সর্বশেষ আপডেট : ৬ মিনিট ১৬ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বেসরকারি স্কুল-কলেজের পর্ষদে সাংসদ নয় : রায় চেম্বার আাদলতে বহাল

kkনিউজ ডেস্ক : দেশের বেসরকারি মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদ ও ম্যানেজিং কমিটি প্রবিধানমালা, ২০০৯-এর পঞ্চম ধারাকে বাতিল ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেওয়া রায় স্থগিত করেনি আপিল বিভাগের চেম্বার আদালত।

আগামী ১২ জুন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন বেঞ্চে এ বিষয়ে শুনানি হবে। আজ বুধবার চেম্বার বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার হাইকোর্টের রায় স্থগিত চেয়ে করা আবেদন শুনানির জন্য পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে দেন।

এর ফলে হাইকোর্টের রায় বহাল রয়েছে বলে জানিয়েছেন রিটকারী আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও রিট আবেদনের পক্ষে অ্যাডভোকেট ইউনুছ আলী আকন্দ শুনানি করেন।

এর আগে গত ১ জুন বেসরকারি মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদ ও ম্যানেজিং কমিটি প্রবিধানমালা,২০০৯-এর পঞ্চম ধারাকে বাতিল ঘোষণা করেছেন হাইকোর্ট। এর ফলে সাংসদরা স্কুল-কলেজের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান হতে পারবেন না।

বিচারপতি জিনাত আরা ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ এক রিটের শুনানি শেষে এ রায়  দিয়েছিলেন।

আদালত বেসামরিক পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেননের নেতৃত্বাধীন ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের বিশেষ কমিটি বাতিল ঘোষণা করেছেন। একই সঙ্গে বর্তমান কমিটি ভেঙে অ্যাডহক কমিটি করে আগামী ছয় মাসের মধ্যে স্কুল পরিচালনা পর্ষদের নির্বাচন করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আদালতে রিটকারীর পক্ষে ছিলেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ইসরাত জাহান।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রিটকারীর আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ সাংবাদিকদের বলেন, ২০০৯ প্রবিধানমালার পঞ্চম ধারা অনুযায়ী, স্থানীয় সংসদ সদস্যরা চারটি বেসরকারি স্কুল ও কলেজের গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান পদে অধিষ্ঠিত হতে পারতেন। আদালতের রায়ের ফলে সাংসদরা আর কোনো প্রতিষ্ঠানের গভর্নিং বডিতে থাকতে পারবেন না।

ইউনুছ আলী বলেন, প্রবিধানমালা ৩৯ মতে, এডহক কমিটির মেয়াদ হবে ছয় মাসের জন্য। অথচ রাশেদ খান মেনন ২০০৯ সাল থেকে এডহক কমিটির চেয়ারম্যান। এটা সংবিধানের ৭, ২৬, ২৭, ২৮, ৩১, ৫৯, ৬০ ও ৬৫ এর লঙ্ঘন। সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক ঘোষণা করেছেন।’

তবে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ইসরাত জাহান বলেছেন, এ রায়ের ফলে চারটি প্রতিষ্ঠানে নতুন করে কোনো সংসদ সদস্যরা সভাপতি হতে পারবেন না। এখন যাঁরা আছেন তাঁরা মেয়াদ শেষ করতে পারবেন। এ রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ আপিল করবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

এর আগে ১৩ এপ্রিল এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হিসেবে সংসদ সদস্যদের দায়িত্ব পালন এবং নির্বাচন ছাড়া কমিটি গঠন কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছিলেন হাইকোর্ট।

আবেদনকারী আইনজীবী ইউনুছ আলী বলেন, ‘মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের প্রবিধানমালা ২০০৯-এর ৫ ও ৫০ ধারার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করা হয়েছিল। এর মধ্যে ৫ ধারা হচ্ছে এমপিদের সভাপতি পদ ও ৫০ ধারা হচ্ছে বিশেষ কমিটি গঠন নিয়ে। আজ  আদালত দুটি ধারা বাতিল করেছেন।’

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক অধ্যাদেশের (১৯৬১) আওতায় ‘মাধ্যমিক উচ্চ মাধ্যমকি স্তরের বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের গভর্নিং বডি ও ম্যানেজিং কমিটি প্রবিধানমালা-২০০৯ এর ৫ ধারা (গভর্নিং বডির সভাপতি মনোনয়ন) এর (১) উপবিধিতে বলা হয়েছে, ‘কোনো স্থানীয় নির্বাচিত সংসদ সদস্য তাহার নির্বাচনী এলাকায় অবস্থিত বোর্ড কর্তৃক স্বীকৃতিপ্রাপ্ত এমন সংখ্যক উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের গভর্নিং বডির সভাপতির দায়িত্ব গ্রহণ করিতে পারিবেন।’

‘(২)উপ-বিধান ১ এর অধীন সভাপতির দায়িত্বগ্রহণের জন্য স্থানীয় নির্বাচিত সংসদ সদস্য, তাহার নির্বাচনী এলাকায় অবস্থিত যে সকল উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব গ্রহণ করিতে ইচ্ছুক তাহার উল্লেখসহ লিখিতভাবে এই প্রবিধানমালার অধীন বোর্ডের চেয়ারম্যানের কাছে তাহার অভিপ্রায় ব্যক্ত করিবেন এবং উক্ত অভিপ্রায়পত্র সংশ্লিষ্ট বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বা প্রতিষ্ঠানসমূহের সভাপতি হিসেবে তাহার মনোনয়নরূপে গণ্য হবে।’

৫০ ধারায় বলা হয়েছে, ‘বিশেষ ধরণের গভর্নিংবডি বা ম্যানেজিং কমিটি বিশেষ পরিস্থিতে বোর্ড এবং সরকারের পূর্বানুমোদনক্রমে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের কোনো বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জন্য বিশেষ ধরনের গভর্নিং বডি বা ক্ষেত্র মতে ম্যানেজিং কমিটি করা যাইবে।’

ঈদে যানজট নিরসনে ১৪ পয়েন্টে হাজার স্বেচ্ছাসেবক
আরও…
Advertisement

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: