সর্বশেষ আপডেট : ২ ঘন্টা আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বড়লেখায় কর্মকর্তাদের দায়িত্বহীনতায় হয়রানির শিকার ভূমি মালিকরা

barlekha news daily sylhetবড়লেখা প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের বড়লেখায় ভূমি কর্মকর্তাদের দায়িত্বহীনতার কারণে অনেক ভূমি মালিককে চরম খেসারত দিতে হচ্ছে। স্থানীয় দুর্নীতিবাজ ভূমি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উৎকোচের বিনিময়ে ভুয়া কাগজপত্রে ও তদন্ত ছাড়াই একজনের দখলীয় জমি অন্যের নামে নামজারি করে দিচ্ছেন। সার্ভেয়ার ও তহশিলদারের ভুল ও স্বেচ্ছাচারি প্রতিবেদনে অনেক ভূমি মালিক এখন পথে বসেছেন।

সম্প্রতি তারা ব্যক্তি মালিকানাধীন দখলীয় ও রেকর্ডিয় ভূমি সরকারি খাসজমি গ্রহীতা এক মহিলার নামে নামজারি করে দিয়েছেন। দুই ভূমি মালিকের দীর্ঘদিনের দখলীয় ভূমিতে সরকারি খাসজমি গ্রহীতা পক্ষ সম্প্রতি দখলে গেলে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের আশংকা দেখা দেয়। খোঁজ নিতে গিয়ে বেরিয়ে আসে ভূমি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের চরম অনিয়ম আর দুর্নীতির চিত্র। ভুক্তভোগী ভূমি মালিকগণ খাসজমি বন্দোবস্ত নথি বাতিলের দবিতে সোমবার (০৬ জুন) জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদন করেছেন।

সূত্র জানায়, উপজেলার দক্ষিণভাগ গ্রামের ফারুক উদ্দিন ও জহিরুল ইসলাম দোহালিয়া মৌজার ৪১০ নং খতিয়ানে ১২০১ নং দাগের ১০২ শতাংশ ভূমি বিগত ২০১২ সালে জনৈক ছানু মিয়ার কাছ থেকে ক্রয়, ভোগদখল ও নিজেদের নামে নামজারি করেন। সম্প্রতি দোহালিয়া গ্রামের ময়নু বিবির পক্ষের লোকজন ফারুক উদ্দিন ও জহিরুল ইসলামের ক্রয়কৃত ভূমি দখলের উদ্দেশ্যে ঝুপড়ি ঘর তৈরি ও কলাগাছ রোপণ করে। দখলদাররা তখন তাদের জানায়-এ ভূমি সরকারের নিকট থেকে ময়নু বিবি বন্দোবস্ত নিয়েছেন।

ভুক্তভোগীরা উপজেলা ভূমি অফিসে গিয়ে জানতে পারেন-ময়নু বিবি ভূমিহীন হিসেবে কৃষি বন্দোবস্ত নিতে ডিসির খতিয়ানের ১২০৬ নং দাগে ৭৫ শতাংশ ভূমির জন্য আবেদন (মোকদ্দমা নং-৫৩৯৮/’৮৯, ১০৪৫/’৮৯) করেন। ২০১৩ সালের ১২ মার্চ ময়নু বিবির নামে দলিল রেজিষ্ট্রারি করে দেন জেলা প্রশাসক। কিন্তু উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার আব্দুল ছায়েম মামুন গত বছরের ১২ মার্চ ব্যক্তি মালিকানাধীন ১২০১ নং দাগের সরকারি খাসভূমি উল্লেখ করে প্রতিবেদন দেন। পরবর্তীতে দক্ষিণভাগ ইউনিয়ন ভূমি অফিসের তহশিলদার সরেজমিন তদন্ত ছাড়াই ফারুক উদ্দিন ও জহিরুল ইসলামের দখলীয় জমি ময়নু বিবির নামে নামজারি করে দেন। ভূমি কর্মকর্তার ভুয়া প্রতিবেদনের কারণে মারাত্মক দুর্ভোগে পড়েছেন ওই দুই ভূমিমালিক।

ভুক্তভোগী জহিরুল ইসলাম ও ফারুক উদ্দিন জানান, ভূমি অফিসের লোকজনের স্বেচ্ছাচারিতার কারণে তারা চরম হয়রানির শিকার হচ্ছেন। উৎকোচের বিনিময়ে আমাদের রেকর্ডিয় ও ভোগদখলীয় ভূমি সার্ভেয়ার ও তহশিলদার ময়নু বিবির নামে নামজারি করে দিয়েছেন। আমাদের ক্রয়কৃত ভূমি বহাল রাখতে দলিল রেজিষ্ট্রি করায় নথি বাতিলের জন্য জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদন করেছি। পরে দলিল বাতিলের জন্য আদালতের শরণাপন্ন হবো।

সার্ভেয়ার আব্দুল ছায়েম মামুন জানান, দলিল অনুযায়ী তিনি ময়নু বিবির নামে নামজারির প্রতিবেদন জমা দেন। দখল আছে কি-না, সরেজমিন তদন্ত করেছেন কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, অনেক দিন আগের ঘটনা, সঠিক মনে নাই।

ভারপ্রাপ্ত সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসএম আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, ১২০১ দাগটি ডিসির খতিয়ানের নয়। ভূমিহীন মহিলার নামে যেহেতু দলিল রেজিষ্ট্রি ও নামজারি হয়ে গেছে সেহেতু ভূমি মালিকদের সংশ্লিষ্ট ভূমি বন্দোবস্ত নথি (মোকদ্দমা নং-৫৩৯৮/’৮৯ ও ১০৪৫/’৮৯) বাতিলের জন্য জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদন করার পরামর্শ দিয়েছি।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: