সর্বশেষ আপডেট : ৮ মিনিট ৫ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডুর কিনিক ব্যবসায়ী খুনে অংশ নেয় পাঁচ সন্ত্রাসী !

download (1)জাহিদুর রহমান তারিক::চুয়াডাঙ্গায় কিনিক ব্যবসায়ী নজরুল ইসলাম হত্যায় পাঁচ অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী অংশ নেয়। লুঙ্গি পরা ও খালি গায়ে থাকা এ সন্ত্রাসীদের মুখে গামছা বাঁধা ছিল। এদের চারজনের হাতে আগ্নেয়াস্ত্র ও একজনের হাতে ছিল রামদা। নজরুল হত্যার একমাত্র প্রত্যদর্শী মোঃ আব্দুল্লাহর কাছ থেকে পুলিশ এ তথ্য পেয়েছে। তাঁর বর্ণনামতে, গত সোমবার তিনি ও নজরুল মোটরসাইকেলে করে ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডুর থেকে চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার তিওরবিলা গ্রামে বাড়িতে ফিরছিলেন।

গ্রামের দোলেখাল মাঠে পৌঁছালে ওত পেতে থাকা সন্ত্রাসীরা নজরুলকে ল্য করে গুলি ছোড়া। এতে মোটরসাইকেলসহ তাঁরা দুজনেই পড়ে যান। তিনি পালিয়ে গেলে নজরুলকে কুপিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে খুনিরা এলাকা ত্যাগ করে। এ ঘটনায় নজরুলের ভাই মো. আকতারুজ্জামান বাদী হয়ে আলমডাঙ্গা থানায় গতকাল মামলা করেছেন। এতে অজ্ঞাতপরিচয় সন্ত্রাসীদের আসামি করা হলেও তিওরবিলা গ্রামের ছয়জনকে সন্দেহভাজন হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। এই তালিকায় নজরুলের বাবার হত্যাকারীরাও রয়েছেন। থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মেহেদী রাসেলকে মামলার তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যা পর্যন্ত পুলিশ কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

প্রত্যদর্শী ব্যক্তি ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নজরুল ইসলাম ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু শহরে আনোয়ার কিনিক নামের একটি প্রতিষ্ঠানের মালিক। চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার সরোজগঞ্জ বাজারেও তাঁর আরেকটি কিনিক আছে। গ্রামের বাড়িতে নজরুলের ১০ বছর ও তিন মাস বয়সী দুই ছেলেকে নিয়ে তাঁর স্ত্রী থাকেন। তাঁর গোপনে বিয়ের ব্যাপারে গুঞ্জন রয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশের বিশেষ শাখা সূত্রে জানা যায়, নজরুল ইসলামের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগে আলমডাঙ্গা থানায় চারটি মামলা রয়েছে। এলাকার সন্ত্রাসীদের সঙ্গেও তাঁর সখ্য ছিল। আট মাস আগে একটি অপহরণ মামলায় তিনি আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। দুই মাস আগে কারামুক্ত হয়ে তিনি বাড়ি ফিরে নৌকার প্রার্থীর পে ভোট করেন। চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেন বলেন, ঘটনার রহস্য উন্মোচন করতে ও খুনিদের ধরতে অভিযান চলছে। প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী সন্ত্রাসীদের হাতেই নজরুল খুন হয়েছেন। অভিযোগ পাওয়া গেছে নজরুলের বাবার খুনিসহ ফাসির দন্ড থেকে মুক্ত আসামীরা মিলে এলাকায় নতুন বাহিনী গঠন করেছে।

ভারি অস্ত্রে সজ্জিত এই বাহিনীর সদস্যরা আলমডাঙ্গা, হরিণাকুন্ডু ও চুয়াডাঙ্গা সদরের বেশ কয়েকটি গ্রামে চলাফেরা করছে। পুলিশের একটি সুত্র এমন খবর উড়িয়ে দেয় নি। সন্ত্রাসীরা হরিণাকুন্ডুর রিশখালী, হিঙ্গেরপাড়া, কুতুবপুর, তিওরবিলাসহ আলমডাঙ্গা প্রত্যন্ত অঞ্চল দাপিয়ে বেড়াচ্ছে বলে পুলিশের ওই সুত্রটি জানায়।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: