতদন্তে মৃত্যুর আগে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে। যেহেতু দ্বিতীয় ময়নাতদন্তের জন্য মৃত্যুর ১০ দিন পর মরদেহ কবর থেকে উত্তোলন করা হয়েছিল। আর এই ১০ দিনে তাঁর মরদেহ পচে গিয়েছিল। পচা-গলা মরদেহ থেকে নতুন করে কোনো আঘাতের চিহ্ন বোঝা সম্ভব হয়নি। এ কারণে মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত করা সম্ভব নয়। তাই অধিকতর তদন্ত করে মৃত্যুর কারণ খুঁজে বের করার জন্য তদন্তকারী সংস্থাকে পরামর্শ দিয়েছি।’

এর আগে বেলা ১১টার দিকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের অফিস সহকারী মো. ফারুক হোসেন তনুর দ্বিতীয় ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) কাছে হস্তান্তর করেন।

সিআইডির সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মোশারফ হোসেন জানায়, এই প্রতিবেদন তনু হত্যা মামলার ময়নাতদন্ত কর্মকর্তা সিআইডি পরিদর্শক গাজী ইব্রাহীমের নামে এসেছে। গত ৪ এপ্রিল তনুর প্রথম ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেশ করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ ফরেনসিক বিভাগ।

গত ২০ মার্চ সন্ধ্যায় সোহাগী জাহান তনুর লাশ কুমিল্লা সেনানিবাসের ভেতরে আলীপুর পাওয়ার হাউসের পাশের জঙ্গলে পাওয়া যায়। পরের দিন তাঁর বাবা ইয়ার হোসেন কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানায়  হত্যা মামলা করেন। অধিকতর তদন্তের স্বার্থে ২৭ মার্চ তারিখে কুমিল্লা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত ৩০ মার্চ লাশ উত্তোলন করার নির্দেশ দেন। ওই দিনই দ্বিতীয় ময়নাতদন্তের জন্য লাশ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে নেওয়া হয় এবং ডিএনএ পরীক্ষার জন্য কিছু আলামত ঢাকার সিআইডির পরীক্ষাগারে পাঠানো হয়। মামলাটি ২৮ মার্চ থেকে সিআইডি তদন্ত করছে।

গত ১৬ মে সিআইডি জানিয়েছিল, তনুকে হত্যার আগে ধর্ষণ করা হয়েছিল। তবে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রথম ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছিল, তনুকে ধর্ষণের আলামত পাওয়া যায়নি। মৃত্যুর কারণও অজ্ঞাত।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: