সর্বশেষ আপডেট : ৬ মিনিট ৪৭ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্নোত্তর পর্বে ‘ওপেনিং ব্যাটসম্যান’

pm_115759নিউজ ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলনের ফাঁকে ফাঁকে একটু হাস্য-কৌতুক নিয়মিত ঘটনা। সৌদি আরব, জাপান ও বুলগেরিয়া সফর নিয়ে বুধবার গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনেও এর ব্যতিক্রম হয়নি। সফরের নানা বিষয় নিয়ে কথা বলার পর সাংবাদিকদের কাছ থেকে প্রশ্ন নেন প্রধানমন্ত্রী।

লিখিত বক্তব্য শেষ হওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী প্রশ্ন আহ্বান করলে প্রথমে মাইক্রোফোন হাতে দাঁড়ান সিনিয়র সাংবাদিক নাইমুল ইসলাম খান।

তিনি প্রশ্ন করার আগেই প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আপনি তাহলে ওপেনিং ব্যাটসম্যান!” এ সময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত সবাই হেসে ওঠেন।

পরে সৌদি আরবে জনশক্তি রপ্তানি, সৌদি আরবের নেতৃত্বে সামরিক জোটে  অংশগ্রহণ এবং অস্ট্রেলিয়াতে বাংলাদেশের দূতাবাসের জন্য স্থায়ী ভবন নির্মাণ সম্পর্কে জানতে চান তিনি।

তারপরই প্রশ্ন করার জন্য ওঠেন সম্প্রচারের অপেক্ষায় থাকা বেসরকারি টেলিভিশন ডিবিসির সিইও মঞ্জুরুল ইসলাম। বিশ্ববাসীর কাছে বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করার জন্য এবং পবিত্র ওমরা পালনের সময় দেশ ও জনগণের জন্য দোয়া করায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান এই সিনিয়র সাংবাদিক।

এরই ফাঁকে নোট নিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর হাতে থাকা কলমের কালি শেষ হয়ে গেলে তা নিয়ে কিছুটা হাস্যরসের সৃষ্টি হয় সংবাদ সম্মেলনে।

এরপর দেশ ও জনগণের কল্যাণে নানা পদক্ষেপ নেয়ায় প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করেন এটিএন বাংলার জ ই মামুন। নানা ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য নিয়ে জনগণের মনোভাব তুলে ধরেন তিনি।

মঞ্জুরুল ইসলাম আর জ ই মামুনের শংসা বচনের পর মাছরাঙ্গা টেলিভিশনের রেজওয়ানুল হক রাজা সুযোগ পান প্রশ্ন করার। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত ছয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে হতাহতের বিষয়ে সরকারের বক্তব্য জানতে চান তিনি। তার প্রশ্ন হয়তো পছন্দ হচ্ছিল না সিনিয়র সাংবাদিক আজিজুল হক ভুঁইয়ার। প্রশ্নের মাঝখানে মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে দাঁড়িয়ে যান তিনি, যদিও পরে বসে পড়েন।

রাজার প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সব ইউপি নির্বাচনেই সহিংসতা হয়। এবার বেশি হয়েছে বলে যা বলা হচ্ছে, তা মানেন না তিনি।

এবার প্রশ্ন করার জন্য দাঁড়িয়ে আজিজুল হক ভূঁইয়া প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে নিজের একটি অভিমত তুলে ধরেন। দেশে জঙ্গিদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দেয়ার অভিযোগ করে তিনি পাকিস্তানের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করার অভিমত দেন। সিনিয়র এই সাংবাদিক প্রধানমন্ত্রী উদ্দেশে বলেন, “আমি আমার পেশা ও প্রজ্ঞার শপথ করে বলছি, দেশে যে হত্যাকাণ্ড হচ্ছে এর পেছনে জড়িত জামায়াত-শিবির। এবং এদের মূল প্রশ্রয়দাতা হলো পাকিস্তান।”

এরপরই প্রশ্ন করতে দাঁড়ান ডিইউজের একাংশের সভাপতি শাবান মাহমুদ। তবে একই সময়ে পেছনের সারি থেকে দাঁড়িয়ে যান এটিএন নিউজের মুন্নী সাহা। শাবান মাহমুদের বক্তব্যের সময়ও তিনি প্রধানমন্ত্রীকে প্রশ্ন করার জন্য দাঁড়িয়ে থাকেন।

পরে মুন্নী সাহা ফোর্বস ম্যাগাজিনের তালিকা অনুযায়ী বিশ্বের ক্ষমতাধর ১০০ নারীর মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৩৬তম হওয়ার অভিনন্দন জানিয়ে জানতে চান কবে নাগাদ প্রধানমন্ত্রীর এক নম্বর র‌্যাংক অর্জনের আনন্দ উদযাপন করতে পারবেন।

প্রধানমন্ত্রী অবশ্য বলেছেন, তিনি র‌্যাংক-ট্যাংক নিয়ে ভাবেন না। তার রাজনীতি দেশের মানুষের উন্নয়ন নিয়ে। কে র‌্যাংক দিল, না দিল, তাতে কিছু আসে-যায় না।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: